‘ইরানে চলতি মাসেই করোনার টিকা দেওয়া শুরু’ 
jugantor
‘ইরানে চলতি মাসেই করোনার টিকা দেওয়া শুরু’ 

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৪:০৮:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

চলতি মাসেই ইরানে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি। তিনি বলেছেন, আগামী দু'এক সপ্তাহের মধ্যেই তার দেশে মহামারী প্রতিরোধক টিকা কার্যক্রম শুরু হতে পারে। তিনি জানান, এ বিষয়টি নিয়ে তার সরকার জোরালো প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। খবর আরব নিউজের।

দেশীয় টিকা উদ্ভাবনের আগে বিদেশি টিকাই ইরানিদের দেওয়া হবে বলে জানান রুহানি। তবে কোন দেশের টিকা দেওয়া হবে তা নিশ্চিত করেননি করোনায় মধ্যপ্রাচ্যে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটির প্রেসিডেন্ট।

চলতি মাসের শুরুর দিকে ইরানের সর্বোচ্চ ধমীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন থেকে করোনার টিকা আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিলেন। তার ভাষায়– ওই দুটি দেশের টিকা তার দেশে সংক্রমণ আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। তার সঙ্গে সুর মিলিয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, বিদেশ থেকে নিরাপদ টিকা আমদানি করবে তার সরকার।

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে গঠিত জাতীয় টাস্কফোর্সের এক বৈঠকে শনিবার প্রেসিডেন্ট রুহানি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, চলতি মাসেই ইরানের টিকা কার্যক্রম শুরু করার ব্যাপারে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানোর কথা ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এটি হবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ।

প্রেসিডেন্ট রুহানি আরও জানান, চলতি বছরের বাকি দিনগুলোতে ইরানে করোনাভাইরাস-প্রতিরোধক তিনটি টিকা বাজারে আসবে।

প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, এসব টিকার কোনো কোনোটা সম্পূর্ণভাবে দেশে তৈরি, বাকিগুলো যৌথভাবে তৈরি। এর পাশাপাশি একটি বহুজাতিক কোম্পানি উৎপাদিত এক কোটি ৬০ লাখ কোভ্যাক্স টিকা গ্রহণ করবে ইরান। এ ছাড়া আরও বিভিন্ন জায়গা থেকে টিকা কেনার চেষ্টা করছে ইরান।

তিনি বলেন, দেশে উদ্ভাবিত টিকা হচ্ছে আমাদের জন্য সম্মান আর বিদেশের টিকা হচ্ছে আমাদের প্রয়োজন। দেশের টিকা বাজারে পর্যাপ্ত পরিমাণে না আসা পর্যন্ত বিদেশ থেকে টিকা আমদানি করা হবে।

‘ইরানে চলতি মাসেই করোনার টিকা দেওয়া শুরু’ 

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০২:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চলতি মাসেই ইরানে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি।  তিনি বলেছেন, আগামী দু'এক সপ্তাহের মধ্যেই তার দেশে মহামারী প্রতিরোধক টিকা কার্যক্রম শুরু হতে পারে।  তিনি জানান, এ বিষয়টি নিয়ে তার সরকার জোরালো প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।  খবর আরব নিউজের।

দেশীয় টিকা উদ্ভাবনের আগে বিদেশি টিকাই ইরানিদের দেওয়া হবে বলে জানান রুহানি। তবে কোন দেশের টিকা দেওয়া হবে তা নিশ্চিত করেননি করোনায় মধ্যপ্রাচ্যে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটির প্রেসিডেন্ট।

চলতি মাসের শুরুর দিকে ইরানের সর্বোচ্চ ধমীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেন থেকে করোনার টিকা আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিলেন।  তার ভাষায়– ওই দুটি দেশের টিকা তার দেশে সংক্রমণ আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। তার সঙ্গে সুর মিলিয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, বিদেশ থেকে নিরাপদ টিকা আমদানি করবে তার সরকার।

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে গঠিত জাতীয় টাস্কফোর্সের এক বৈঠকে শনিবার প্রেসিডেন্ট রুহানি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, চলতি মাসেই ইরানের টিকা কার্যক্রম শুরু করার ব্যাপারে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানোর কথা ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এটি হবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ।

প্রেসিডেন্ট রুহানি আরও জানান, চলতি বছরের বাকি দিনগুলোতে ইরানে করোনাভাইরাস-প্রতিরোধক তিনটি টিকা বাজারে আসবে। 

প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, এসব টিকার কোনো কোনোটা সম্পূর্ণভাবে দেশে তৈরি, বাকিগুলো যৌথভাবে তৈরি। এর পাশাপাশি একটি বহুজাতিক কোম্পানি উৎপাদিত এক কোটি ৬০ লাখ কোভ্যাক্স টিকা গ্রহণ করবে ইরান।  এ ছাড়া আরও বিভিন্ন জায়গা থেকে টিকা কেনার চেষ্টা করছে ইরান।

তিনি বলেন, দেশে উদ্ভাবিত টিকা হচ্ছে আমাদের জন্য সম্মান আর বিদেশের টিকা হচ্ছে আমাদের প্রয়োজন। দেশের টিকা বাজারে পর্যাপ্ত পরিমাণে না আসা পর্যন্ত বিদেশ থেকে টিকা আমদানি করা হবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস