ভারতে নতুন দল ঘোষণা করলেন আব্বাস সিদ্দিকী
jugantor
ভারতে নতুন দল ঘোষণা করলেন আব্বাস সিদ্দিকী

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ২২:১১:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যানার্জির তৃণমূলের জন্য আরও একটি আতংকের খবর। মুসলিম ভোটব্যাংকে এবার ভাগ বসাতে পারেন ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী।

বৃহস্পতিবার তার ভাই নৌশাদ সিদ্দিকীকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করে নতুন রাজনৈতিক দলের নাম ঘোষণা করলেন পশ্চিমঙ্গের জনপ্রিয় এ ধর্মীয় নেতা।
তার নতুন দলের নাম- ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট। একই সঙ্গে দলীয় পতাকার আবরণ উন্মোচন করা হয়েছে।

নতুন দল ঘোষণা করে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, মুসলিম-দলিত-আদিবাসীদের স্বার্থে কাজ করবে এই দল। আপাতত দুই চব্বিশ পরগনা, নদিয়া, হুগলি এবং নাদিয়াকে কেন্দ্র করে কাজ শুরু করবে ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট। দলটি রাজনৈতিক সমঝোতা করতে রাজি যে কোনও দলের সঙ্গে, শুধু বিজেপি নয়।

ইতিমধ্যে কংগ্রেস ও আসাউদ্দিন ওয়েসির দল মিম এর সঙ্গে তাদের কথাবার্তা এগিয়েছে বলে জানান আব্বাস সিদ্দিকী। তবে ফুরফুরা দরবার শরীফের পীরজাদা নিজে ভোটে লড়বেন না বলে জানিয়েছেন।
আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, আমি কিং হতে চাই না, কিংমেকার হবো।

দলীয় সূত্র জানায়, পঞ্চাশ থেকে ষাটটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট।

আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, 'স্বাধীনতার পর থেকে ধর্মনিরেপক্ষতার নাম করে বহু রাজনৈতিক দল সামনে এসেছে৷ কিন্তু গুটিকয়েক মানুষ ছাড়া সবাই বঞ্চিত৷ মুসলিম, দলিত, আদিবাসীরা তো বটেই হিন্দু সম্প্রদায়ের বড় অংশের মানুষও পিছিয়ে আছে৷ শিক্ষা, স্বাস্থ্য কোনও দিক দিয়েই পরিষেবা পান না তাঁরা৷ অন্ধকারের মধ্যে রয়েছে৷ জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে বঞ্চিত মানুষের কণ্ঠ হয়ে ওঠাই হবে এই দলের লক্ষ্য৷ শিক্ষা, খাদ্য, বাসস্থানের মতো মৌলিক অধিকারগুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব আমরা৷ '

এ পর্যন্ত মুসলমানদের ভোটব্যাংকের কারণে বিশেষ সুবিধা পাওয়া তৃণমূল কংগ্রেস আসন্ননির্বাচনে তুমুল চাপের মুখে পড়তে পারে। এর কারণে বিজেপি জিতে পারে পশ্চিমবঙ্গে।

এ বিষয়েআব্বাস সিদ্দিকীর মতামত অবশ্য ভিন্ন। তিনি বলেন,‘তৃণমূল (TMC) উন্নয়নের স্বপ্ন দেখালেও মেলেনি কিছুই। সেই জন্যই পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য নতুন দল। রাজ্যে বিজেপিকে এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ই।

অবশ্যতৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্যসৌগত রায়ের মতে রাজ্যের সংখ্যালঘুদের ভোট তৃণমূলেই পাবে। তিনিবলেন, ‘আব্বাস সিদ্দিকি নতুন প্লেয়ার হিসেবে আমাদের মাঠে নামলেন। তিন মাসে কিছু করা যায় না। তিনি যদি তৃণমূলের একটা ভোটও কাটেন তাতে বিজেপির সাহায্য হবে। আমাদের রাজ্যে সংখ্যালঘুরা তৃণমূলের সঙ্গেই ছিলেন, তৃণমূলের সঙ্গেই থাকবেন।’

সূত্র: নিউজ এইটিন, ওয়ান ইন্ডিয়া

ভারতে নতুন দল ঘোষণা করলেন আব্বাস সিদ্দিকী

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ১০:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভারত
ছবি: সংগৃহীত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যানার্জির তৃণমূলের জন্য আরও একটি আতংকের খবর। মুসলিম ভোটব্যাংকে এবার ভাগ বসাতে পারেন ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী।  

বৃহস্পতিবার তার ভাই নৌশাদ সিদ্দিকীকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করে নতুন রাজনৈতিক দলের নাম ঘোষণা করলেন পশ্চিমঙ্গের জনপ্রিয় এ ধর্মীয় নেতা।
তার নতুন দলের নাম-  ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট। একই সঙ্গে দলীয় পতাকার আবরণ উন্মোচন করা হয়েছে। 

নতুন দল ঘোষণা করে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন,  মুসলিম-দলিত-আদিবাসীদের স্বার্থে কাজ করবে এই দল।  আপাতত দুই চব্বিশ পরগনা,  নদিয়া,  হুগলি এবং নাদিয়াকে কেন্দ্র করে কাজ শুরু করবে ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট।  দলটি রাজনৈতিক সমঝোতা করতে রাজি যে কোনও দলের সঙ্গে,  শুধু বিজেপি নয়।  

ইতিমধ্যে  কংগ্রেস ও আসাউদ্দিন ওয়েসির  দল মিম এর সঙ্গে  তাদের কথাবার্তা এগিয়েছে বলে জানান আব্বাস সিদ্দিকী।  তবে ফুরফুরা দরবার শরীফের পীরজাদা নিজে ভোটে লড়বেন না বলে জানিয়েছেন।
আব্বাস সিদ্দিকী বলেন,  আমি কিং হতে চাই না,  কিংমেকার হবো।

দলীয় সূত্র জানায়, পঞ্চাশ থেকে ষাটটি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট।  

আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, 'স্বাধীনতার পর থেকে ধর্মনিরেপক্ষতার নাম করে বহু রাজনৈতিক দল সামনে এসেছে৷ কিন্তু গুটিকয়েক মানুষ ছাড়া সবাই বঞ্চিত৷ মুসলিম, দলিত, আদিবাসীরা তো বটেই হিন্দু সম্প্রদায়ের বড় অংশের মানুষও পিছিয়ে আছে৷ শিক্ষা, স্বাস্থ্য কোনও দিক দিয়েই পরিষেবা পান না তাঁরা৷ অন্ধকারের মধ্যে রয়েছে৷ জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে বঞ্চিত মানুষের কণ্ঠ হয়ে ওঠাই হবে এই দলের লক্ষ্য৷ শিক্ষা, খাদ্য, বাসস্থানের মতো মৌলিক অধিকারগুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব আমরা৷ '

এ পর্যন্ত মুসলমানদের ভোটব্যাংকের কারণে বিশেষ সুবিধা পাওয়া তৃণমূল কংগ্রেস আসন্ন নির্বাচনে তুমুল চাপের মুখে পড়তে পারে। এর কারণে বিজেপি জিতে পারে পশ্চিমবঙ্গে। 

এ বিষয়ে আব্বাস সিদ্দিকীর মতামত অবশ্য ভিন্ন। তিনি বলেন, ‘তৃণমূল (TMC) উন্নয়নের স্বপ্ন দেখালেও মেলেনি কিছুই। সেই জন্যই পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য নতুন দল। রাজ্যে বিজেপিকে এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ই। 

অবশ্য তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য সৌগত রায়ের মতে রাজ্যের সংখ্যালঘুদের ভোট তৃণমূলেই পাবে। তিনি  বলেন, ‘আব্বাস সিদ্দিকি নতুন প্লেয়ার হিসেবে আমাদের মাঠে নামলেন। তিন মাসে কিছু করা যায় না। তিনি যদি তৃণমূলের একটা ভোটও কাটেন তাতে বিজেপির সাহায্য হবে। আমাদের রাজ্যে সংখ্যালঘুরা তৃণমূলের সঙ্গেই ছিলেন, তৃণমূলের সঙ্গেই থাকবেন।’

সূত্র: নিউজ এইটিন, ওয়ান ইন্ডিয়া