কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে অনড় ভারতের কৃষকরা
jugantor
কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে অনড় ভারতের কৃষকরা

  অনলাইন ডেস্ক  

০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৪৮:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের কৃষক সংগঠনগুলির সঙ্গে বৃহস্পতিবার মোদি সরকারের মন্ত্রীদের সাত ঘণ্টারও বেশি ম্যারাথন বৈঠকের পরেও তারা আইন বাতিলের দাবিতে অনড়।

দেশটির সরকার বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহারে রাজি না-হলেও আইনে কিছু সংশোধন করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে। খবর এনডিটিভির।

কিন্তু কৃষক সংগঠনের নেতারা জানিয়ে দিয়েছেন, শুধু সংশোধন নয়। বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইনই প্রত্যাহার করতে হবে।

বৃহস্পতিবার সুরাহা না হওয়ায় শনিবার ফের বৈঠক হবে। সেখানেই চূড়ান্ত সমাধানসূত্র মিলবে বলে কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর আশা প্রকাশ করেছেন।

অন্যদকে, কৃষক নেতাদের দাবি, শনিবারই তিন আইন প্রত্যাহার নিয়ে সরকারকে প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

বৃহস্পতিবারের বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে তিন কৃষি আইনের প্রয়োজনীয়তা কৃষক সংগঠনের নেতাদের সামনে তুলে ধরা হয়। তার আগেই সকালে কৃষক সংগঠনগুলি তিন আইন নিয়ে লিখিত ভাবে তাদের আপত্তি সরকারকে জানিয়েছিল।

বৈঠকে সরকারের পক্ষ থেকে অনেক ক্ষণ ধরে বোঝানোর পরেও কৃষক সংগঠনগুলি তাদের দাবিতে অনড় থাকে। কেন আইন প্রত্যাহার করা উচিত, একে একে সেই যুক্তি তুলে ধরেন কৃষকরা।

বৈঠকে আসার আগেই কৃষিমন্ত্রী তোমর, বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়ালরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে বৈঠক করে এসেছিলেন।

বৈঠকে কৃষক নেতারা নিজেদের দাবিতে অনড় থাকায় মন্ত্রীরা নিজেদের মধ্যে কিছু আলোচনা করেন। তারা অমিত শাহর সঙ্গে ফোনেও কথা বলেন। তার পরেই আইনে সংশোধনের প্রস্তাব দেয়া হয়।

কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে অনড় ভারতের কৃষকরা

 অনলাইন ডেস্ক 
০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৪৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের কৃষক সংগঠনগুলির সঙ্গে বৃহস্পতিবার মোদি সরকারের মন্ত্রীদের সাত ঘণ্টারও বেশি ম্যারাথন বৈঠকের পরেও তারা আইন বাতিলের দাবিতে অনড়।

দেশটির সরকার বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহারে রাজি না-হলেও আইনে কিছু সংশোধন করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে। খবর এনডিটিভির।

কিন্তু কৃষক সংগঠনের নেতারা জানিয়ে দিয়েছেন, শুধু সংশোধন নয়। বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইনই প্রত্যাহার করতে হবে।

বৃহস্পতিবার সুরাহা না হওয়ায় শনিবার ফের বৈঠক হবে। সেখানেই চূড়ান্ত সমাধানসূত্র মিলবে বলে কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর আশা প্রকাশ করেছেন।

অন্যদকে, কৃষক নেতাদের দাবি, শনিবারই তিন আইন প্রত্যাহার নিয়ে সরকারকে প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

বৃহস্পতিবারের বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে তিন কৃষি আইনের প্রয়োজনীয়তা কৃষক সংগঠনের নেতাদের সামনে তুলে ধরা হয়। তার আগেই সকালে কৃষক সংগঠনগুলি তিন আইন নিয়ে লিখিত ভাবে তাদের আপত্তি সরকারকে জানিয়েছিল।

বৈঠকে সরকারের পক্ষ থেকে অনেক ক্ষণ ধরে বোঝানোর পরেও কৃষক সংগঠনগুলি তাদের দাবিতে অনড় থাকে। কেন আইন প্রত্যাহার করা উচিত, একে একে সেই যুক্তি তুলে ধরেন কৃষকরা।

বৈঠকে আসার আগেই কৃষিমন্ত্রী তোমর, বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়ালরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে বৈঠক করে এসেছিলেন।

বৈঠকে কৃষক নেতারা নিজেদের দাবিতে অনড় থাকায় মন্ত্রীরা নিজেদের মধ্যে কিছু আলোচনা করেন। তারা অমিত শাহর সঙ্গে ফোনেও কথা বলেন। তার পরেই আইনে সংশোধনের প্রস্তাব দেয়া হয়।