চার বছরে ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প!
jugantor
চার বছরে ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প!

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ১৭:৫৮:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ডোনাল্ড ট্রাম্প

রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন পেয়ে ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয় লাভ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের অভিষেক হয়। সেই অভিষেক নিয়েই প্রথম মিথ্যা বলেন ট্রাম্প। ক্ষমতা শুরু হয় তার মিথ্যা দিয়ে।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দিনে পাঁচ শতাধিক মিথ্যা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে নিজেরই মিথ্যা বলার রেকর্ড ভঙ্গ করেছেন তিনি। দৈনিকটি ‘ট্রুথ টেস্টার’ নামের একটি কলামে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মিথ্যা বলার এ পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনটিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের টুইটার বার্তাগুলোর কিছু উল্লেখযোগ্য মিথ্যা তুলে ধরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প গত ২ নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগের দিন ৫০৪ বার মিথ্যা বলেছেন, যা একদিনে সর্বোচ্চ। আর ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ডোনাল্ড ট্রাম্প ২৯ হাজার ৫০৮ বার মিথ্যা বলেছেন ও বিভ্রান্তিকর তথ্য তুলে ধরেছেন।

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট যেসব বিষয়ে সবচেয়ে বেশি মিথ্যা বলেছেন, সেগুলোর মধ্যে করোনাভাইরাস অন্যতম। বলা হয়েছে, এই ভাইরাসকে প্রথম দিকে গুরুত্ব না দিয়ে তিনি যে ভুল করেছেন, তা ধামাচাপা দিতেই মূলত তিনি এসব মিথ্যা বুলি উচ্চারণ করেছেন।

নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার চিফ হোয়াইট হাউস করেসপনডেন্ট পিটার বেকার সম্প্রতি এক বিশ্লেষণে উল্লেখ করেন, ট্রাম্প তার প্রেসিডেন্সি শুরু করেছিলেন মিথ্যা দিয়ে। তার সেই মিথ্যা ছিল অভিষেক অনুষ্ঠানে জনতার উপস্থিতি নিয়ে। শুরু থেকেই ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি মিথ্যার কারখানা হিসেবে কাজ করে।

মিথ্যা দিয়ে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি শুরু করার প্রমাণ সিএনএনও হাজির করে। তারা জানায়, অভিষেক অনুষ্ঠানের সময় হওয়া বৃষ্টি নিয়ে শুরুর মিথ্যাটা বলেছিলেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের মিথ্যার একটা হিসাব ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার ‘ফ্যাক্ট চেক’ থেকে পাওয়া যায়। পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের ৯ জুলাই প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প ২০ হাজার মিথ্যার ‘মাইলফলক’ স্পর্শ করেন। আর ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ট্রাম্প ২৯ হাজার ৫০৮টি মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর কথা বলেন।

২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার ফ্যাক্ট চেক হিসাব অনুযায়ী, চার বছরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর কথা বলেছেন।

ফ্যাক্ট চেক হিসাব দেখা যায়, ২০২০ সালের অক্টোবরে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে সর্বোচ্চসংখ্যক প্রায় চার হাজার মিথ্যা বলেন। তিনি পুরো ২০১৭ সালে যত মিথ্যা বলেছেন, তার দ্বিগুণ বলেছেন এই এক মাসে। পরের মাস নভেম্বরেও ট্রাম্পের মিথ্যা বলা যথারীতি অব্যাহত ছিল। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাক্কালে গত ২ নভেম্বর তিনি দৈনিক মিথ্যার সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়েন। ২৪ ঘণ্টায় ট্রাম্প পাঁচ শতাধিক মিথ্যা বলেন। ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের রাত থেকে ট্রাম্প লাগাতার মিথ্যা বলা শুরু করেন।

নির্বাচনে জয়ের মিথ্যায় অনড় থেকেই ২০ জানুয়ারি ক্ষমতা ছাড়েন ট্রাম্প। এমনকি এদিন অ্যান্ড্রুজ সামরিক ঘাঁটিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিদায়ী ভাষণেও ছিল একগাদা মিথ্যা।

চার বছরে ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প!

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৫:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ডোনাল্ড ট্রাম্প
ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি

রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন পেয়ে ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয় লাভ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের অভিষেক হয়। সেই অভিষেক নিয়েই প্রথম মিথ্যা বলেন ট্রাম্প। ক্ষমতা শুরু হয় তার মিথ্যা দিয়ে। 

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দিনে পাঁচ শতাধিক মিথ্যা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে নিজেরই মিথ্যা বলার রেকর্ড ভঙ্গ করেছেন তিনি। দৈনিকটি ‘ট্রুথ টেস্টার’ নামের একটি কলামে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মিথ্যা বলার এ পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। 

প্রতিবেদনটিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের টুইটার বার্তাগুলোর কিছু উল্লেখযোগ্য মিথ্যা তুলে ধরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প গত ২ নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগের দিন ৫০৪ বার মিথ্যা বলেছেন, যা একদিনে সর্বোচ্চ। আর ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ডোনাল্ড ট্রাম্প ২৯ হাজার ৫০৮ বার মিথ্যা বলেছেন ও বিভ্রান্তিকর তথ্য তুলে ধরেছেন। 

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট যেসব বিষয়ে সবচেয়ে বেশি মিথ্যা বলেছেন, সেগুলোর মধ্যে করোনাভাইরাস অন্যতম। বলা হয়েছে, এই ভাইরাসকে প্রথম দিকে গুরুত্ব না দিয়ে তিনি যে ভুল করেছেন, তা ধামাচাপা দিতেই মূলত তিনি এসব মিথ্যা বুলি উচ্চারণ করেছেন।

নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার চিফ হোয়াইট হাউস করেসপনডেন্ট পিটার বেকার সম্প্রতি এক বিশ্লেষণে উল্লেখ করেন, ট্রাম্প তার প্রেসিডেন্সি শুরু করেছিলেন মিথ্যা দিয়ে। তার সেই মিথ্যা ছিল অভিষেক অনুষ্ঠানে জনতার উপস্থিতি নিয়ে। শুরু থেকেই ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি মিথ্যার কারখানা হিসেবে কাজ করে।

মিথ্যা দিয়ে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি শুরু করার প্রমাণ সিএনএনও হাজির করে। তারা জানায়, অভিষেক অনুষ্ঠানের সময় হওয়া বৃষ্টি নিয়ে শুরুর মিথ্যাটা বলেছিলেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের মিথ্যার একটা হিসাব ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার ‘ফ্যাক্ট চেক’ থেকে পাওয়া যায়। পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের ৯ জুলাই প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প ২০ হাজার মিথ্যার ‘মাইলফলক’ স্পর্শ করেন। আর ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ট্রাম্প ২৯ হাজার ৫০৮টি মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর কথা বলেন।

২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার ফ্যাক্ট চেক হিসাব অনুযায়ী, চার বছরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর কথা বলেছেন।

ফ্যাক্ট চেক হিসাব দেখা যায়, ২০২০ সালের অক্টোবরে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে সর্বোচ্চসংখ্যক প্রায় চার হাজার মিথ্যা বলেন। তিনি পুরো ২০১৭ সালে যত মিথ্যা বলেছেন, তার দ্বিগুণ বলেছেন এই এক মাসে। পরের মাস নভেম্বরেও ট্রাম্পের মিথ্যা বলা যথারীতি অব্যাহত ছিল। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাক্কালে গত ২ নভেম্বর তিনি দৈনিক মিথ্যার সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়েন। ২৪ ঘণ্টায় ট্রাম্প পাঁচ শতাধিক মিথ্যা বলেন। ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের রাত থেকে ট্রাম্প লাগাতার মিথ্যা বলা শুরু করেন।

নির্বাচনে জয়ের মিথ্যায় অনড় থেকেই ২০ জানুয়ারি ক্ষমতা ছাড়েন ট্রাম্প। এমনকি এদিন অ্যান্ড্রুজ সামরিক ঘাঁটিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিদায়ী ভাষণেও ছিল একগাদা মিথ্যা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০