যুদ্ধাপরাধ: আনুষ্ঠানিকভাবে আইসিসির চিঠি পেল ইসরাইল
jugantor
যুদ্ধাপরাধ: আনুষ্ঠানিকভাবে আইসিসির চিঠি পেল ইসরাইল

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ মার্চ ২০২১, ১০:৪৫:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনে যুদ্ধাপরাধ তদন্তে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) পাঠানো চিঠি আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেছে ইসরাইল।

দেশটির সরকার গত বুধবার এ চিঠি গ্রহণ করে বলে ইহুদিবাদী দেশটির একটি টিভি চ্যানেলের খবরে বলা হয়েছে।খবর নিউজ আরবের।

দেড় পৃষ্ঠার ওই চিঠিতে আইসিসি তিনটি ঘটনা তদন্তের বিষয় উল্লেখ করেছে। এর মধ্যে আছে, জোর করে ফিলিস্তিনিদের তাদের বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ করে সেখানে অবৈধ ইহুদি বসতি নির্মাণ, ২০১৪ সালে হামাসের সঙ্গে ইসরাইলের যুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং ২০১৮ সাল থেকে ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার আন্দোলন শুরু হওয়ার পর থেকে তাদের ওপর নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করে কয়েকশ’ সাধারণ মানুষকে হত্যা করার ঘটনা তদন্ত করা।

তবে ইসরাইল কিংবা আইসিসি কোনো পক্ষই চিঠি গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। খবরে আরও বলা হয়, চিঠির জবাব দিতে ইসরাইলকে ৩০ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে।

আইসিসি প্রত্যাশা করছে, ইসরাইল তার পূর্বের অবস্থান থেকে ফিরে আসবে এবং এসব যুদ্ধাপরাধ তদন্তে আইসিসিকে সহায়তা করবে।

এর আগে ইহুদিবাদী দেশটি আইসিসির এ বিচারের এখতিয়ার নিয়ে প্রশ্ন তুলে তাদের বিচারকাজে অসহযোগিতার হুশিয়ারি দেয়।

আইসিসির প্রধান আইনজীবী ফাতৌ বেনসৌদার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী জুনে। তার স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন ব্রিটিশ আইনজীবী করিম খান।

ইসরাইল মনে করছে, আইসিসির নতুন আইনজীবী তাদের যুদ্ধাপরাধের দায় থেকে মুক্তি দেবে।

ইসরাইলি গণমাধ্যমের রিপোর্টে আরও বলা হয়, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই অভিযুক্ত সাবেক ইসরাইলি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করবে আইসিসি।

বিষটি নিয়ে বেশ বিচলিত ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গ্যান্টজ এরই মধ্যে তাদের পশ্চিমা মিত্রদের সহযোগিতা চেয়েছেন।

যুদ্ধাপরাধ: আনুষ্ঠানিকভাবে আইসিসির চিঠি পেল ইসরাইল

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ মার্চ ২০২১, ১০:৪৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনে যুদ্ধাপরাধ তদন্তে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) পাঠানো চিঠি আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেছে ইসরাইল।

দেশটির সরকার গত বুধবার এ চিঠি গ্রহণ করে বলে ইহুদিবাদী দেশটির একটি টিভি চ্যানেলের খবরে বলা হয়েছে।খবর নিউজ আরবের।

দেড় পৃষ্ঠার ওই চিঠিতে আইসিসি তিনটি ঘটনা তদন্তের বিষয় উল্লেখ করেছে। এর মধ্যে আছে, জোর করে ফিলিস্তিনিদের তাদের বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ করে সেখানে অবৈধ ইহুদি বসতি নির্মাণ, ২০১৪ সালে হামাসের সঙ্গে ইসরাইলের যুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং ২০১৮ সাল থেকে ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার আন্দোলন শুরু হওয়ার পর থেকে তাদের ওপর নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করে কয়েকশ’ সাধারণ মানুষকে হত্যা করার ঘটনা তদন্ত করা।

তবে ইসরাইল কিংবা আইসিসি কোনো পক্ষই চিঠি গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেনি। খবরে আরও বলা হয়, চিঠির জবাব দিতে ইসরাইলকে ৩০ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে।

আইসিসি প্রত্যাশা করছে, ইসরাইল তার পূর্বের অবস্থান থেকে ফিরে আসবে এবং এসব যুদ্ধাপরাধ তদন্তে আইসিসিকে সহায়তা করবে।

এর আগে ইহুদিবাদী দেশটি আইসিসির এ বিচারের এখতিয়ার নিয়ে প্রশ্ন তুলে তাদের বিচারকাজে অসহযোগিতার হুশিয়ারি দেয়।

আইসিসির প্রধান আইনজীবী ফাতৌ বেনসৌদার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী জুনে। তার স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন ব্রিটিশ আইনজীবী করিম খান।

ইসরাইল মনে করছে, আইসিসির নতুন আইনজীবী তাদের যুদ্ধাপরাধের দায় থেকে মুক্তি দেবে।

ইসরাইলি গণমাধ্যমের রিপোর্টে আরও বলা হয়, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই অভিযুক্ত সাবেক ইসরাইলি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করবে আইসিসি।

বিষটি নিয়ে বেশ বিচলিত ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গ্যান্টজ এরই মধ্যে তাদের পশ্চিমা মিত্রদের সহযোগিতা চেয়েছেন।  
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ

আরও খবর