ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেয়ার দাবি পম্পেওর
jugantor
ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেয়ার দাবি পম্পেওর

  অনলাইন ডেস্ক  

১১ জানুয়ারি ২০২১, ১০:১৫:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের কোনো মাত্রায়ই ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার থাকা উচিত নয় বলে দাবি করেছেন বিদায়ী মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত ইরান আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের তেহরান থেকে বহিষ্কারের হুমকি দেয়ার পর পম্পেও এ কথা বলেন। খবর তাসনিম নিউজের।

পম্পেওর দাবি, ইরান তার পরমাণু কর্মসূচির মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তাকে বিপন্ন করে তুলেছে। কাজেই তার ভাষায় তেহরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেওয়া উচিত।

২০১৫ সালে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা অনুযায়ী ইরান সর্বোচ্চ সাড়ে ৩ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে রাজি হয়েছিল। তখন পর্যন্ত তেহরান ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করত।

কিন্তু ২০১৮ সালে আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর ইরান ওই সমঝোতায় দেওয়া নিজের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন ক্রমান্বয়ে স্থগিত করে এবং গত সপ্তাহে আবারও ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে শুরু করে।

ইরানের সংসদের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র আবুল ফজল আমুয়ি রোববার বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করলে তার দেশ পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ চুক্তি বা এনপিটির সম্পূরক প্রটোকল থেকে বেরিয়ে যাবে।

ইরান তা করলে জাতিসংঘের পরিদর্শকরা ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলো পরিদর্শন করতে পারবেন না এবং যেসব পরিদর্শক এখন ইরানে অবস্থান করছেন তাদের এ দেশ ছেড়ে চলে যেতে হবে।

ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেয়ার দাবি পম্পেওর

 অনলাইন ডেস্ক 
১১ জানুয়ারি ২০২১, ১০:১৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের কোনো মাত্রায়ই ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার থাকা উচিত নয় বলে দাবি করেছেন বিদায়ী মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।  

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত ইরান আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের তেহরান থেকে বহিষ্কারের হুমকি দেয়ার পর পম্পেও এ কথা বলেন। খবর তাসনিম নিউজের।

পম্পেওর দাবি, ইরান তার পরমাণু কর্মসূচির মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তাকে বিপন্ন করে তুলেছে। কাজেই তার ভাষায় তেহরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেওয়া উচিত।

২০১৫ সালে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা অনুযায়ী ইরান সর্বোচ্চ সাড়ে ৩ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে রাজি হয়েছিল। তখন পর্যন্ত তেহরান ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করত।

কিন্তু ২০১৮ সালে আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর ইরান ওই সমঝোতায় দেওয়া নিজের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন ক্রমান্বয়ে স্থগিত করে এবং গত সপ্তাহে আবারও ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে শুরু করে।

ইরানের সংসদের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র আবুল ফজল আমুয়ি রোববার বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করলে তার দেশ পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ চুক্তি বা এনপিটির সম্পূরক প্রটোকল থেকে বেরিয়ে যাবে।

ইরান তা করলে জাতিসংঘের পরিদর্শকরা ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলো পরিদর্শন করতে পারবেন না এবং যেসব পরিদর্শক এখন ইরানে অবস্থান করছেন তাদের এ দেশ ছেড়ে চলে যেতে হবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-ইরান সংকট

আরও খবর