লাদাখ নিয়ে চীনের সঙ্গে ভারতের বৈঠক
jugantor
লাদাখ নিয়ে চীনের সঙ্গে ভারতের বৈঠক

  অনলাইন ডেস্ক  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৩০:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

লাদাখে সীমান্ত বিরোধ মেটাতে নতুন বছরে ভারত ও চীন বৈঠকে প্রথম বসছে রোববার। সীমান্তের চুসুল সেক্টরের মলডোতে নবম কোর কমান্ডারপর্যায়ের বৈঠকটি হতে যাচ্ছে।

সেখানে সেনাপর্যায়ের অফিসার ছাড়াও উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে দেশ দুটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তরাও। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

বৈঠকের ঠিক আগে অবশ্য চীনকে কড়া বার্তা দিয়েছে ভারত। চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) সংলগ্ন এলাকা থেকে সেনা না সরানো পর্যন্ত ভারতও তাদের সেনা সরাবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ।

এর আগের বৈঠকে ‘আট নম্বর ফিঙ্গার’ এলাকায় সেনা সরানোর প্রস্তাব দেয় বেইজিং। সেনা প্রত্যাহারের প্রশ্নে রাজি হয় নয়াদিল্লি। কিন্তু শনিবার রাজনাথ জানিয়ে দিয়েছেন, চীন যতদিন না সেনা সরাবে, ভারতও এলএসি থেকে সেনা সরাবে না।

একই সঙ্গে রাজনাথ জানিয়েছেন, লাদাখ সীমান্তে পরিকাঠামো উন্নয়নের যে কাজ শুরু হয়েছে, তা চালু থাকবে। চীনের আপত্তি থাকলেও কোনো চাপের কাছে ভারত মাথা নোয়াবে না।

চীনের বিরুদ্ধে চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ এনেও শেষ পর্যন্ত লাদাখ সীমান্তে অচলাবস্থা সমাধানে আলোচনার ওপরেই জোর দিয়েছেন তিনি। রাজনাথ বলেন, সীমান্তে যখন দুদেশের সেনা মুখোমুখি দাঁড়িয়ে থাকে, তখন আলোচনার কোনো দিনক্ষণ বলা যায় না। আমরা আলোচনার পথে বিশ্বাসী। কিন্তু সমাধানের জন্য কোনো নির্দিষ্ট সময় বা তারিখ বলা সম্ভব নয়।

শনিবার থেকে ভারতের যোধপুরে শুরু হয়েছে ভারত-ফ্রান্স ‘ডেজার্ট নাইট-২১’ মহড়া। মূলত রাফাল যুদ্ধবিমানকে সামনে রেখে ওই মহড়া চালানো শুরু করেছে দুদেশের বিমানবাহিনী।

লাদাখ নিয়ে চীনের সঙ্গে ভারতের বৈঠক

 অনলাইন ডেস্ক 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৩০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লাদাখে সীমান্ত বিরোধ মেটাতে নতুন বছরে ভারত ও চীন বৈঠকে প্রথম বসছে রোববার। সীমান্তের চুসুল সেক্টরের মলডোতে নবম কোর কমান্ডারপর্যায়ের বৈঠকটি হতে যাচ্ছে।

সেখানে সেনাপর্যায়ের অফিসার ছাড়াও উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে দেশ দুটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তরাও। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

বৈঠকের ঠিক আগে অবশ্য চীনকে কড়া বার্তা দিয়েছে ভারত। চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) সংলগ্ন এলাকা থেকে সেনা না সরানো পর্যন্ত ভারতও তাদের সেনা সরাবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ।

এর আগের বৈঠকে ‘আট নম্বর ফিঙ্গার’ এলাকায় সেনা সরানোর প্রস্তাব দেয় বেইজিং। সেনা প্রত্যাহারের প্রশ্নে রাজি হয় নয়াদিল্লি। কিন্তু শনিবার রাজনাথ জানিয়ে দিয়েছেন, চীন যতদিন না সেনা সরাবে, ভারতও এলএসি থেকে সেনা সরাবে না।

একই সঙ্গে রাজনাথ জানিয়েছেন, লাদাখ সীমান্তে পরিকাঠামো উন্নয়নের যে কাজ শুরু হয়েছে, তা চালু থাকবে। চীনের আপত্তি থাকলেও কোনো চাপের কাছে ভারত মাথা নোয়াবে না।

চীনের বিরুদ্ধে চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ এনেও শেষ পর্যন্ত লাদাখ সীমান্তে অচলাবস্থা সমাধানে আলোচনার ওপরেই জোর দিয়েছেন তিনি। রাজনাথ বলেন, সীমান্তে যখন দুদেশের সেনা মুখোমুখি দাঁড়িয়ে থাকে, তখন আলোচনার কোনো দিনক্ষণ বলা যায় না। আমরা আলোচনার পথে বিশ্বাসী। কিন্তু সমাধানের জন্য কোনো নির্দিষ্ট সময় বা তারিখ বলা সম্ভব নয়।

শনিবার থেকে ভারতের যোধপুরে শুরু হয়েছে ভারত-ফ্রান্স ‘ডেজার্ট নাইট-২১’ মহড়া। মূলত রাফাল যুদ্ধবিমানকে সামনে রেখে ওই মহড়া চালানো শুরু করেছে দুদেশের বিমানবাহিনী।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ভারতের রাফাল যুদ্ধবিমান চুক্তি