ফিলিস্তিনে ইসরাইলের অবৈধ ইহুদি বসতির তীব্র নিন্দা সৌদির
jugantor
ফিলিস্তিনে ইসরাইলের অবৈধ ইহুদি বসতির তীব্র নিন্দা সৌদির

  অনলাইন ডেস্ক  

১৩ জানুয়ারি ২০২১, ১১:০২:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনিদের জবরদখল করা ভূমিতে নতুন করে আরও ৮০০ ইউনিট নতুন ইহুদি বসতি নির্মাণের ঘোষণায় ইসরাইলের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব।

সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার তেলআবিবের ওই অবৈধ বসতি নির্মাণ পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করে ইসরাইল এটি করছে। ফলে দ্বিজাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে ফিলিস্তিনের সঙ্গে চলা দীর্ঘদিনের বিরোধ নিষ্পত্তির পথ বন্ধ হয়ে যাবে। খবর আনাদোলুর।

সোমবার দখলকৃত ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরে ইহুদিদের জন্য নতুন করে আরও প্রায় ৮০০ ইউনিট বসতি নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের দায়িত্বগ্রহণের মাত্র কয়েক দিন আগে সোমবার এ ঘোষণা দেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী। খবর আলজাজিরা ও আনাদোলুর।

নেতানিয়াহুর কার্যালয় থেকে নতুন বসতির নির্মাণের স্থান উল্লেখ করলেও কাজ শুরুর তারিখ ঘোষণা করা হয়নি।

আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, ফিলিস্তিনি ভূমিতে বসতি নির্মাণ অবৈধ। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বড় অংশ ইসরাইলি বসতি নির্মাণকে দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের মূল বাধা বলে বিবেচনা করে থাকে।

তবে বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এসব বসতি নির্মাণে ইসরাইলকে সমর্থন দিচ্ছেন। গত কয়েক মাসে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার সময় নতুন অবৈধ বসতি নির্মাণ পরিকল্পনা স্থগিত রাখে ইসরাইল।

তবে এসব বসতি নিয়ে সমালোচনা করায় জো বাইডেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার আগেই সেই পরিকল্পনা আবারও বাস্তবায়ন শুরুর ঘোষণা দিলেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী।

সোমবার ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, বেইতএল, তালমিনাসে, রেহেলিম, শাভেই সোমরন, বারকান, কারনেই সোমরন এবং জিভাত জিভে নতুন বসতি নির্মাণের আদেশ দিয়েছেন নেতানিয়াহু।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইসরাইলের এ ঘোষণার নিন্দা জানিয়ে বলেছে, ট্রাম্পের দায়িত্ব ছাড়ার আগে সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বসতি নির্মাণ করতে চাইছে ইসরাইল।

ফিলিস্তিনে ইসরাইলের অবৈধ ইহুদি বসতির তীব্র নিন্দা সৌদির

 অনলাইন ডেস্ক 
১৩ জানুয়ারি ২০২১, ১১:০২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনিদের জবরদখল করা ভূমিতে নতুন করে আরও ৮০০ ইউনিট নতুন ইহুদি বসতি নির্মাণের ঘোষণায় ইসরাইলের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব।
 
সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার তেলআবিবের ওই অবৈধ বসতি নির্মাণ পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করে ইসরাইল এটি করছে। ফলে দ্বিজাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে ফিলিস্তিনের সঙ্গে চলা দীর্ঘদিনের বিরোধ নিষ্পত্তির পথ বন্ধ হয়ে যাবে। খবর আনাদোলুর।
 
সোমবার দখলকৃত ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরে ইহুদিদের জন্য নতুন করে আরও প্রায় ৮০০ ইউনিট বসতি নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের দায়িত্বগ্রহণের মাত্র কয়েক দিন আগে সোমবার এ ঘোষণা দেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী। খবর আলজাজিরা ও আনাদোলুর।

নেতানিয়াহুর কার্যালয় থেকে নতুন বসতির নির্মাণের স্থান উল্লেখ করলেও কাজ শুরুর তারিখ ঘোষণা করা হয়নি।

আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, ফিলিস্তিনি ভূমিতে বসতি নির্মাণ অবৈধ। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বড় অংশ ইসরাইলি বসতি নির্মাণকে দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের মূল বাধা বলে বিবেচনা করে থাকে।

তবে বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এসব বসতি নির্মাণে ইসরাইলকে সমর্থন দিচ্ছেন। গত কয়েক মাসে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশের সঙ্গে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার সময় নতুন অবৈধ বসতি নির্মাণ পরিকল্পনা স্থগিত রাখে ইসরাইল।

তবে এসব বসতি নিয়ে সমালোচনা করায় জো বাইডেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার আগেই সেই পরিকল্পনা আবারও বাস্তবায়ন শুরুর ঘোষণা দিলেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী।

সোমবার ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, বেইতএল, তালমিনাসে, রেহেলিম, শাভেই সোমরন, বারকান, কারনেই সোমরন এবং জিভাত জিভে নতুন বসতি নির্মাণের আদেশ দিয়েছেন নেতানিয়াহু।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইসরাইলের এ ঘোষণার নিন্দা জানিয়ে বলেছে, ট্রাম্পের দায়িত্ব ছাড়ার আগে সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বসতি নির্মাণ করতে চাইছে ইসরাইল।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ