মেক্সিকোর সেই মাদকসম্রাটের ‘বিউটিকুইন’ স্ত্রী গ্রেফতার
jugantor
মেক্সিকোর সেই মাদকসম্রাটের ‘বিউটিকুইন’ স্ত্রী গ্রেফতার

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬:০৯:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

মেক্সিকোর কুখ্যাত মাদকসম্রাট জোয়াকুইন ‘এল চাপো’ গুজম্যানের স্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেফতার হয়েছেন। ওয়াশিংটন ডিসির বাইরে ডালাস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে স্থানীয় সময় সোমবার তাকে গ্রেফতার করে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ। দেশটির বিচার বিভাগ এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে। খবর আলজাজিরা ও এনডিটিভির।

গুজম্যানের স্ত্রীর নাম এমা করোনেল আইপুরো। ৩১ বছর বয়সী এই সুন্দরী নারীর বিরুদ্ধে কোকেন, মেথামফেটামিন, হেরোইন, মারিজুয়ানা ও গাঁজা পাচারের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে।

গ্রেফতার এমা দ্বৈত নাগরিকত্বের অধিকারী। তিনি মেক্সিকোর পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রেরও নাগরিক। সাবেক বিউটি কুইন এমা মেক্সিকোর কুখ্যাত একজন মাদক পাচারকারীর মেয়ে।

মঙ্গলবার ওয়াশিংটন ডিসির ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট আদালতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এমাকে হাজির করার কথা রয়েছে।

মেক্সিকোর কুখ্যাত মাদক পাচারকারী গোষ্ঠী সিনালোয়া কার্টেলের নেতা ছিলেন গুজম্যান। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে শত শত টন মাদক পাচার করেন। মাদক কারবার ঘিরে তার নির্দেশে অনেক মানুষকে হত্যা করা হয়।

গুজম্যানকে ২০১৭ সালে মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণ করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণের দুই বছরের মাথায় বিচারে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে সাজা দেওয়া হয়।

৬৩ বছর বয়সী গুজম্যানকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের তথ্যমতে, গুজম্যানের স্ত্রী এমাও মাদক পাচারে অংশ নিয়েছেন। মেক্সিকোর কারাগার থেকে তার স্বামী গুজম্যানের পালানোর দুই দফা ষড়যন্ত্রে সহায়তা করেন তিনি। তার মধ্যে প্রথম দফার ষড়যন্ত্রে ২০১৫ সালে গুজম্যান কারাগার থেকে পালাতে সক্ষম হন।

নিউইয়র্কে গুজম্যানের প্রায় তিন মাস ধরে বিচার চলাকালে তার স্ত্রী এমা প্রায় প্রতিদিনই আদালতে আসতেন। বিচারের আগে গুজম্যান যখন প্রায় দুই বছর ধরে কারাবন্দি ছিলেন, তখন তার সঙ্গে এমাকে যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি।


মেক্সিকোর সেই মাদকসম্রাটের ‘বিউটিকুইন’ স্ত্রী গ্রেফতার

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৪:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মেক্সিকোর কুখ্যাত মাদকসম্রাট জোয়াকুইন ‘এল চাপো’ গুজম্যানের স্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেফতার হয়েছেন।  ওয়াশিংটন ডিসির বাইরে ডালাস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে স্থানীয় সময় সোমবার তাকে গ্রেফতার করে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষ। দেশটির বিচার বিভাগ এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।  খবর আলজাজিরা ও এনডিটিভির।

গুজম্যানের স্ত্রীর নাম এমা করোনেল আইপুরো। ৩১ বছর বয়সী এই সুন্দরী নারীর বিরুদ্ধে কোকেন, মেথামফেটামিন, হেরোইন, মারিজুয়ানা ও গাঁজা পাচারের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে। 

গ্রেফতার এমা দ্বৈত নাগরিকত্বের অধিকারী। তিনি মেক্সিকোর পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রেরও নাগরিক।  সাবেক বিউটি কুইন এমা মেক্সিকোর কুখ্যাত একজন মাদক পাচারকারীর মেয়ে।

মঙ্গলবার ওয়াশিংটন ডিসির ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট আদালতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এমাকে হাজির করার কথা রয়েছে।

মেক্সিকোর কুখ্যাত মাদক পাচারকারী গোষ্ঠী সিনালোয়া কার্টেলের নেতা ছিলেন গুজম্যান। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে শত শত টন মাদক পাচার করেন। মাদক কারবার ঘিরে তার নির্দেশে অনেক মানুষকে হত্যা করা হয়।

গুজম্যানকে ২০১৭ সালে মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণ করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণের দুই বছরের মাথায় বিচারে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে সাজা দেওয়া হয়। 

৬৩ বছর বয়সী গুজম্যানকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের তথ্যমতে, গুজম্যানের স্ত্রী এমাও মাদক পাচারে অংশ নিয়েছেন। মেক্সিকোর কারাগার থেকে তার স্বামী গুজম্যানের পালানোর দুই দফা ষড়যন্ত্রে সহায়তা করেন তিনি। তার মধ্যে প্রথম দফার ষড়যন্ত্রে ২০১৫ সালে গুজম্যান কারাগার থেকে পালাতে সক্ষম হন।

নিউইয়র্কে গুজম্যানের প্রায় তিন মাস ধরে বিচার চলাকালে তার স্ত্রী এমা প্রায় প্রতিদিনই আদালতে আসতেন।  বিচারের আগে গুজম্যান যখন প্রায় দুই বছর ধরে কারাবন্দি ছিলেন, তখন তার সঙ্গে এমাকে যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি। 


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর