ট্রাম্পের বিচারের বিরুদ্ধে সিনেটে অধিকাংশ রিপাবলিকানের ভোট
jugantor
ট্রাম্পের বিচারের বিরুদ্ধে সিনেটে অধিকাংশ রিপাবলিকানের ভোট

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩:২০:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ট্রাম্পের বিচারের বিরুদ্ধে সিনেটে অধিকাংশ রিপাবলিকানের ভোট

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার খারিজ করে দেওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছেন সিনেটের সব রিপাবলিকান সদস্য।

দলীয় এই ঐক্যই বলে দিচ্ছে ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গার ঘটনায় উসকানি দেওয়ার অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি হওয়া থেকে রেহাই পেতে পারেন ট্রাম্প।-খবর আল-জাজিরা

সাবেক প্রেসিডেন্টের বিচারের ভিত্তি নিয়ে আপত্তি জানিয়ে মঙ্গলবার প্রস্তাব তুলেছেন রিপাবলিকান সিনেটর র‌্যান্ড পল।

কারণ মার্কিন সংবিধানে একজন সাবেক প্রেসিডেন্টের অভিশংসনের বিচারের কোনো কথা নেই। গত বুধবার হোয়াইট হাউস ছাড়েন রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ডেমোক্র্যাট নেতৃত্বাধীন সিনেটে রিপাবলিকানদের এই প্রস্তাব ৫৫-৪৫ ভোটে নাকচ হয়ে গেছে। তবে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের ভোটে পাঁচ রিপাবলিকান সদস্যও যোগ দিয়েছেন। কিন্তু ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে অন্তত ১৭ রিপাবলিকান সিনেট সদস্যের ভোট লাগবে।

ট্রাম্পের বিচার শুরুতেই বন্ধ করে দিতে ব্যর্থ হলেও এই প্রস্তাব বলে দিচ্ছে– দলের ওপর এখনও তার ব্যাপক নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। অভিশংসনের বিচারের মুখোমুখি হতে যাওয়া প্রথম সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট হলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পরে র‌্যান্ড পল সাংবাদিকদের বলেন, ওয়াশিংটনে এমনটি খুবই কম ঘটেছে যে, যেখানে পরাজয়ই সত্যিকারের বিজয়। ৪৫টি ভোটের অর্থ হচ্ছে– শুরু হওয়ার পর পরই অভিশংসনের বিচারের মৃত্যু।

রিপাবলিকানদের সাংবিধানিক দোহাই ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন ডেমোক্র্যাটদলীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা চাক শুমার। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট অসদাচরণে দোষী সাব্যস্ত হলে এটি তাকে কারাগারের বাইরে রাখতে সাংবিধানিক উপায় বের করে দেবে।

সিনেট ফ্লোরে শুমার বলেন, এপি কোনোভাবেই বুঝে আসে না যে, একজন প্রেসিডেন্ট কিংবা যে কোনো সাবেক কর্মকর্তা আমাদের দেশের বিরুদ্ধে এ রকম ঘৃণ্য অপরাধ করতে পারেন এবং পরে কংগ্রেসের অভিশংসন ক্ষমতার কাছে হেরে যান। এর পর দায়িত্ব পালনে অযোগ্য ঘোষণায় ভোট এড়িয়ে যান।

কাজেই সময়সূচি অনুযায়ী আগামী ৮ জানুয়ারি ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার শুরু হতে যাচ্ছে।

ট্রাম্পের বিচারের বিরুদ্ধে সিনেটে অধিকাংশ রিপাবলিকানের ভোট

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ জানুয়ারি ২০২১, ০১:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ট্রাম্পের বিচারের বিরুদ্ধে সিনেটে অধিকাংশ রিপাবলিকানের ভোট
ছবি: এএফপি

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার খারিজ করে দেওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছেন সিনেটের সব রিপাবলিকান সদস্য।

দলীয় এই ঐক্যই বলে দিচ্ছে ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গার ঘটনায় উসকানি দেওয়ার অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি হওয়া থেকে রেহাই পেতে পারেন ট্রাম্প।-খবর আল-জাজিরা

সাবেক প্রেসিডেন্টের বিচারের ভিত্তি নিয়ে আপত্তি জানিয়ে মঙ্গলবার প্রস্তাব তুলেছেন রিপাবলিকান সিনেটর র‌্যান্ড পল। 

কারণ মার্কিন সংবিধানে একজন সাবেক প্রেসিডেন্টের অভিশংসনের বিচারের কোনো কথা নেই। গত বুধবার হোয়াইট হাউস ছাড়েন রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ডেমোক্র্যাট নেতৃত্বাধীন সিনেটে রিপাবলিকানদের এই প্রস্তাব ৫৫-৪৫ ভোটে নাকচ হয়ে গেছে। তবে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের ভোটে পাঁচ রিপাবলিকান সদস্যও যোগ দিয়েছেন। কিন্তু ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে অন্তত ১৭ রিপাবলিকান সিনেট সদস্যের ভোট লাগবে।

ট্রাম্পের বিচার শুরুতেই বন্ধ করে দিতে ব্যর্থ হলেও এই প্রস্তাব বলে দিচ্ছে– দলের ওপর এখনও তার ব্যাপক নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। অভিশংসনের বিচারের মুখোমুখি হতে যাওয়া প্রথম সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট হলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পরে র‌্যান্ড পল সাংবাদিকদের বলেন, ওয়াশিংটনে এমনটি খুবই কম ঘটেছে যে, যেখানে পরাজয়ই সত্যিকারের বিজয়। ৪৫টি ভোটের অর্থ হচ্ছে– শুরু হওয়ার পর পরই অভিশংসনের বিচারের মৃত্যু।

রিপাবলিকানদের সাংবিধানিক দোহাই ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন ডেমোক্র্যাটদলীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা চাক শুমার। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট অসদাচরণে দোষী সাব্যস্ত হলে এটি তাকে কারাগারের বাইরে রাখতে সাংবিধানিক উপায় বের করে দেবে।

সিনেট ফ্লোরে শুমার বলেন, এপি কোনোভাবেই বুঝে আসে না যে, একজন প্রেসিডেন্ট কিংবা যে কোনো সাবেক কর্মকর্তা আমাদের দেশের বিরুদ্ধে এ রকম ঘৃণ্য অপরাধ করতে পারেন এবং পরে কংগ্রেসের অভিশংসন ক্ষমতার কাছে হেরে যান। এর পর দায়িত্ব পালনে অযোগ্য ঘোষণায় ভোট এড়িয়ে যান।

কাজেই সময়সূচি অনুযায়ী আগামী ৮ জানুয়ারি ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার শুরু হতে যাচ্ছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০