গ্রেফতারের ঝুঁকি সত্ত্বেও রাশিয়ায় ফিরলেন নাভালনি
jugantor
গ্রেফতারের ঝুঁকি সত্ত্বেও রাশিয়ায় ফিরলেন নাভালনি

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০০:৩৯:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

গ্রেফতারের ঝুঁকি সত্ত্বেও রাশিয়ায় ফিরলেন নাভালনি

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনি জার্মানির বার্লিন থেকে উড়োজাহাজে করে দেশে পাড়ি জমিয়েছেন। যদিও তার গ্রেফতার ও কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

গেল বছর বিষপ্রয়োগে অসুস্থ হয়ে মৃত্যুমুখ থেকে ফিরে আসার পর নাভালনি এই প্রথম রাশিয়ায় যাচ্ছেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও বিবিসি এমন খবর দিয়েছে।

রোববার জিএমটি ১৪:৩০ মিনিটে তিনি বার্লিন থেকে উড়োজাহাজে উঠেছেন। তার বিমান মস্কোর ভেনুকোভা বিমানবন্দরে নামতে চেষ্টা করেছিল। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তাকে শেরিমেটিয়াভো বিমানবন্দরে অবতরণে বাধ্য করেছে।

রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন এয়ারোফ্লোটের মালিকানাধীন পোবেদা এয়ারলাইনের ফ্লাইটে তিনি রাশিয়ায় আসেন।

গত বছর অগাস্টে একটি অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে সার্বিয়া থেকে মস্কো ফেরার সময় এককাপ চা পানের পরই অসুস্থ হয়ে কোমায় চলে গিয়েছিলেন নাভলনি। বিমানবন্দর থেকে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

অবস্থার পরিবর্তন না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে জার্মানি নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই পরীক্ষায় জানায় যায়, সোভিয়েত আমলে তৈরি বিষাক্ত নার্ভ এজন্টে নোভিচক দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল।

নাভালনি ও তার সমর্থকদের অভিযোগ, রুশ সরকার বিশেষ করে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশেই তাকে রাসায়নিক বিষ প্রয়োগে মারার চেষ্টা করা হয়।

অবশ্য ক্রেমলিন ওই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করেছে। পুতিন বলেছেন, যদি রুশ এজেন্টরা তাকে হত্যা করতেই চাইতে, ‍তবে ‘তারা অবশ্যই তাদের কাজ শেষ করত’।

গ্রেফতারের ঝুঁকি সত্ত্বেও রাশিয়ায় ফিরলেন নাভালনি

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৩৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গ্রেফতারের ঝুঁকি সত্ত্বেও রাশিয়ায় ফিরলেন নাভালনি
ছবি: সংগৃহীত

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনি জার্মানির বার্লিন থেকে উড়োজাহাজে করে দেশে পাড়ি জমিয়েছেন। যদিও তার গ্রেফতার ও কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

গেল বছর বিষপ্রয়োগে অসুস্থ হয়ে মৃত্যুমুখ থেকে ফিরে আসার পর নাভালনি এই প্রথম রাশিয়ায় যাচ্ছেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও বিবিসি এমন খবর দিয়েছে।

রোববার জিএমটি ১৪:৩০ মিনিটে তিনি বার্লিন থেকে উড়োজাহাজে উঠেছেন। তার বিমান মস্কোর ভেনুকোভা বিমানবন্দরে নামতে চেষ্টা করেছিল। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তাকে শেরিমেটিয়াভো বিমানবন্দরে অবতরণে বাধ্য করেছে।

রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন এয়ারোফ্লোটের মালিকানাধীন পোবেদা এয়ারলাইনের ফ্লাইটে তিনি রাশিয়ায় আসেন।

গত বছর অগাস্টে একটি অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে সার্বিয়া থেকে মস্কো ফেরার সময় এককাপ চা পানের পরই অসুস্থ হয়ে কোমায় চলে গিয়েছিলেন নাভলনি। বিমানবন্দর থেকে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

অবস্থার পরিবর্তন না হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে জার্মানি নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই পরীক্ষায় জানায় যায়, সোভিয়েত আমলে তৈরি বিষাক্ত নার্ভ এজন্টে নোভিচক দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল।

নাভালনি ও তার সমর্থকদের অভিযোগ, রুশ সরকার বিশেষ করে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশেই তাকে রাসায়নিক বিষ প্রয়োগে মারার চেষ্টা করা হয়।

অবশ্য ক্রেমলিন ওই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করেছে। পুতিন বলেছেন, যদি রুশ এজেন্টরা তাকে হত্যা করতেই চাইতে, ‍তবে ‘তারা অবশ্যই তাদের কাজ শেষ করত’।