কাশ্মীরে 'স্টিকি বম্ব' নিয়ে চিন্তায় ভারত
jugantor
কাশ্মীরে 'স্টিকি বম্ব' নিয়ে চিন্তায় ভারত

  অনলাইন ডেস্ক  

০৪ মার্চ ২০২১, ১৫:২৫:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানে একের পর এক বিস্ফোরণ ঘটানো 'স্টিকি বম্ব' এবার ভারতের কাশ্মীরে পাওয়া গেল। এ নিয়ে গভীর চিন্তায় নিরাপত্তা কর্মকর্তারা।

সম্প্রতি কাশ্মীরে তল্লাশির সময় বেশ কয়েক ডজন 'স্টিকি বম্ব' উদ্ধার করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। আর তাতেই পুলিশ ও আধা সেনাকর্তারা রীতিমতো উদ্বিগ্ন। খবর ডয়েচে ভেলের।

কারণ এই 'স্টিকি বম্ব' দিয়েই আফগানিস্তানে একের পর এক ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সেই বোমা কাশ্মীরে পাওয়ার অর্থ, চরমপন্থি সংগঠনগুলো এবার সেখানেও এ বোমা ব্যবহার করতে চাইছে।

স্টিকি বম্ব হলো—বোমার মধ্যে চুম্বক লাগানো। ফলে তা সহজেই গাড়ির সঙ্গে আটকে দেওয়া যায়। এর পর রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে বিস্ফোরণ ঘটানো যায়। কাবুলসহ আফগানিস্তানের অনেক শহরেই এই ভাবে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রচুর মানুষকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।

কাশ্মীরের উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তা রাজেশ শর্মা বলেন, 'নিঃসন্দেহে এই বোমা নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বড় বিপদ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক থাকার নির্দেশ জারি করা হয়েছে।

তার দাবি, এই বোমাগুলো পাকিস্তান থেকে এসেছে। দ্য রেজিসটেন্স ফ্রন্ট নামে একটি চরমপন্থি সংগঠনের হাতে তা তুলে দেওয়া হয়েছে।

কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর এই সংগঠনটির জন্ম হয়। রাজেশ শর্মার দাবি, এগুলো স্থানীয়ভাবে তৈরি নয়। কোনো অস্ত্র কারখানায় এগুলো তৈরি হয়েছে।

কাশ্মীরে 'স্টিকি বম্ব' নিয়ে চিন্তায় ভারত

 অনলাইন ডেস্ক 
০৪ মার্চ ২০২১, ০৩:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানে একের পর এক বিস্ফোরণ ঘটানো 'স্টিকি বম্ব' এবার ভারতের কাশ্মীরে পাওয়া গেল। এ নিয়ে গভীর চিন্তায় নিরাপত্তা কর্মকর্তারা।

সম্প্রতি কাশ্মীরে তল্লাশির সময় বেশ কয়েক ডজন 'স্টিকি বম্ব' উদ্ধার করেছে নিরাপত্তা বাহিনী। আর তাতেই পুলিশ ও আধা সেনাকর্তারা রীতিমতো উদ্বিগ্ন। খবর ডয়েচে ভেলের।

কারণ এই 'স্টিকি বম্ব' দিয়েই আফগানিস্তানে একের পর এক ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সেই বোমা কাশ্মীরে পাওয়ার অর্থ, চরমপন্থি সংগঠনগুলো এবার সেখানেও এ বোমা ব্যবহার করতে চাইছে।

স্টিকি বম্ব হলো—বোমার মধ্যে চুম্বক লাগানো। ফলে তা সহজেই গাড়ির সঙ্গে আটকে দেওয়া যায়। এর পর রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে বিস্ফোরণ ঘটানো যায়। কাবুলসহ আফগানিস্তানের অনেক শহরেই এই ভাবে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে প্রচুর মানুষকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।

কাশ্মীরের উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তা রাজেশ শর্মা বলেন, 'নিঃসন্দেহে এই বোমা নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বড় বিপদ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক থাকার নির্দেশ জারি করা হয়েছে।

তার দাবি, এই বোমাগুলো পাকিস্তান থেকে এসেছে। দ্য রেজিসটেন্স ফ্রন্ট নামে একটি চরমপন্থি সংগঠনের হাতে তা তুলে দেওয়া হয়েছে।

কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর এই সংগঠনটির জন্ম হয়। রাজেশ শর্মার দাবি, এগুলো স্থানীয়ভাবে তৈরি নয়। কোনো অস্ত্র কারখানায় এগুলো তৈরি হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট