ইরান-পানামার তেলট্যাংকার জব্দ করল ইন্দোনেশিয়া
jugantor
ইরান-পানামার তেলট্যাংকার জব্দ করল ইন্দোনেশিয়া

  অনলাইন ডেস্ক  

২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৩৭:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরান-পানামার তেলট্যাংকার জব্দ করল ইন্দোনেশিয়া

ইন্দোনেশিয়ার জলসীমা দিয়ে অবৈধভাবে তেল সরবরাহের অভিযোগে ইরানি পতাকাবাহী এমটি হর্স ও পানামার পতাকাবাহী এমটি ফ্রেয়া নামের দুটি নৌযান জব্দ করেছেন দেশটির উপকূলরক্ষীরা।

রোববার দক্ষিণপূর্ব এশীয় দেশটির বোর্নিও দ্বীপের কালিমান্তানে এ দুই জাহাজ রোববার শনাক্ত হয়েছে। পরে রেডিওকলে সাড়া দিতে ব্যর্থ হওয়ায় জব্দ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে কোস্টগার্ডের মুখপাত্র বিষ্ণু প্রামাণদিতা জানান, কালিমান্তান প্রদেশের উপকূল থেকে ট্যাংকার দুটি আটক করার পর আরও তদন্তের জন্য এগুলোকে পাহারা দিয়ে রিয়াউ দ্বীপ প্রদেশের বাটাম দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টায় ট্যাংকার দুটি শনাক্ত হয়।

জাতীয় পতাকা প্রদর্শন না করে, স্বয়ংক্রিয় শনাক্তকরণ পদ্ধতি বন্ধ রেখে ও রেডিওকলে সাড়া না দিয়ে তারা তাদের পরিচয় গোপন করে রেখেছিল। এমটি ফ্রেয়ার চারপাশে তেল ছড়িয়ে পড়ছিল।

জাহাজ আটকের এ ঘটনা নিয়ে ইরান কোনো মন্তব্য করেনি।

দেশটির বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা তাদের বিক্রয় করা তেলের গন্তব্য গোপন করতে নিজেদের ট্যাংকারগুলোর ট্র্যাকিং সিস্টেম অকার্যকর করে রাখে।

এতে তেহরান কী পরিমাণ অপরিশোধিত তেল রফতানি করছে তার হিসাব বের করা কঠিন হয়ে যায়।

ইরান-পানামার তেলট্যাংকার জব্দ করল ইন্দোনেশিয়া

 অনলাইন ডেস্ক 
২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইরান-পানামার তেলট্যাংকার জব্দ করল ইন্দোনেশিয়া
ছবি: সংগৃহীত

ইন্দোনেশিয়ার জলসীমা দিয়ে অবৈধভাবে তেল সরবরাহের অভিযোগে ইরানি পতাকাবাহী এমটি হর্স ও পানামার পতাকাবাহী এমটি ফ্রেয়া নামের দুটি নৌযান জব্দ করেছেন দেশটির উপকূলরক্ষীরা।

রোববার দক্ষিণপূর্ব এশীয় দেশটির বোর্নিও দ্বীপের কালিমান্তানে এ দুই জাহাজ রোববার শনাক্ত হয়েছে। পরে রেডিওকলে সাড়া দিতে ব্যর্থ হওয়ায় জব্দ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে কোস্টগার্ডের মুখপাত্র বিষ্ণু প্রামাণদিতা জানান, কালিমান্তান প্রদেশের উপকূল থেকে ট্যাংকার দুটি আটক করার পর আরও তদন্তের জন্য এগুলোকে পাহারা দিয়ে রিয়াউ দ্বীপ প্রদেশের বাটাম দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

বিবৃতিতে বলা হয়, স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টায় ট্যাংকার দুটি শনাক্ত হয়। 

জাতীয় পতাকা প্রদর্শন না করে, স্বয়ংক্রিয় শনাক্তকরণ পদ্ধতি বন্ধ রেখে ও রেডিওকলে সাড়া না দিয়ে তারা তাদের পরিচয় গোপন করে রেখেছিল। এমটি ফ্রেয়ার চারপাশে তেল ছড়িয়ে পড়ছিল।

জাহাজ আটকের এ ঘটনা নিয়ে ইরান কোনো মন্তব্য করেনি।

দেশটির বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা তাদের বিক্রয় করা তেলের গন্তব্য গোপন করতে নিজেদের ট্যাংকারগুলোর ট্র্যাকিং সিস্টেম অকার্যকর করে রাখে। 

এতে তেহরান কী পরিমাণ অপরিশোধিত তেল রফতানি করছে তার হিসাব বের করা কঠিন হয়ে যায়।