নাভালনির মিত্রকে গ্রেফতারে রাশিয়ার আন্তর্জাতিক পরোয়ানা
jugantor
নাভালনির মিত্রকে গ্রেফতারে রাশিয়ার আন্তর্জাতিক পরোয়ানা

  অনলাইন ডেস্ক  

১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪:২৭:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

লাভালনির মিত্রকে গ্রেফতারে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা

ক্রেমলিনের সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনির অন্যতম মিত্র লিওনিড ভলকভের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে রাশিয়া।

বর্তমানে তিনি রাশিয়ার বাইরে বসবাস করছেন বলে বুধবার সংবাদ সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স জানিয়েছে।

চলতি সপ্তাহের শেষ দিনে ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে বিক্ষোভ দেখাতে রুশ নাগরিকদের তাদের বাড়ির কাছে জড়ো হতে আহ্বান জানিয়েছিলেন তিনি।

হৃদযন্ত্রের আকারের ভালোবাসার প্রতীকের মাঝে মোম এবং মোবাইল ফোনের টর্চ জ্বালিয়ে সামাজিকমাধ্যমে সেই ছবি ছড়িয়ে দিতেও অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সম্প্রতি নাভালনিকে কারাদণ্ড দেওয়ার প্রতিবাদে শত শত রুশ নাগরিককে রাস্তায় নেমে আসতে দেখা গেছে। বিক্ষোভ দমন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যাপক ধরপাকড় চালিয়েছে।

এদিকে রাশিয়ার ইউরোপীয় কূটনীতিক বহিষ্কারের পাল্টা জবাবে রুশ কূটনীতিক বহিষ্কার করেছে জার্মানি, সুইডেন ও পোল্যান্ড।

নাভালনির পক্ষে বিক্ষোভে যোগ দেওয়ার অভিযোগে গত পাঁচ ফেব্রুয়ারি এই তিন দেশের কূটনীতিকদের বহিষ্কার করেছিল রাশিয়া।

সেই পদক্ষেপ থেকে রাশিয়া সরে না আসায় সোমবার দেশগুলো এই পাল্টা পদক্ষেপ নেয়। রাশিয়া কূটনীতিক বহিষ্কার করে ঠিক করেনি বলে ফের এক বিবৃতিতে সমালোচনা করেছে জার্মানি।

সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক টুইটার পোস্টে লিখেছেন, রুশ কূটনীতিক বহিষ্কারের পদক্ষেপ স্পষ্টতই রাশিয়া থেকে সুইডিশ কূটনীতিক বহিষ্কারের জবাবেই নেওয়া হয়েছে। কেবল দায়িত্ব পালনের কারণে সুইডিশ রাষ্ট্রদূতকে বের করে দেওয়ার রাশিয়ার সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না।

নাভালনির মিত্রকে গ্রেফতারে রাশিয়ার আন্তর্জাতিক পরোয়ানা

 অনলাইন ডেস্ক 
১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০২:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
লাভালনির মিত্রকে গ্রেফতারে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা
ছবি: সংগৃহীত

ক্রেমলিনের সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনির অন্যতম মিত্র লিওনিড ভলকভের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে রাশিয়া।

বর্তমানে তিনি রাশিয়ার বাইরে বসবাস করছেন বলে বুধবার সংবাদ সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স জানিয়েছে।

চলতি সপ্তাহের শেষ দিনে ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে বিক্ষোভ দেখাতে রুশ নাগরিকদের তাদের বাড়ির কাছে জড়ো হতে আহ্বান জানিয়েছিলেন তিনি।

হৃদযন্ত্রের আকারের ভালোবাসার প্রতীকের মাঝে মোম এবং মোবাইল ফোনের টর্চ জ্বালিয়ে সামাজিকমাধ্যমে সেই ছবি ছড়িয়ে দিতেও অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সম্প্রতি নাভালনিকে কারাদণ্ড দেওয়ার প্রতিবাদে শত শত রুশ নাগরিককে রাস্তায় নেমে আসতে দেখা গেছে। বিক্ষোভ দমন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যাপক ধরপাকড় চালিয়েছে।

এদিকে রাশিয়ার ইউরোপীয় কূটনীতিক বহিষ্কারের পাল্টা জবাবে রুশ কূটনীতিক বহিষ্কার করেছে জার্মানি, সুইডেন ও পোল্যান্ড।

নাভালনির পক্ষে বিক্ষোভে যোগ দেওয়ার অভিযোগে গত পাঁচ ফেব্রুয়ারি এই তিন দেশের কূটনীতিকদের বহিষ্কার করেছিল রাশিয়া।

সেই পদক্ষেপ থেকে রাশিয়া সরে না আসায় সোমবার দেশগুলো এই পাল্টা পদক্ষেপ নেয়। রাশিয়া কূটনীতিক বহিষ্কার করে ঠিক করেনি বলে ফের এক বিবৃতিতে সমালোচনা করেছে জার্মানি।

সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক টুইটার পোস্টে লিখেছেন, রুশ কূটনীতিক বহিষ্কারের পদক্ষেপ স্পষ্টতই রাশিয়া থেকে সুইডিশ কূটনীতিক বহিষ্কারের জবাবেই নেওয়া হয়েছে। কেবল দায়িত্ব পালনের কারণে সুইডিশ রাষ্ট্রদূতকে বের করে দেওয়ার রাশিয়ার সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : নাভালনি