দুই হাজার বছর আগের ফাস্ট ফুড দোকানের সন্ধান (ভিডিও)
jugantor
দুই হাজার বছর আগের ফাস্ট ফুড দোকানের সন্ধান (ভিডিও)

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ ডিসেম্বর ২০২০, ২০:৫৪:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

ইতালির পম্পেই শহরে দুই হাজার বছর আগের রোমানদের ফাস্ট ফুডের দোকানের সন্ধান পাওয়া গেছে। রোমের একটি সংবাদমাধ্যমে পম্পেই প্রত্মতাত্ত্বিক উদ্যানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, ‘থার্মোপোলিয়াম’ নামে গরম গরম খাবার বিক্রিকারী দোকানের খোঁজ এবারই প্রথম মিলেছে। এটি খুব দ্রুত দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হবে। আগামী ইস্টার সানডে থেকে এখানে দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারবে।

এর আগে ২০১৯ সালে ওই এলাকায় ৮০টি ফাস্ট ফুড দোকানের সন্ধান মিললেও এবারেরটি ভিন্ন রকমের।

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, প্রত্নতাত্ত্বিক বিশেষজ্ঞরা শনিবার পুরাতন এই ফাস্টফুড কাউন্টারের সন্ধান পেয়েছেন।

দোকানের স্ন্যাক্সের কাউন্টারটি পলিক্রম নকশায় (বিভিন্ন রঙের ইট দিয়ে সাজানো নকশা) সজ্জিত। আগ্নেয়গিরির ছাইয়ে ঢাকা ছিল এ দোকান। গত বছর প্রত্নতাত্ত্বিকেরা এর আংশিক খুঁড়ে বের করেন। প্রত্নতাত্ত্বিকেরা প্রাচীন নিদর্শন বের করে আনতে খননকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

প্রত্নতাত্ত্বিকদের দল ফাস্ট ফুডের ওই দোকানে হাঁস, শূকর, ছাগলের হাড়ের টুকরো খুঁজে পেয়েছেন। মাটির পাত্রে পেয়েছেন মাছ ও শামুক। এগুলোর মধ্যে কিছু উপাদান রোমান যুগের খাবার ‘পেলার’ মতো একসঙ্গে রান্না করা হয়েছিল।

এখন পর্যন্ত ৬৬ হেক্টরবিশিষ্ট ওই প্রাচীন শহরের দুই-তৃতীয়াংশ উন্মোচিত হয়েছে।

এক সময় ব্যস্ত নগরী ছিল প্রাচীন ইতালির পম্পেই নগরী। দুই হাজার বছর আগে ৭৯ খ্রিষ্টাব্দে ভিসুভিয়াস পর্বতের আগ্নেয়গিরির দুই দিনব্যাপী সর্বনাশা অগ্ন্যুৎপাতে পম্পেই নগরী সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। ৬০ ফুট উঁচু ছাই এবং ঝামা পাথথের নিচে শহরটি চাপা পড়ে যায়।

ফলে জীবন্ত কবর হয়েছিল পম্পেইর। তখন সেখানে ১৩ হাজার মানুষের বসবাস ছিল।

দুই হাজার বছর আগের ফাস্ট ফুড দোকানের সন্ধান (ভিডিও)

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইতালির পম্পেই শহরে দুই হাজার বছর আগের রোমানদের ফাস্ট ফুডের দোকানের সন্ধান পাওয়া গেছে। রোমের একটি সংবাদমাধ্যমে পম্পেই প্রত্মতাত্ত্বিক উদ্যানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, ‘থার্মোপোলিয়াম’ নামে গরম গরম খাবার বিক্রিকারী দোকানের খোঁজ এবারই প্রথম মিলেছে। এটি খুব দ্রুত দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হবে। আগামী ইস্টার সানডে থেকে এখানে দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারবে। 

এর আগে ২০১৯ সালে ওই এলাকায় ৮০টি ফাস্ট ফুড দোকানের সন্ধান মিললেও এবারেরটি ভিন্ন রকমের। 

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, প্রত্নতাত্ত্বিক বিশেষজ্ঞরা শনিবার পুরাতন এই ফাস্টফুড কাউন্টারের সন্ধান পেয়েছেন। 

দোকানের স্ন্যাক্সের কাউন্টারটি পলিক্রম নকশায় (বিভিন্ন রঙের ইট দিয়ে সাজানো নকশা) সজ্জিত। আগ্নেয়গিরির ছাইয়ে ঢাকা ছিল এ দোকান। গত বছর প্রত্নতাত্ত্বিকেরা এর আংশিক খুঁড়ে বের করেন। প্রত্নতাত্ত্বিকেরা প্রাচীন নিদর্শন বের করে আনতে খননকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

প্রত্নতাত্ত্বিকদের দল ফাস্ট ফুডের ওই দোকানে হাঁস, শূকর, ছাগলের হাড়ের টুকরো খুঁজে পেয়েছেন। মাটির পাত্রে পেয়েছেন মাছ ও শামুক। এগুলোর মধ্যে কিছু উপাদান রোমান যুগের খাবার ‘পেলার’ মতো একসঙ্গে রান্না করা হয়েছিল।

এখন পর্যন্ত ৬৬ হেক্টরবিশিষ্ট ওই প্রাচীন শহরের দুই-তৃতীয়াংশ উন্মোচিত হয়েছে।

এক সময় ব্যস্ত নগরী ছিল প্রাচীন ইতালির পম্পেই নগরী।  দুই হাজার বছর আগে ৭৯ খ্রিষ্টাব্দে ভিসুভিয়াস পর্বতের আগ্নেয়গিরির দুই দিনব্যাপী সর্বনাশা অগ্ন্যুৎপাতে পম্পেই নগরী সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। ৬০ ফুট উঁচু ছাই এবং ঝামা পাথথের নিচে শহরটি চাপা পড়ে যায়। 

ফলে জীবন্ত কবর হয়েছিল পম্পেইর। তখন সেখানে ১৩ হাজার মানুষের বসবাস ছিল।