এবার হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করতে চান যোগি আদিত্যনাথ
jugantor
এবার হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করতে চান যোগি আদিত্যনাথ

  অনলাইন ডেস্ক  

৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৩:৪৩:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ও কট্টর হিন্দুত্ববাদী বিজেপি নেতা যোগি আদিত্যনাথ এবার ঐতিহাসিক হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করতে চান।

গ্রেটার হায়দরাবাদ পৌর কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে শনিবার হায়দরাবাদে এক রোড পথসভায় যোগি আদিত্যনাথ বলেছেন, ফৈজাবাদ ‘অযোধ্যা’ হতে পারলে হায়দরাবাদ ‘ভাগ্যনগর’ হবে না কেন? খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

যোগি বলেন, কিছু লোক আমাকে জিজ্ঞাসা করেছেন, হায়দরাবাদ শহরের নাম ভাগ্যনগর রাখা যেতে পারে কিনা? আমি তাদের বলেছি– কেন হবে না? উত্তরপ্রদেশে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর আমরা ফৈজাবাদের নাম রেখেছি অযোধ্যা এবং এলাহাবাদের নাম প্রয়াগরাজ। তা হলে হায়দরাবাদের নাম ‘ভাগ্যনগর’ করা যাবে না কেন?

তিনি আরও বলেন, অযোধ্যায় ভগবান শ্রীরামের মন্দির তৈরির জন্য প্রচুরসংখ্যক কর সেবক তেলেঙ্গানা এবং হায়দরাবাদ থেকে গিয়েছিলেন। আপনাদের পূর্বপুরুষরা আন্দোলন করেছিলেন; কিন্তু কিছু লোক ছিল যারা আপনাদের আস্থাকে অপমান করেছিল।

তারা যে কোনো পরিস্থিতিতে অযোধ্যায় মর্যাদা পুরুষোত্তম ভগবান শ্রী রাম মন্দির নির্মাণের পথ প্রশস্ত না করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন, তাদের একটিই প্রচেষ্টা ছিল।

কিন্তু আমরা সবাই প্রধানমন্ত্রী মোদিজির কাছে কৃতজ্ঞ। ৪৯২ বছরে যে কাজটি করা যায়নি, প্রধানমন্ত্রী শান্তিপূর্ণ উপায়ে মন্দিরটি নির্মাণের পথ প্রশস্ত করেছেন।

এবার হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করতে চান যোগি আদিত্যনাথ

 অনলাইন ডেস্ক 
৩০ নভেম্বর ২০২০, ০১:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ও কট্টর হিন্দুত্ববাদী বিজেপি নেতা যোগি আদিত্যনাথ এবার ঐতিহাসিক হায়দরাবাদের নাম পরিবর্তন করতে চান।

গ্রেটার হায়দরাবাদ পৌর কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে শনিবার হায়দরাবাদে এক রোড পথসভায় যোগি আদিত্যনাথ বলেছেন, ফৈজাবাদ ‘অযোধ্যা’ হতে পারলে হায়দরাবাদ ‘ভাগ্যনগর’ হবে না কেন? খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

যোগি বলেন, কিছু লোক আমাকে জিজ্ঞাসা করেছেন, হায়দরাবাদ শহরের  নাম ভাগ্যনগর রাখা যেতে পারে কিনা? আমি তাদের বলেছি– কেন হবে না? উত্তরপ্রদেশে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর আমরা ফৈজাবাদের নাম রেখেছি অযোধ্যা এবং এলাহাবাদের নাম প্রয়াগরাজ। তা হলে হায়দরাবাদের নাম ‘ভাগ্যনগর’ করা যাবে না কেন?

তিনি আরও বলেন, অযোধ্যায় ভগবান শ্রীরামের মন্দির তৈরির জন্য প্রচুরসংখ্যক কর সেবক তেলেঙ্গানা এবং হায়দরাবাদ থেকে গিয়েছিলেন। আপনাদের পূর্বপুরুষরা আন্দোলন করেছিলেন; কিন্তু কিছু লোক ছিল যারা আপনাদের আস্থাকে অপমান করেছিল।

তারা যে কোনো পরিস্থিতিতে অযোধ্যায় মর্যাদা পুরুষোত্তম ভগবান শ্রী রাম মন্দির নির্মাণের পথ প্রশস্ত না করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন, তাদের একটিই প্রচেষ্টা ছিল।

কিন্তু আমরা সবাই প্রধানমন্ত্রী মোদিজির কাছে কৃতজ্ঞ। ৪৯২ বছরে যে কাজটি করা যায়নি, প্রধানমন্ত্রী শান্তিপূর্ণ উপায়ে মন্দিরটি নির্মাণের পথ প্রশস্ত করেছেন।