মেগানের বিস্ফোরক অভিযোগের পর এবার শার্লি হ্যাবদোয় রানির ব্যঙ্গচিত্র, তোলপাড়
jugantor
মেগানের বিস্ফোরক অভিযোগের পর এবার শার্লি হ্যাবদোয় রানির ব্যঙ্গচিত্র, তোলপাড়

  অনলাইন ডেস্ক  

১৪ মার্চ ২০২১, ১২:০৮:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হ্যাবদোর সর্বশেষ প্রচ্ছদে এবার ছেপেছে ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের ব্যঙ্গচিত্র।

আর এতে বেজায় চটেছেন ব্রিটেনের নাগরিকরা। দেশটির গণমাধ্যমগুলোও চরম বিরক্ত ফরাসি এ ম্যাগাজিনটির ওপর।

ম্যাগাজিনটির এবারের প্রচ্ছদে দেখা গেছে, রানি এলিজাবেথ রাজবধূ মেগান মারকেলের ঘাড়ের ওপর হাঁটু গেড়ে বসে আছেন। মার্কিন পুলিশ যেভাবে চেপে বসেছিল কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের ঘাড়ের ওপর, যা নিয়ে গোটা বিশ্বে 'ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার' এ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে কৃষ্ণাঙ্গ নির্যাতনবিরোধী আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে।

মেগান মারকেলের সন্তানের গায়ের রঙ নিয়ে রাজপরিরারে যে টানাপোড়েন চলছে-তাকে ব্যঙ্গাত্মকভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

ব্রিটিশ পত্রিকাগুলোও একহাত নিয়েছে শার্লি হ্যাবদোকে। দ্যা সান শিরোনাম করেছে— 'ডিজগাস্টিং'।

ব্রিটেনের বহলি প্রচারিত পত্রিকা ডেইলি এক্সপ্রেস ও জনপ্রিয় ট্যাবলয়েড পত্রিকা দ্যা মিররও একই ধরনের শিরোনাম করেছে।

ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হ্যাবদো বরাবরই এ ধরনের বিতর্কিত কার্টুন প্রকাশ করে সমাজে অস্থিরতা সৃষ্টি করছে।

এর আগে মহানবী হজরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র নিয়ে গোটা বিশ্বের মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে। সারাবিশ্বে এ নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

এ ঘটনার জেরে ২০১৫ সালে পত্রিকাটিতে হামলার ঘটনাও ঘটে। এতে কার্টুনিস্টসহ পত্রিকাটির ১২ কর্মী নিহত হন।

মেগানের বিস্ফোরক অভিযোগের পর এবার শার্লি হ্যাবদোয় রানির ব্যঙ্গচিত্র, তোলপাড়

 অনলাইন ডেস্ক 
১৪ মার্চ ২০২১, ১২:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হ্যাবদোর সর্বশেষ প্রচ্ছদে এবার ছেপেছে ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের ব্যঙ্গচিত্র।

আর এতে বেজায় চটেছেন ব্রিটেনের নাগরিকরা। দেশটির গণমাধ্যমগুলোও চরম বিরক্ত ফরাসি এ ম্যাগাজিনটির ওপর।

ম্যাগাজিনটির এবারের প্রচ্ছদে দেখা গেছে, রানি এলিজাবেথ রাজবধূ মেগান মারকেলের ঘাড়ের ওপর হাঁটু গেড়ে বসে আছেন। মার্কিন পুলিশ যেভাবে চেপে বসেছিল কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের ঘাড়ের ওপর, যা নিয়ে গোটা বিশ্বে 'ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার' এ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে কৃষ্ণাঙ্গ নির্যাতনবিরোধী আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে।

মেগান মারকেলের সন্তানের গায়ের রঙ নিয়ে রাজপরিরারে যে টানাপোড়েন চলছে-তাকে ব্যঙ্গাত্মকভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

ব্রিটিশ পত্রিকাগুলোও একহাত নিয়েছে শার্লি হ্যাবদোকে। দ্যা সান শিরোনাম করেছে— 'ডিজগাস্টিং'।

ব্রিটেনের বহলি প্রচারিত পত্রিকা ডেইলি এক্সপ্রেস ও জনপ্রিয় ট্যাবলয়েড পত্রিকা দ্যা মিররও একই ধরনের শিরোনাম করেছে।   

ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি হ্যাবদো বরাবরই এ ধরনের বিতর্কিত কার্টুন প্রকাশ করে সমাজে অস্থিরতা সৃষ্টি করছে।

এর আগে মহানবী হজরত মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র নিয়ে গোটা বিশ্বের মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে। সারাবিশ্বে এ নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

এ ঘটনার জেরে ২০১৫ সালে পত্রিকাটিতে হামলার ঘটনাও ঘটে। এতে কার্টুনিস্টসহ পত্রিকাটির ১২ কর্মী নিহত হন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ফ্রান্সে ইসলাম অবমাননা