খামেনির টুইটারে ট্রাম্পের মতো দেখতে গলফ খেলোয়াড়ের ছবি
jugantor
খামেনির টুইটারে ট্রাম্পের মতো দেখতে গলফ খেলোয়াড়ের ছবি

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৪০:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

খামেনির টুইটারে ট্রাম্পের মতো দেখতে গলফ খেলোয়াড়ের ছবি

ইরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির টুইটার অ্যাকাউন্টে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো দেখতে এক গলফ খেলোয়াড়ের ছবি পোস্ট করা হয়েছে।

যাতে পরিষ্কারভাবে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ড্রোন হামলার লক্ষ্যবস্তু হিসেবে দেখানো হয়েছে।

গত বছরের ৩ জানুয়ারি বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হন। খামেনি এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স এমন খবর দিয়েছে।

পোস্টে আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির গত ডিসেম্বরের একটি বক্তব্য উদ্ধৃত করা হয়েছে। যাতে তিনি বলেন, ‘প্রতিশোধ নিশ্চিত’। সোলাইমানিকে হত্যাকাণ্ডের বছরপূর্তিতে তিনি সেই প্রতিশোধের কথা আবার ব্যক্ত করেছেন।

গত ১৬ ডিসেম্বর খামেনি বলেন, ‘যারা জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছেন এবং যারা তা বাস্তবায়ন করেছেন, তাদের সবার শাস্তি পেতে হবে।’ তবে এ বক্তব্যে তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম উল্লেখ করেননি।

চলতি মাসের শুরুতে খামেনির একটি বক্তব্য মুছে দিয়েছে টুইটার। যাতে তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের উদ্ভাবিত টিকা নির্ভরযোগ্য না। সম্ভাব্য অন্যান্য দেশকে দূষিত করতেই তারা এই টিকা উদ্ভাবন করেছেন।

তবে শুক্রবারে খামেনির ফারসি-ভাষায় লেখা এই পোস্ট নিয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি টুইটার।

২০১৮ সাল থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের উত্তেজনা বাড়ছে। তখন ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে একতরফাভাবে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এর পর দেশটির ওপর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগ করতে একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যান তিনি।

খামেনির টুইটারে ট্রাম্পের মতো দেখতে গলফ খেলোয়াড়ের ছবি

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
খামেনির টুইটারে ট্রাম্পের মতো দেখতে গলফ খেলোয়াড়ের ছবি
ছবি: সংগৃহীত

ইরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির টুইটার অ্যাকাউন্টে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো দেখতে এক গলফ খেলোয়াড়ের ছবি পোস্ট করা হয়েছে।

যাতে পরিষ্কারভাবে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ড্রোন হামলার লক্ষ্যবস্তু হিসেবে দেখানো হয়েছে।

গত বছরের ৩ জানুয়ারি বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হন। খামেনি এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স এমন খবর দিয়েছে।

পোস্টে আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির গত ডিসেম্বরের একটি বক্তব্য উদ্ধৃত করা হয়েছে। যাতে তিনি বলেন, ‘প্রতিশোধ নিশ্চিত’। সোলাইমানিকে হত্যাকাণ্ডের বছরপূর্তিতে তিনি সেই প্রতিশোধের কথা আবার ব্যক্ত করেছেন।

গত ১৬ ডিসেম্বর খামেনি বলেন, ‘যারা জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছেন এবং যারা তা বাস্তবায়ন করেছেন, তাদের সবার শাস্তি পেতে হবে।’ তবে এ বক্তব্যে তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম উল্লেখ করেননি।

চলতি মাসের শুরুতে খামেনির একটি বক্তব্য মুছে দিয়েছে টুইটার। যাতে তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের উদ্ভাবিত টিকা নির্ভরযোগ্য না। সম্ভাব্য অন্যান্য দেশকে দূষিত করতেই তারা এই টিকা উদ্ভাবন করেছেন।

তবে শুক্রবারে খামেনির ফারসি-ভাষায় লেখা এই পোস্ট নিয়ে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি টুইটার।

২০১৮ সাল থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের উত্তেজনা বাড়ছে। তখন ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ইরানের পরমাণু চুক্তি থেকে একতরফাভাবে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এর পর দেশটির ওপর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগ করতে একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যান তিনি।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-ইরান সংকট