ধর্মনিরপেক্ষতাকে ভারতের সবচেয়ে বড় শত্রু বললেন যোগী
jugantor
ধর্মনিরপেক্ষতাকে ভারতের সবচেয়ে বড় শত্রু বললেন যোগী

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ মার্চ ২০২১, ১০:৩৫:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বরাবরই কট্টর ধর্মান্ধ ও গোড়া হিন্দুত্ববাদী হিসেবে পরিচিত।

এবার তাতে নতুনমাত্রা যোগ করলেন রাষ্ট্রের ধর্মনিরপেক্ষতার সমালোচনা করে। তার কথায়, ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে দেশবাসী গর্ব করেন ঠিকই; কিন্তু ভারতের এই ধর্মনিরপেক্ষ মনোভাবই দেশের প্রাচীন ঐতিহ্য আর হিন্দুধর্মের সমৃদ্ধিকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে বারবার বাধা দিয়েছে।

এতে ভারতের ক্ষতি হয়েছে। বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন ও সমৃদ্ধ ঐতিহ্য থাকা সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়নি দেশ। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

যোগী বলেন, ধর্মনিরপেক্ষতার শিক্ষা দেশের মানুষকে উদারপন্থি করেনি। বরং বহু মানসিক সংকীর্ণতার জন্ম হয়েছে এই মতাদর্শ থেকেই। এই সংকীর্ণতাই রামের অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

রামায়ণের গ্লোবাল এনসাইক্লোপেডিয়ার বা আন্তর্জাতিক তথ্যকোষ উদ্বোধন করতে গিয়ে শনিবার যোগী এসব কথা বলের।

ই-বুকের আদলে ওই তথ্যকোষ তৈরি করেছে অযোধ্যা রিসার্চ ইনস্টিটিউট। উদ্বোধন অনুষ্ঠানেই ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে সরব হন যোগী। বেশ কয়েক বছর আগে কম্বোডিয়ার আঙ্করভাট মন্দিরের একটি অভিজ্ঞতার কথাও যোগী টেনে আনেন এই প্রসঙ্গে।

যোগী বলেন, ওই মন্দিরের এক গাইড তাকে বলেছিলেন—বৌদ্ধধর্মের জন্ম আসলে হিন্দুধর্ম থেকেই। ওই গাইড নিজে বৌদ্ধধর্মাবলম্বী। কিন্তু হিন্দুধর্মের উৎস মানতে তার সমস্যা হয়নি।

যোগীর কথায়, ধর্মনিরপেক্ষতা শব্দটাই ভারতের যত সমস্যার মূল। ভারতের সুপ্রাচীন ঐতিহ্যসমৃদ্ধ ইতিহাসকে বিশ্বের দরবারে মেলে ধরতে দিচ্ছে না এই ধর্মনিরপেক্ষতা।

ধর্মনিরপেক্ষতাকে ভারতের সবচেয়ে বড় শত্রু বললেন যোগী

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ মার্চ ২০২১, ১০:৩৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বরাবরই কট্টর ধর্মান্ধ ও গোড়া হিন্দুত্ববাদী হিসেবে পরিচিত।

এবার তাতে নতুনমাত্রা যোগ করলেন রাষ্ট্রের ধর্মনিরপেক্ষতার সমালোচনা করে। তার কথায়, ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে দেশবাসী গর্ব করেন ঠিকই; কিন্তু ভারতের এই ধর্মনিরপেক্ষ মনোভাবই দেশের প্রাচীন ঐতিহ্য আর হিন্দুধর্মের সমৃদ্ধিকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে বারবার বাধা দিয়েছে।

এতে ভারতের ক্ষতি হয়েছে। বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন ও সমৃদ্ধ ঐতিহ্য থাকা সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়নি দেশ। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

যোগী বলেন, ধর্মনিরপেক্ষতার শিক্ষা দেশের মানুষকে উদারপন্থি করেনি। বরং বহু মানসিক সংকীর্ণতার জন্ম হয়েছে এই মতাদর্শ থেকেই। এই সংকীর্ণতাই রামের অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

রামায়ণের গ্লোবাল এনসাইক্লোপেডিয়ার বা আন্তর্জাতিক তথ্যকোষ উদ্বোধন করতে গিয়ে শনিবার যোগী এসব কথা বলের।

ই-বুকের আদলে ওই তথ্যকোষ তৈরি করেছে অযোধ্যা রিসার্চ ইনস্টিটিউট। উদ্বোধন অনুষ্ঠানেই ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে সরব হন যোগী। বেশ কয়েক বছর আগে কম্বোডিয়ার আঙ্করভাট মন্দিরের একটি অভিজ্ঞতার কথাও যোগী টেনে আনেন এই প্রসঙ্গে।

যোগী বলেন, ওই মন্দিরের এক গাইড তাকে বলেছিলেন—বৌদ্ধধর্মের জন্ম আসলে হিন্দুধর্ম থেকেই। ওই গাইড নিজে বৌদ্ধধর্মাবলম্বী। কিন্তু হিন্দুধর্মের উৎস মানতে তার সমস্যা হয়নি।

যোগীর কথায়, ধর্মনিরপেক্ষতা শব্দটাই ভারতের যত সমস্যার মূল। ভারতের সুপ্রাচীন ঐতিহ্যসমৃদ্ধ ইতিহাসকে বিশ্বের দরবারে মেলে ধরতে দিচ্ছে না এই ধর্মনিরপেক্ষতা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন