করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা
jugantor
করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ নভেম্বর ২০২০, ২০:২৬:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউরোপ জুড়ে করোনা

আগামী বছরের শুরুতে ইউরোপ জুড়ে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা রয়েছে বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বর্তমানে বিশ্ব জুড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯ বিষয়ক বিশেষ দূত ডেভিড নাবারো জানিয়েছেন, ইউরোপীয় দেশগুলোর সরকার যদি দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয় তাহলে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

সুইজার‌ল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলোকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, ‘প্রথম ঢেউ নিয়ন্ত্রণের পর গ্রীষ্মের মাসগুলোতে তারা প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণের সুযোগ কাজে লাগায়নি। এখন আমরা দ্বিতীয় ঢেউয়ে আছি। তারা যদি প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ না করে তাহলে আগামী বছরের শুরুতে আমরা তৃতীয় ঢেউ পাব।’

কিছুদিন সংক্রমণের নিম্নগতির পর আবারও ইউরোপে তা বাড়তে শুরু করেছে। শনিবার জার্মানি ও ফ্রান্সে ৩৩ হাজার নতুন সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছে। সুইজারল্যান্ড ও অস্ট্রিয়াতেও প্রতিদিন কয়েক হাজার শনাক্ত হচ্ছেন। তুরস্কে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক ৫ হাজার ৫৩২ জন শনাক্ত হয়েছে।

এশীয় দেশগুলো করোনার বিধিনিষেধ যথাযথ সময়ের আগে শিথিল করেনি বলেও উল্লেখ করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই দূত।

তিনি বলেন, বিধিনিষেধ শিথিল করার আগে অবশ্যই দেখতে সংক্রমণ নিম্নগামী এবং নিম্নগামিতা অব্যাহত রয়েছে। ইউরোপের পদক্ষেপ ছিল অসম্পূর্ণ।

রয়টার্স

করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউরোপ জুড়ে করোনা
ফাইল ছবি

আগামী বছরের শুরুতে ইউরোপ জুড়ে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা রয়েছে বলে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বর্তমানে বিশ্ব জুড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯ বিষয়ক বিশেষ দূত ডেভিড নাবারো জানিয়েছেন, ইউরোপীয় দেশগুলোর সরকার যদি দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয় তাহলে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

সুইজার‌ল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলোকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, ‘প্রথম ঢেউ নিয়ন্ত্রণের পর গ্রীষ্মের মাসগুলোতে তারা প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণের সুযোগ কাজে লাগায়নি। এখন আমরা দ্বিতীয় ঢেউয়ে আছি। তারা যদি প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ না করে তাহলে আগামী বছরের শুরুতে আমরা তৃতীয় ঢেউ পাব।’

কিছুদিন সংক্রমণের নিম্নগতির পর আবারও ইউরোপে তা বাড়তে শুরু করেছে। শনিবার জার্মানি ও ফ্রান্সে ৩৩ হাজার নতুন সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছে। সুইজারল্যান্ড ও অস্ট্রিয়াতেও প্রতিদিন কয়েক হাজার শনাক্ত হচ্ছেন। তুরস্কে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক ৫ হাজার ৫৩২ জন শনাক্ত হয়েছে।

এশীয় দেশগুলো করোনার বিধিনিষেধ যথাযথ সময়ের আগে শিথিল করেনি বলেও উল্লেখ করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই দূত। 

তিনি বলেন, বিধিনিষেধ শিথিল করার আগে অবশ্যই দেখতে সংক্রমণ নিম্নগামী এবং নিম্নগামিতা অব্যাহত রয়েছে। ইউরোপের পদক্ষেপ ছিল অসম্পূর্ণ। 

রয়টার্স
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস