ইংলিশ মিডিয়াগুলো পক্ষপাতিত্ব করছে: ম্যাক্রোঁ
jugantor
ইংলিশ মিডিয়াগুলো পক্ষপাতিত্ব করছে: ম্যাক্রোঁ

  অনলাইন ডেস্ক  

১৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:৩৮:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। ফাইল ছবি

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ইংলিশ মাধ্যমের মিডিয়াগুলো পক্ষপাতিত্ব করছে বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। তিনি অভিযোগ করেছেন কিছু পত্রিকা ‘সহিংসতাকে বৈধতা’ দিচ্ছে।

নিউইয়র্ক টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ম্যাক্রোঁ বলেন,‘৫ বছর আগে যখন ফ্রান্সে হামলা হয়েছিল, তখন বিশ্বের সব জাতি আমাদের সমর্থন জানিয়েছিল’। ২০১৫ সালের নভেম্বরে ফ্রান্সের প্যারিসে সিরিজ হামলায় ১৩০ জন নিহত হন।

ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেছেন, সুতরাং আমি যখন দেখি, একই ধরনের মূল্যবোধ থাকা কোনও দেশের সংবাদপত্র ফ্রান্সকে বর্ণবাদ ও ইসলামোফোবিক উল্লেখ করে সহিংসতাকে বৈধতা দেয়, তখন আমার মনে হয়, সেই আদর্শ নষ্ট হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ফ্রান্সের বাইরের মিডিয়াগুলো চার্চ ও রাষ্ট্রের পৃথকীকরণ বুঝতে পারেনি। ওই পত্রিকাগুলো ফ্রান্সকে ইসলামফোবিক(ইসলামবিদ্বেষী) হিসেবে প্রকাশ করে সহিংসতাকে বৈধতা দিয়েছে।

ম্যাক্রোঁ বলেন, সেকুলারিজম হলো, ফ্রান্সের স্কুল অথবা পাবলিক সেক্টরের চাকরিতে মুসলিমরা ধর্মীয় প্রতীকের কোনো পোশাক পরতে পারবে না।

তিনি আরওবলেন, ‘আমাদের সমাজে কে কালো, কে হলুদ বা সাদা, কে ক্যাথলিক অথবা মুসলিম তা আমি পৃথকভাবে দেখি না।’

ইংলিশ মিডিয়াগুলো পক্ষপাতিত্ব করছে: ম্যাক্রোঁ

 অনলাইন ডেস্ক 
১৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। ফাইল ছবি
ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। ফাইল ছবি

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ইংলিশ মাধ্যমের মিডিয়াগুলো পক্ষপাতিত্ব করছে বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। তিনি অভিযোগ করেছেন কিছু পত্রিকা ‘সহিংসতাকে বৈধতা’ দিচ্ছে।

নিউইয়র্ক টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ম্যাক্রোঁ বলেন, ‘৫ বছর আগে যখন ফ্রান্সে হামলা হয়েছিল, তখন বিশ্বের সব জাতি আমাদের সমর্থন জানিয়েছিল’। ২০১৫ সালের নভেম্বরে ফ্রান্সের প্যারিসে  সিরিজ হামলায় ১৩০ জন নিহত হন। 

ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেছেন, সুতরাং আমি যখন দেখি, একই ধরনের মূল্যবোধ থাকা কোনও দেশের সংবাদপত্র ফ্রান্সকে বর্ণবাদ ও ইসলামোফোবিক উল্লেখ করে সহিংসতাকে বৈধতা দেয়, তখন আমার মনে হয়, সেই আদর্শ নষ্ট হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ফ্রান্সের বাইরের মিডিয়াগুলো চার্চ ও রাষ্ট্রের পৃথকীকরণ বুঝতে পারেনি। ওই পত্রিকাগুলো ফ্রান্সকে ইসলামফোবিক (ইসলাম বিদ্বেষী) হিসেবে প্রকাশ করে সহিংসতাকে বৈধতা দিয়েছে। 

ম্যাক্রোঁ বলেন, সেকুলারিজম হলো, ফ্রান্সের স্কুল অথবা পাবলিক সেক্টরের চাকরিতে মুসলিমরা ধর্মীয় প্রতীকের কোনো পোশাক পরতে পারবে না।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সমাজে কে কালো, কে হলুদ বা সাদা, কে ক্যাথলিক অথবা মুসলিম তা আমি পৃথকভাবে দেখি না।’

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফ্রান্সে ইসলাম অবমাননা