ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল যুক্তরাষ্ট্র
jugantor
ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল যুক্তরাষ্ট্র

  অনলাইন ডেস্ক  

০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:২৭:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল যুক্তরাষ্ট্র

নিরাপত্তা উদ্বেগের কারণে বাগদাদের আমেরিকান দূতাবাসের আংশিক কর্মীদের প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। বুধবার ইরাকের দুই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

গত বছর মার্কিন মিশন ও অন্যান্য সামরিক স্থাপনা নিশানা করে কয়েক ডজন রকেট নিক্ষেপ এবং রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমায় ওয়াশিংটন ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে।

নতুন করে নিরাপত্তা উদ্বেগ দেখা দেয়ার পর কর্মীদের একটি অংশকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি জ্যেষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, মার্কিন পক্ষের তরফ থেকে নিরাপত্তা আপত্তির ওপর ভিত্তি করে সামান্য সংখ্যক কর্মী সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তারা ফিরে আসতে পারে, এটি কেবল নিরাপত্তাসংক্রান্ত পরিবর্তন।

তিনি বলেন, আমরা আগেই জানতাম এবং রাষ্ট্রদূতসহ শীর্ষ কর্মকর্তারা অবস্থান করছেন। কূটনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে কোনো ছেদ পড়েনি।

এটি ঝুঁকি কমিয়ে আনার উদ্যোগ ছিল বলে দ্বিতীয় আরেক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। তবে দূতাবাস থেকে কেমন সংখ্যক কূটনীতিককে সরিয়ে নেয়া হয়েছে, তা কেউ উল্লেখ করেননি।

এ নিয়ে কথা বলতে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন। তবে তিনি বলেন, ইরাকের বিভিন্ন স্থাপনায় মার্কিন কর্মকর্তা ও নাগরিকদের নিরাপত্তার বিষয়ে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।

একজন মুখপাত্র বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত ম্যাথিও টুলার এখনও ইরাকে অবস্থান করছেন। দূতাবাসের কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল যুক্তরাষ্ট্র

 অনলাইন ডেস্ক 
০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইরাকে থেকে কূটনীতিকের সংখ্যা কমাল যুক্তরাষ্ট্র
ছবি: সংগৃহীত

নিরাপত্তা উদ্বেগের কারণে বাগদাদের আমেরিকান দূতাবাসের আংশিক কর্মীদের প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। বুধবার ইরাকের দুই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য মিলেছে।

গত বছর মার্কিন মিশন ও অন্যান্য সামরিক স্থাপনা নিশানা করে কয়েক ডজন রকেট নিক্ষেপ এবং রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা বোমায় ওয়াশিংটন ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে।

নতুন করে নিরাপত্তা উদ্বেগ দেখা দেয়ার পর কর্মীদের একটি অংশকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি জ্যেষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, মার্কিন পক্ষের তরফ থেকে নিরাপত্তা আপত্তির ওপর ভিত্তি করে সামান্য সংখ্যক কর্মী সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তারা ফিরে আসতে পারে, এটি কেবল নিরাপত্তাসংক্রান্ত পরিবর্তন।

তিনি বলেন, আমরা আগেই জানতাম এবং রাষ্ট্রদূতসহ শীর্ষ কর্মকর্তারা অবস্থান করছেন। কূটনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে কোনো ছেদ পড়েনি।

এটি ঝুঁকি কমিয়ে আনার উদ্যোগ ছিল বলে দ্বিতীয় আরেক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। তবে দূতাবাস থেকে কেমন সংখ্যক কূটনীতিককে সরিয়ে নেয়া হয়েছে, তা কেউ উল্লেখ করেননি।

এ নিয়ে কথা বলতে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন। তবে তিনি বলেন, ইরাকের বিভিন্ন স্থাপনায় মার্কিন কর্মকর্তা ও নাগরিকদের নিরাপত্তার বিষয়ে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।

একজন মুখপাত্র বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত ম্যাথিও টুলার এখনও ইরাকে অবস্থান করছেন। দূতাবাসের কার্যক্রম অব্যাহত আছে।