তোমরা আমাকে গুলি করো না, সম্প্রতি আমি মাকে হারিয়েছি—ফ্লয়েডের মিনতি (ভিডিও)
jugantor
তোমরা আমাকে গুলি করো না, সম্প্রতি আমি মাকে হারিয়েছি—ফ্লয়েডের মিনতি (ভিডিও)

  অনলাইন ডেস্ক  

০১ এপ্রিল ২০২১, ১৪:০৪:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপোলিশে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডকে যখন হত্যা করা হয়, তখন তিনি মিনতি করে বলেছিলেন— আমি কোনো খারাপ মানুষ না। তোমরা আমাকে গুলি করো না, সম্প্রতি আমি আমার মাকে হারিয়েছি।

ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু চেপে হত্যার সময় এক পুলিশ কর্মকর্তার বডি-ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিওতে এমন দৃশ্য দেখা গেছে।

পুলিশ কর্মকর্তা থমাস লেন, জে আলেক্সান্ডার কুয়েং ও টৌ থাওয়ের বডি-ক্যামেরায় ধারণ করা দৃশ্য বুধবার বিচারকদের দেখানো হয়েছে।

আর ফ্লয়েডকে হত্যার ঘটনায় দায়ী সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চৌভিনের বডি-ক্যামেরা মাটিতে পড়ে যাওয়ায় তাতে কোনো ভিডিও হয়নি, কেবল তাদের কথাবার্তার রেকর্ড হয়েছে।

গত বছরের ২৫ মে ৪৬ বছর বয়সী ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ উত্তাল হয়ে ওঠে সারা বিশ্ব।

হাতকড়া পরানো ফ্লয়েডের ঘাড় ৯ মিনিট ধরে মাটিতে চেপে রেখেছিলেন চৌভিন। এমনকি ফ্লয়েড ‘আমি শ্বাস নিতে পারছি না’ বলে আকুতি জানালেও তাতে কেন সায় দেননি তিনি।

ফ্লয়েড অবিরত মিনতি জানিয়ে আসছিল, যাতে তার কোনো ক্ষতি করা না হয়। পুলিশ কর্মকর্তাদের তিনি বলেন, আমি তোমাদের বাধা দিচ্ছি না। তোমরা যা বলবে, তা-ই করব।

এই কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করা হলে পুলিশেল সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। তখন ফুপাতে ফুপাতে ফ্লয়েড বলেন, আমি মানসিকভাবে দুশ্চিন্তার ভেতরে রয়েছি।

এর পর পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে গাড়ি থেকে টেনে বের করে নিয়ে এসে মাটিতে ঠেসে ধরে।

তখন পাশে থাকা এক ব্যক্তি চিৎকার করে পুলিশের আচরণের প্রতিবাদ জানান। তিনি ফ্লয়েডের নাড়ি পরীক্ষা করতে বলেন। বুধবার চার্লস ম্যাকমিলিয়ান নামের ওই ব্যক্তিরও সাক্ষ্য নেওয়া হয় আদালতে।


তোমরা আমাকে গুলি করো না, সম্প্রতি আমি মাকে হারিয়েছি—ফ্লয়েডের মিনতি (ভিডিও)

 অনলাইন ডেস্ক 
০১ এপ্রিল ২০২১, ০২:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপোলিশে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডকে যখন হত্যা করা হয়, তখন তিনি মিনতি করে বলেছিলেন— আমি কোনো খারাপ মানুষ না। তোমরা আমাকে গুলি করো না, সম্প্রতি আমি আমার মাকে হারিয়েছি।

ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু চেপে হত্যার সময় এক পুলিশ কর্মকর্তার বডি-ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিওতে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। 

পুলিশ কর্মকর্তা থমাস লেন, জে আলেক্সান্ডার কুয়েং ও টৌ থাওয়ের বডি-ক্যামেরায় ধারণ করা দৃশ্য বুধবার বিচারকদের দেখানো হয়েছে। 

আর ফ্লয়েডকে হত্যার ঘটনায় দায়ী সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চৌভিনের বডি-ক্যামেরা মাটিতে পড়ে যাওয়ায় তাতে কোনো ভিডিও হয়নি, কেবল তাদের কথাবার্তার রেকর্ড হয়েছে।

গত বছরের ২৫ মে ৪৬ বছর বয়সী ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ উত্তাল হয়ে ওঠে সারা বিশ্ব।

হাতকড়া পরানো ফ্লয়েডের ঘাড় ৯ মিনিট ধরে মাটিতে চেপে রেখেছিলেন চৌভিন। এমনকি ফ্লয়েড ‘আমি শ্বাস নিতে পারছি না’ বলে আকুতি জানালেও তাতে কেন সায় দেননি তিনি।

ফ্লয়েড অবিরত মিনতি জানিয়ে আসছিল, যাতে তার কোনো ক্ষতি করা না হয়। পুলিশ কর্মকর্তাদের তিনি বলেন, আমি তোমাদের বাধা দিচ্ছি না। তোমরা যা বলবে, তা-ই করব।

এই কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করা হলে পুলিশেল সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। তখন ফুপাতে ফুপাতে ফ্লয়েড বলেন, আমি মানসিকভাবে দুশ্চিন্তার ভেতরে রয়েছি।

এর পর পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে গাড়ি থেকে টেনে বের করে নিয়ে এসে মাটিতে ঠেসে ধরে। 

তখন পাশে থাকা এক ব্যক্তি চিৎকার করে পুলিশের আচরণের প্রতিবাদ জানান। তিনি ফ্লয়েডের নাড়ি পরীক্ষা করতে বলেন। বুধবার চার্লস ম্যাকমিলিয়ান নামের ওই ব্যক্তিরও সাক্ষ্য নেওয়া হয় আদালতে।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : কৃষ্ণাঙ্গ হত্যায় অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র