সৌদির অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব নিয়ে কী বলছে ইরান
jugantor
সৌদির অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব নিয়ে কী বলছে ইরান

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ মার্চ ২০২১, ২২:১৪:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদির অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব নিয়ে কী বলছে ইরান

ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে ব্যাপকভিত্তিক অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব দিয়েছে সৌদি আরব। এমন যেকোনো শান্তি পরিকল্পনাকে সমর্থন ও সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইরান।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, আগ্রাসন বন্ধ, যুদ্ধ বিরতি, দখলদারিত্বের অবসান, অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে নেয়া, রাজনৈতিক সংলাপ শুরু করাসহ ইয়েমেনিদের হাতে তাদের দেশের ভবিষ্যত নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার যেকোনো পরিকল্পনাকে সমর্থন ও সহায়তা দেবে ইরান।

সেইসঙ্গে ইয়েমেনের নিরীহ মানুষের ওপর অপরাধযজ্ঞ চালিয়ে যাওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

ইয়েমেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একটি যৌথ অ্যাকাউন্টে লোহিত সাগরের হুদাইদা বন্দরে তেলবাহী জাহাজ থেকে কর ও শুল্ক জমা রাখার একটি পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছে সৌদি আরব।

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান বলেন, আমরা চাই বন্দুকের আওয়াজ স্তব্ধ হয়ে যাক। হুতিরা সম্মতি দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন হয়ে যাবে।

ইয়েমেনে সংকট অবসানে এই অস্ত্রবিরতির প্রস্তাবকে একটি বড় সুযোগ হিসেবে আখ্যায়িত করেন তিনি।

বিদ্রোহীদের আলমাসিরাহ টেলিভিশন জানিয়েছে, সৌদিকে অবশ্যই আগ্রাসন বন্ধের ঘোষণা দিতে হবে এবং অবরোধ সম্পূর্ণভাবে উঠিয়ে নিতে হবে।

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ২০১৫ সাল থেকে ইয়েমেনে বিমান হামলা শুরু করলে দেশটিতে হাজার হাজার বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন। এর পর থেকে আরব উপদ্বীপ দুর্ভিক্ষের কিনারে গিয়ে ঠেকেছে।

সৌদির অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব নিয়ে কী বলছে ইরান

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ মার্চ ২০২১, ১০:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সৌদির অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব নিয়ে কী বলছে ইরান
ছবি: সংগৃহীত

ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে ব্যাপকভিত্তিক অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব দিয়েছে সৌদি আরব। এমন যেকোনো শান্তি পরিকল্পনাকে সমর্থন ও সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইরান। 

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, আগ্রাসন বন্ধ, যুদ্ধ বিরতি, দখলদারিত্বের অবসান, অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে নেয়া, রাজনৈতিক সংলাপ শুরু করাসহ ইয়েমেনিদের হাতে তাদের দেশের ভবিষ্যত নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার যেকোনো পরিকল্পনাকে সমর্থন ও সহায়তা দেবে ইরান।

সেইসঙ্গে ইয়েমেনের নিরীহ মানুষের ওপর অপরাধযজ্ঞ চালিয়ে যাওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

ইয়েমেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একটি যৌথ অ্যাকাউন্টে লোহিত সাগরের হুদাইদা বন্দরে তেলবাহী জাহাজ থেকে কর ও শুল্ক জমা রাখার একটি পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছে সৌদি আরব।

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান বলেন, আমরা চাই বন্দুকের আওয়াজ স্তব্ধ হয়ে যাক। হুতিরা সম্মতি দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন হয়ে যাবে।

ইয়েমেনে সংকট অবসানে এই অস্ত্রবিরতির প্রস্তাবকে একটি বড় সুযোগ হিসেবে আখ্যায়িত করেন তিনি।

বিদ্রোহীদের আলমাসিরাহ টেলিভিশন জানিয়েছে, সৌদিকে অবশ্যই আগ্রাসন বন্ধের ঘোষণা দিতে হবে এবং অবরোধ সম্পূর্ণভাবে উঠিয়ে নিতে হবে।

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ২০১৫ সাল থেকে ইয়েমেনে বিমান হামলা শুরু করলে দেশটিতে হাজার হাজার বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন। এর পর থেকে আরব উপদ্বীপ দুর্ভিক্ষের কিনারে গিয়ে ঠেকেছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ইয়ামেনে সংঘাত