শপথ নিলেন ইসরাইলে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত
jugantor
শপথ নিলেন ইসরাইলে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬:৫২:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শপথ নিলেন ইসরাইলে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত

শপথ নিয়েছেন প্রথমবারের মতো ইসরাইলে নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ মাহমুদ আল-খাজা।

রোববার আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুম তাকে শপথ পড়ান। খবর জেরুজালেম পোস্ট ও খালিজ টাইমসের।

শপথ অনুষ্ঠানে শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ইসরাইলের মধ্যকার সম্পর্ক আরো গভীর করার জন্য আপনাকে কাজ করতে হবে।

আমিরাত ও ইসরাইলের মধ্যে শান্তি, সহবস্থান এবং ধৈর্য্যের সংস্কৃতি বৃদ্ধি করার জন্য এ কাজ করতে হবে।

ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের চুক্তির পর গত মাসে তেল আবিবে দূতাবাস প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন দেয় আমিরাতের মন্ত্রিসভা।

এছাড়া গত মাসে আবুধাবিতে দূতাবাস খুলে সেখানে ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতও নিয়োগ দিয়েছে ইসরাইল।

১৫ সেপ্টেম্বর গোটা মুসলিম বিশ্বকে পাশ কাটিয়ে ইহুদিবাদীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের আনুষ্ঠানিক চুক্তি করে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় এ দিন হোয়াইট হাউসে তিন দেশের মধ্যে এ সংক্রান্ত ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ট্রাম্পের জামাতা ও সিনিয়র উপদেষ্টা কুশনারের মধ্যস্থতায় এ চুক্তি সম্পন্ন হয়।

এ চুক্তির মাধ্যমে তৃতীয় ও চতুর্থ আরব দেশ হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়।

এর আগে ১৯৭৯ সালে মিসর এবং ১৯৯৪ সালে জর্ডান ইসরাইলের সঙ্গে শান্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিল।

শপথ নিলেন ইসরাইলে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৪:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শপথ নিলেন ইসরাইলে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত
শপথ নিচ্ছেন ইসরাইলে নিযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত। ছবি: খালিজ টাইমস

শপথ নিয়েছেন প্রথমবারের মতো ইসরাইলে নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ মাহমুদ আল-খাজা। 

রোববার আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুম তাকে শপথ পড়ান। খবর জেরুজালেম পোস্ট ও খালিজ টাইমসের। 

শপথ অনুষ্ঠানে শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ইসরাইলের মধ্যকার সম্পর্ক আরো গভীর করার জন্য আপনাকে কাজ করতে হবে। 
 
আমিরাত ও ইসরাইলের মধ্যে শান্তি, সহবস্থান এবং ধৈর্য্যের সংস্কৃতি বৃদ্ধি করার জন্য এ কাজ করতে হবে। 
 
ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের চুক্তির পর গত মাসে তেল আবিবে দূতাবাস প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন দেয় আমিরাতের মন্ত্রিসভা। 

এছাড়া গত মাসে আবুধাবিতে দূতাবাস খুলে সেখানে ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতও নিয়োগ দিয়েছে ইসরাইল। 

১৫ সেপ্টেম্বর গোটা মুসলিম বিশ্বকে পাশ কাটিয়ে ইহুদিবাদীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের আনুষ্ঠানিক চুক্তি করে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় এ দিন হোয়াইট হাউসে তিন দেশের মধ্যে এ সংক্রান্ত ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ট্রাম্পের জামাতা ও সিনিয়র উপদেষ্টা কুশনারের মধ্যস্থতায় এ চুক্তি সম্পন্ন হয়।

এ চুক্তির মাধ্যমে তৃতীয় ও চতুর্থ আরব দেশ হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়। 

এর আগে ১৯৭৯ সালে মিসর এবং ১৯৯৪ সালে জর্ডান ইসরাইলের সঙ্গে শান্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আরব আমিরাত-ইসরাইল সম্পর্ক