‘ইরান রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ করবে প্রতিবেশীদের ওপর’
jugantor
‘ইরান রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ করবে প্রতিবেশীদের ওপর’

  অনলাইন ডেস্ক  

০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ২০:৪৩:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালের চুক্তি অনুসারে তিন দশমিক ৬৭ শতাংশের বেশি সমৃদ্ধকরণ না করতে সম্মত হয়েছিল ইরান।

ইরান রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি করতে পারলে প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর তা প্রয়োগ করবে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্প প্রশাসনের অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মানুচিন। তিনি বলেছেন, ‘ইরানের রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির যে কোনো প্রচেষ্টার বিরোধিতা করে যাবে আমেরিকা।’ তিনি বলেন, ইরান রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি করতে পারলে তা প্রয়োগ করবে প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর।

এদিকে বিদায় নেওয়ার আগে ইরানের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। বৃহস্পতিবার ইরানের একটি কোম্পানি ও তার পরিচালকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়।

ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্ভাবনী গবেষণা বিষয়ক সংস্থা- সেপান্দের সঙ্গে সহযোগিতা করার দায়ে ‘শহীদ মেইসামি কমপ্লেক্স’ নামক কোম্পানি ও তার পরিচালক মেহরান বাবরির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এই কোম্পানি বেসামরিক কাজে রাসায়নিক কর্মসূচি নিয়ে তৎপরতা চালায়।

মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, সেপান্দের সঙ্গে শহীদ মেইসামি কমপ্লেক্স যৌথভাবে যে রাসায়নিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে তার মাধ্যমে রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি করা সম্ভব।

এর আগে ইরানেরশীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী গুপ্তহত্যার শিকার হওয়ার পর নিজের পারমাণবিক স্থাপনায় জাতিসংঘের পরিদর্শন বন্ধ করতে উদ্যোগ নিয়েছে দেশটি।বুধবার পার্লামেন্টে অনুমোদন হওয়া নতুন আইনের অধীন অস্ত্রের-ধাপের জ্বালানিতে নিয়ে যেতে দেশটি তার ইউরোনিয়াম সমৃদ্ধকরণ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অর্থনীতিকে পঙ্গু করে দেয়া মার্কিন নিষেধাজ্ঞা যদি মাস দুয়েকের মধ্যে তুলে নেয়া না হয়, তবে নতুন আইন অনুসারে সরকার ২০ শতাংশের বেশি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে পারবে।

ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালের চুক্তি অনুসারে তিন দশমিক ৬৭ শতাংশের বেশি সমৃদ্ধকরণ না করতে সম্মত হয়েছিল ইরান। তবে নতুন আইন বাস্তবায়নের বিরোধিতার কথা জানিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

শুক্রবার রাজধানী তেহরানের বাইরে একটি সড়কে রহস্যজনক হামলার শিকার হয়ে নিহত হন বিজ্ঞানী মহসিন ফাখরিজাদেহ। ইরানের পরমাণু কর্মসূচিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন তিনি। তবে তাদের এই তৎপরতা শান্তিপূর্ণ বলেই দাবি করেছে দেশটি। গার্ডিয়ান কাউন্সিল বা সুরা নেগাহবান আইনটিতে অনুমোদন দিয়েছে।

‘ইরান রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ করবে প্রতিবেশীদের ওপর’

 অনলাইন ডেস্ক 
০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালের চুক্তি অনুসারে তিন দশমিক ৬৭ শতাংশের বেশি সমৃদ্ধকরণ না করতে সম্মত হয়েছিল ইরান।
ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালের চুক্তি অনুসারে তিন দশমিক ৬৭ শতাংশের বেশি সমৃদ্ধকরণ না করতে সম্মত হয়েছিল ইরান। ফাইল ছবি

ইরান রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি করতে পারলে প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর তা প্রয়োগ করবে বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্প প্রশাসনের অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মানুচিন। তিনি বলেছেন, ‘ইরানের রাসায়নিক অস্ত্র তৈরির যে কোনো প্রচেষ্টার বিরোধিতা করে যাবে আমেরিকা।’ তিনি বলেন, ইরান রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি করতে পারলে তা প্রয়োগ করবে প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর। 

এদিকে বিদায় নেওয়ার আগে ইরানের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। বৃহস্পতিবার ইরানের একটি কোম্পানি ও তার পরিচালকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়।

ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্ভাবনী গবেষণা বিষয়ক সংস্থা- সেপান্দের সঙ্গে সহযোগিতা করার দায়ে ‘শহীদ মেইসামি কমপ্লেক্স’ নামক কোম্পানি ও তার পরিচালক মেহরান বাবরির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এই কোম্পানি বেসামরিক কাজে রাসায়নিক কর্মসূচি নিয়ে তৎপরতা চালায়। 

মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, সেপান্দের সঙ্গে শহীদ মেইসামি কমপ্লেক্স যৌথভাবে যে রাসায়নিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে তার মাধ্যমে রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি করা সম্ভব। 

এর আগে ইরানের শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী গুপ্তহত্যার শিকার হওয়ার পর নিজের পারমাণবিক স্থাপনায় জাতিসংঘের পরিদর্শন বন্ধ করতে উদ্যোগ নিয়েছে দেশটি। বুধবার পার্লামেন্টে অনুমোদন হওয়া নতুন আইনের অধীন অস্ত্রের-ধাপের জ্বালানিতে নিয়ে যেতে দেশটি তার ইউরোনিয়াম সমৃদ্ধকরণ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অর্থনীতিকে পঙ্গু করে দেয়া মার্কিন নিষেধাজ্ঞা যদি মাস দুয়েকের মধ্যে তুলে নেয়া না হয়, তবে নতুন আইন অনুসারে সরকার ২০ শতাংশের বেশি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে পারবে।

ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ২০১৫ সালের চুক্তি অনুসারে তিন দশমিক ৬৭ শতাংশের বেশি সমৃদ্ধকরণ না করতে সম্মত হয়েছিল ইরান। তবে নতুন আইন বাস্তবায়নের বিরোধিতার কথা জানিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। 

শুক্রবার রাজধানী তেহরানের বাইরে একটি সড়কে রহস্যজনক হামলার শিকার হয়ে নিহত হন বিজ্ঞানী মহসিন ফাখরিজাদেহ। ইরানের পরমাণু কর্মসূচিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন তিনি। তবে তাদের এই তৎপরতা শান্তিপূর্ণ বলেই দাবি করেছে দেশটি। গার্ডিয়ান কাউন্সিল বা সুরা নেগাহবান আইনটিতে অনুমোদন দিয়েছে।