পালতোলা নৌকায় কোয়ারেন্টিন!
jugantor
পালতোলা নৌকায় কোয়ারেন্টিন!

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৯ মার্চ ২০২১, ১৬:৪৪:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

পালতোলা নৌকায় কোয়ারেন্টিন থাইল্যান্ডের পর্যটকদের

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে পর্যটনের দ্বার উন্মুক্ত করেছে থাইল্যান্ড। তবে পর্যটকদের জন্য ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকা বাধ্যতামূলক করেছে দেশটির সরকার।

এই দুই সপ্তাহ তাদের আনন্দেই কাটবে। সেই ব্যবস্থাই করা হয়েছে। দর্শনার্থীরা চাইলে বিলাসবহুল ইয়ট বা পালতোলা নৌকায় কাটাতে পারবে। তবে সঙ্গে করোনা নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে। আর টিকা নেয়া থাকলে কোয়ারেন্টিনে থাকার প্রয়োজন নেই।

বিবিসি জানায়, সোমবার থাই সরকার এক ঘোষণা জানায়, দেশটিতে কেউ ভ্রমণ করলে করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ করে যেতে হবে।

অন্যথায় করোনা নেগেটিভ সনদ সঙ্গে নিয়ে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন কাটাতে হবে। আর তাদের আবাস হবে সাগরের পালতোলা নৌকা বা ছোট্ট জাহাজে।

ইতোমধ্যে নতুন উদ্যোগটির ট্রায়ালও শুরু করে দিয়েছে থাইল্যান্ড। কমপক্ষে ১০০ নৌকা এরই মধ্যে নামানো হয়েছে।

এখানে কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রত্যেকের কব্জিতে একটি করে স্মার্ট ডিভাইস পরিয়ে দেওয়া হবে, যেটি তাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করবে।

সেই সঙ্গে তাদের শরীরে তাপমাত্রা ও রক্তচাপ সম্পর্কে তথ্য দেবে। ডিজিটাল এই ডিভাইসটি সমুদ্রের ১০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে তথ্য সরবরাহ করতে সক্ষম বলে জানিয়েছে থাই সরকার।

নতুন এ উদ্যোগ দেশটির পর্যটন খাতে ৫ কোটি ৮০ লাখ ডলার রাজস্ব যোগ করবে বলেও আশা করা হচ্ছে।

পালতোলা নৌকায় কোয়ারেন্টিন!

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৯ মার্চ ২০২১, ০৪:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পালতোলা নৌকায় কোয়ারেন্টিন থাইল্যান্ডের পর্যটকদের
ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে পর্যটনের দ্বার উন্মুক্ত করেছে থাইল্যান্ড। তবে পর্যটকদের জন্য ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকা বাধ্যতামূলক করেছে দেশটির সরকার। 

এই দুই সপ্তাহ তাদের আনন্দেই কাটবে। সেই ব্যবস্থাই করা হয়েছে। দর্শনার্থীরা চাইলে বিলাসবহুল ইয়ট বা পালতোলা নৌকায় কাটাতে পারবে। তবে সঙ্গে করোনা নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে। আর টিকা নেয়া থাকলে কোয়ারেন্টিনে থাকার প্রয়োজন নেই। 

বিবিসি জানায়, সোমবার থাই সরকার এক ঘোষণা জানায়, দেশটিতে কেউ ভ্রমণ করলে করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ করে যেতে হবে। 

অন্যথায় করোনা নেগেটিভ সনদ সঙ্গে নিয়ে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন কাটাতে হবে। আর তাদের আবাস হবে সাগরের পালতোলা নৌকা বা ছোট্ট জাহাজে। 

ইতোমধ্যে নতুন উদ্যোগটির ট্রায়ালও শুরু করে দিয়েছে থাইল্যান্ড। কমপক্ষে ১০০ নৌকা এরই মধ্যে নামানো হয়েছে। 

এখানে কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রত্যেকের কব্জিতে একটি করে স্মার্ট ডিভাইস পরিয়ে দেওয়া হবে, যেটি তাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করবে। 

সেই সঙ্গে তাদের শরীরে তাপমাত্রা ও রক্তচাপ সম্পর্কে তথ্য দেবে। ডিজিটাল এই ডিভাইসটি সমুদ্রের ১০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে তথ্য সরবরাহ করতে সক্ষম বলে জানিয়েছে থাই সরকার।

নতুন এ উদ্যোগ দেশটির পর্যটন খাতে ৫ কোটি ৮০ লাখ ডলার রাজস্ব যোগ করবে বলেও আশা করা হচ্ছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস