তুরস্কের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা ইরানের
jugantor
তুরস্কের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা ইরানের

  অনলাইন ডেস্ক  

১৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫:০২:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

তুরস্কের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা ইরানের

তুরস্কের বিরুদ্ধে ন্যাটোমিত্র যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ।রাশিয়ার কাছ থেকে আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ কেনার পর আঙ্কারার বিরুদ্ধে সোমবার এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

এ নিষেধাজ্ঞাকে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি অবজ্ঞা বলে আখ্যায়িত করেন তিনি। এক টুইটপোস্টে জারিফ বলেন, নিষেধাজ্ঞার প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আসক্তি এবং আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি অবজ্ঞা ফের প্রদর্শন করা হয়েছে। তুরস্কের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আমরা কঠোর নিন্দা জানাচ্ছি এবং দেশটির সরকার ও জনগণের পাশে আছি।

এর আগে রাশিয়াও এ নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, এই নিষেধাজ্ঞা অবৈধ। এতে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ঔদ্ধত্যপূর্ণ মনোভাব, অবৈধ ও একতরফা জবরদস্তিমূলক পদক্ষেপের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বহু বছর ধরে এই জবরদস্তিকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে আসছে।

তিনি বলেন, আমি মনে করি– সামরিক ও প্রযুক্তি সহযোগিতার ক্ষেত্রসহ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে একটি দায়িত্বশীল অংশীদার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বাসযোগ্যতায় এতে কোনো কিছু যোগ করবে না।

সোমবার আঙ্কারার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ওয়াশিংটন। বলছে, প্রেসিডেন্সি অব ডিফেন্স ইন্ডাস্ট্রিজে সব মার্কিন রফতানি লাইসেন্স নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং সংস্থাটির প্রেসিডেন্টের যে কোনো ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হবে।

গত বছর তুরস্ককে প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ হস্তান্তর করেছে রাশিয়া। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের তরফে হুশিয়ারি করে দেয়া হয়েছিল যে, ন্যাটো জোটে তুরস্কের সদস্যপদের সঙ্গে এটি যায় না।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অন্যায়ভাবে এই নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। তিনি সংলাপ ও কূটনৈতিক সমাধানের আহ্বান জানিয়েছেন।

তুরস্কের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা ইরানের

 অনলাইন ডেস্ক 
১৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তুরস্কের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার নিন্দা ইরানের
ছবি: সংগৃহীত

তুরস্কের বিরুদ্ধে ন্যাটোমিত্র যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ। রাশিয়ার কাছ থেকে আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ কেনার পর আঙ্কারার বিরুদ্ধে সোমবার এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

এ নিষেধাজ্ঞাকে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি অবজ্ঞা বলে আখ্যায়িত করেন তিনি। এক টুইটপোস্টে জারিফ বলেন, নিষেধাজ্ঞার প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আসক্তি এবং আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি অবজ্ঞা ফের প্রদর্শন করা হয়েছে। তুরস্কের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আমরা কঠোর নিন্দা জানাচ্ছি এবং দেশটির সরকার ও জনগণের পাশে আছি।

এর আগে রাশিয়াও এ নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, এই নিষেধাজ্ঞা অবৈধ। এতে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ঔদ্ধত্যপূর্ণ মনোভাব, অবৈধ ও একতরফা জবরদস্তিমূলক পদক্ষেপের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বহু বছর ধরে এই জবরদস্তিকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে আসছে।

তিনি বলেন, আমি মনে করি– সামরিক ও প্রযুক্তি সহযোগিতার ক্ষেত্রসহ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে একটি দায়িত্বশীল অংশীদার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বাসযোগ্যতায় এতে কোনো কিছু যোগ করবে না।

সোমবার আঙ্কারার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ওয়াশিংটন। বলছে, প্রেসিডেন্সি অব ডিফেন্স ইন্ডাস্ট্রিজে সব মার্কিন রফতানি লাইসেন্স নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং সংস্থাটির প্রেসিডেন্টের যে কোনো ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হবে।

গত বছর তুরস্ককে প্রতিরক্ষাব্যবস্থা এস-৪০০ হস্তান্তর করেছে রাশিয়া। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের তরফে হুশিয়ারি করে দেয়া হয়েছিল যে, ন্যাটো জোটে তুরস্কের সদস্যপদের সঙ্গে এটি যায় না।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অন্যায়ভাবে এই নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। তিনি সংলাপ ও কূটনৈতিক সমাধানের আহ্বান জানিয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-তুরস্ক এস-৪০০ বিতর্ক