দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে পিটিয়ে হত্যা
jugantor
দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে পিটিয়ে হত্যা

  মো. শরীফ উদ্দিন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:২৩:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ শহরের কাছে ব্রিক্সটনে মো. আব্দুল্লাহ নামে এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে একদল সন্ত্রাসী।

নিহত আব্দুল্লাহ নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানার মিরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের মিরওয়ারিশপুর গ্রামের চাপ্রাশি বাড়ির মৃত রফিকুল ইসলামের দ্বিতীয় পুত্র।

তিনি ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় আসেন। দেশে তার ১ মেয়ে রয়েছে।
১৯ জানুয়ারি গভীর রাতে কোনো এক সময় আব্দুল্লাহকে পাশে থাকা স্কুলের বাউন্ডারির এক কোনায় ঢেকে নেয় কয়েকজন কৃষ্ণাঙ্গ। তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে এবং ইট দিয়ে মাথা থেঁতলে দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

স্থানীয় বাংলাদেশি কবির আহমেদ জানান, সকাল ৭টার দিকে দোকান বন্ধ দেখে কাস্টমার ডাকাডাকি করে কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে পেছনের দরজা খোলা দেখতে পায়। এ সময় লোকজন স্কুলের এক কোনায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন নিহত আব্দুল্লাহর লাশ। পরে পুলিশে খবর দিলে নিহতের লাশ থানায় নিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনার কারণ উদঘাটনের চেষ্টা করছে এবং আশপাশের সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করছে।
এদিকে দোকানে থাকা সিসিটিভি ফুটেজসহ ব্যবহার করা মোবাইল নিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। কীভাবে দোকান থেকে আব্দুল্লাহকে বের করা হয়। এ তথ্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত আব্দুল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে ব্রিক্সটনে ব্যবসা করে আসছিলেন। সম্প্রতি ইরাকি নাগরিক থেকে ভবনটি ক্রয় করে ভবনটির বর্তমান মালিক সোমালিয়ান এক নাগরিক। বর্তমান ভবনের মালিক আব্দুল্লাহকে এক লাখ রেন্ড ডিপোজিট দিতে সময় বেঁধে দেয়। যদি না দিতে পারে দোকান থেকে বাহির হতে হবে তাকে।

এ সময় আব্দুল্লাহ ওই দোকান বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেয়। আর এ দোকানের পাশেই আরেকটি দোকান খোলার প্রস্তুতি নিতে থাকেন। এ নিয়ে তাদের মাঝে কয়েক দিন ধরে মনোমালিন্য চলছিল। ধারণা করা হচ্ছে, এ ঘটনার জের ধরে খুন হয়ে থাকতে পারেন আব্দুল্লাহ।

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে পিটিয়ে হত্যা

 মো. শরীফ উদ্দিন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ শহরের কাছে ব্রিক্সটনে মো. আব্দুল্লাহ নামে এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে একদল সন্ত্রাসী।

নিহত আব্দুল্লাহ নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানার মিরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের মিরওয়ারিশপুর গ্রামের চাপ্রাশি বাড়ির মৃত রফিকুল ইসলামের দ্বিতীয় পুত্র।

তিনি ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় আসেন। দেশে তার ১ মেয়ে রয়েছে।
১৯ জানুয়ারি গভীর রাতে কোনো এক সময় আব্দুল্লাহকে পাশে থাকা স্কুলের বাউন্ডারির এক কোনায় ঢেকে নেয় কয়েকজন কৃষ্ণাঙ্গ। তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে এবং ইট দিয়ে মাথা থেঁতলে দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি। 

স্থানীয় বাংলাদেশি কবির আহমেদ জানান, সকাল ৭টার দিকে দোকান বন্ধ দেখে কাস্টমার ডাকাডাকি করে কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে পেছনের দরজা খোলা দেখতে পায়। এ সময় লোকজন স্কুলের এক কোনায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন নিহত আব্দুল্লাহর লাশ। পরে পুলিশে খবর দিলে নিহতের লাশ থানায় নিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনার কারণ উদঘাটনের চেষ্টা করছে এবং আশপাশের সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করছে।
এদিকে দোকানে থাকা সিসিটিভি ফুটেজসহ ব্যবহার করা মোবাইল নিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। কীভাবে দোকান থেকে আব্দুল্লাহকে বের করা হয়। এ তথ্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত আব্দুল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে ব্রিক্সটনে ব্যবসা করে আসছিলেন। সম্প্রতি ইরাকি নাগরিক থেকে ভবনটি ক্রয় করে ভবনটির বর্তমান মালিক সোমালিয়ান এক নাগরিক। বর্তমান ভবনের মালিক আব্দুল্লাহকে এক লাখ রেন্ড ডিপোজিট দিতে সময় বেঁধে দেয়। যদি না দিতে পারে দোকান থেকে বাহির হতে হবে তাকে।

এ সময় আব্দুল্লাহ ওই দোকান বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেয়। আর এ দোকানের পাশেই আরেকটি দোকান খোলার প্রস্তুতি নিতে থাকেন। এ নিয়ে তাদের মাঝে কয়েক দিন ধরে মনোমালিন্য চলছিল। ধারণা করা হচ্ছে, এ ঘটনার জের ধরে খুন হয়ে থাকতে পারেন আব্দুল্লাহ।