ইরানের নিহত পরমাণুবিজ্ঞানী সর্বোচ্চ পদকে ভূষিত
jugantor
ইরানের নিহত পরমাণুবিজ্ঞানী সর্বোচ্চ পদকে ভূষিত

  অনলাইন ডেস্ক  

১৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:২৪:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের শীর্ষ পরমাণুবিজ্ঞানী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের গবেষণা ও উদ্ভাবনী সংস্থার চেয়ারম্যান মোহসেন ফাখরিজাদেহ গত ২৭ নভেম্বর তেহরানের অদূরে এক সন্ত্রাসী হামলায় প্রাণ হারান।

দেশটির শীর্ষ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি প্রয়াত এ বিজ্ঞানীকে ইরানের সর্বোচ্চ সামরিক খেতাব 'নাছর' (বিজয়)-এ ভূষিত করেন।

ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাঘেরি রোববার ফাখরিজাদেহর বাড়ি গিয়ে আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির স্বাক্ষর খচিত এ পদক তার পরিবারের হাতে তুলে দেন। খবর আরব নিউজের।

এ সময় ইরানের সেনাপ্রধান বলেন, এ পদকটি এমন একজন দেশপ্রেমিককে দেয়া হয় যিনি দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেন।

মোহসেন ফাখরিজাদেহ তেমনই একজন দেশপ্রেমিক মানুষ ছিলেন। ইরান দাবি করছে, পরমাণুবিজ্ঞানী হত্যায় সরাসরি জড়িত ইসরাইলের কুখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ।

ইসলামি বিপ্লবের শুরু থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও তার ঘনিষ্ঠ মিত্র ইসরাইল ইরানের সঙ্গে শত্রুতা করে আসছে।

কারণ বিপ্লবের পর আমেরিকার পাশাপাশি ইহুদিবাদীদের স্বার্থ বিপন্ন হয়ে পড়েছে। এ জন্য তারা যে কোনো উপায়ে ইরানের ক্ষতি করতে ওঠেপড়ে লেগেছে।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালে একটি সেমিনারে প্রকাশ্যে মোহসেন ফাখরিজাদেহর নাম উল্লেখ করে তাকে ইহুদিবাদী রাষ্ট্রের জন্য বড় হুমকি হিসেবে বর্ণনা করেন।

ইসরাইল বিগত ৭০ বছরে মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশগুলোর ২ হাজার ৭০০ বিজ্ঞানী, চিন্তাবিদ ও বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করেছে।

ইরানের নিহত পরমাণুবিজ্ঞানী সর্বোচ্চ পদকে ভূষিত

 অনলাইন ডেস্ক 
১৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:২৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের শীর্ষ পরমাণুবিজ্ঞানী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের গবেষণা ও উদ্ভাবনী সংস্থার চেয়ারম্যান মোহসেন ফাখরিজাদেহ গত ২৭ নভেম্বর তেহরানের অদূরে এক সন্ত্রাসী হামলায় প্রাণ হারান।

দেশটির শীর্ষ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি প্রয়াত এ বিজ্ঞানীকে ইরানের সর্বোচ্চ সামরিক খেতাব 'নাছর' (বিজয়)-এ ভূষিত করেন।

ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাঘেরি রোববার ফাখরিজাদেহর বাড়ি গিয়ে আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির স্বাক্ষর খচিত এ পদক তার পরিবারের হাতে তুলে দেন। খবর আরব নিউজের।

এ সময় ইরানের সেনাপ্রধান বলেন, এ পদকটি এমন একজন দেশপ্রেমিককে দেয়া হয় যিনি দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেন।

মোহসেন ফাখরিজাদেহ তেমনই একজন দেশপ্রেমিক মানুষ ছিলেন। ইরান দাবি করছে, পরমাণুবিজ্ঞানী হত্যায় সরাসরি জড়িত ইসরাইলের কুখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ।

ইসলামি বিপ্লবের শুরু থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও তার ঘনিষ্ঠ মিত্র ইসরাইল ইরানের সঙ্গে শত্রুতা করে আসছে।

কারণ বিপ্লবের পর আমেরিকার পাশাপাশি ইহুদিবাদীদের স্বার্থ বিপন্ন হয়ে পড়েছে। এ জন্য তারা যে কোনো উপায়ে ইরানের ক্ষতি করতে ওঠেপড়ে লেগেছে।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালে একটি সেমিনারে প্রকাশ্যে মোহসেন ফাখরিজাদেহর নাম উল্লেখ করে তাকে ইহুদিবাদী রাষ্ট্রের জন্য বড় হুমকি হিসেবে বর্ণনা করেন।

ইসরাইল বিগত ৭০ বছরে মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম দেশগুলোর ২ হাজার ৭০০ বিজ্ঞানী, চিন্তাবিদ ও বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানীকে হত্যা