৮ বুলেটে পরিবারের সবাইকে খুন, বাকি দুটি আত্মহত্যায়
jugantor
৮ বুলেটে পরিবারের সবাইকে খুন, বাকি দুটি আত্মহত্যায়

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৮ এপ্রিল ২০২১, ১৩:৩৮:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের অ্যালেন শহরের একটি বাড়িতে নিহত একই পরিবারের ৬ বাংলাদেশির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।

ওই পরিবারের চার সদস্যের শরীরে আটটি বুলেট বিদ্ধ হয়েছিল। আর একটি করে বুলেট বিদ্ধ ছিল দুই ভাইয়ের দেহে।

ময়নাতদন্তকারী কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নর্থ টেক্সাসের সভাপতি হাসমত মোবিন এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, মা-বাবা-বোন ও নানির জন্য দুটি করে মোট আটটি বুলেট ব্যবহার করা হয়। এরপর দুটি বুলেট দিয়ে দুই ভাই আত্মহত্যা করে।

গত রোববার দিনগত রাত ১টার দিকে টেক্সাস সিটির ডালাস সংলগ্ন এলেন সিটির বাসা থেকে তৌহিদুল ইসলাম (৫৬), তার স্ত্রী আইরিন ইসলাম (৫৫), শাশুড়ি আলতাফুন্নেসা (৭৭), মেয়ে ফারভিন তৌহিদ (১৯), দুই ছেলে তানভির তৌহিদ (২১) ও ফারহান তৌহিদের (১৯) লাশ উদ্ধার করা হয়।

এর মধ্যে ফারহান ও ফারবিন জমজ ছিলেন। তাদের নানি আলতাফুন্নেসার গত সপ্তাহে বাংলাদেশে ফেরার কথা ছিল। করোনাভাইরাস জটিলতায় তা স্থগিত হয়ে যায়।

ধারণা করা হচ্ছে, বিষণ্নতায় বিপর্যস্ত ফারহান ও তানভির মা-বাবা-বোন আর নানিকে গুলি করে হত্যার পর আত্মহত্যা করেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ২টায় এলেন মসজিদে জানাজা শেষে ডেন্টন মুসলিম সিমেট্রিতে ছয়জনকেই দাফন করা হবে বলে জানান মোবিন।

৮ বুলেটে পরিবারের সবাইকে খুন, বাকি দুটি আত্মহত্যায়

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৮ এপ্রিল ২০২১, ০১:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের অ্যালেন শহরের একটি বাড়িতে নিহত একই পরিবারের ৬ বাংলাদেশির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। 

ওই পরিবারের চার সদস্যের শরীরে আটটি বুলেট বিদ্ধ হয়েছিল। আর একটি করে বুলেট বিদ্ধ ছিল দুই ভাইয়ের দেহে।

ময়নাতদন্তকারী কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নর্থ টেক্সাসের সভাপতি হাসমত মোবিন এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, মা-বাবা-বোন ও নানির জন্য দুটি করে মোট আটটি বুলেট ব্যবহার করা হয়। এরপর দুটি বুলেট দিয়ে দুই ভাই আত্মহত্যা করে।

গত রোববার দিনগত রাত ১টার দিকে টেক্সাস সিটির ডালাস সংলগ্ন এলেন সিটির বাসা থেকে তৌহিদুল ইসলাম (৫৬), তার স্ত্রী আইরিন ইসলাম (৫৫), শাশুড়ি আলতাফুন্নেসা (৭৭), মেয়ে ফারভিন তৌহিদ (১৯), দুই ছেলে তানভির তৌহিদ (২১) ও ফারহান তৌহিদের (১৯) লাশ উদ্ধার করা হয়।

এর মধ্যে ফারহান ও ফারবিন জমজ ছিলেন। তাদের নানি আলতাফুন্নেসার গত সপ্তাহে বাংলাদেশে ফেরার কথা ছিল। করোনাভাইরাস জটিলতায় তা স্থগিত হয়ে যায়।

ধারণা করা হচ্ছে, বিষণ্নতায় বিপর্যস্ত ফারহান ও তানভির মা-বাবা-বোন আর নানিকে গুলি করে হত্যার পর আত্মহত্যা করেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ২টায় এলেন মসজিদে জানাজা শেষে ডেন্টন মুসলিম সিমেট্রিতে ছয়জনকেই দাফন করা হবে বলে জানান মোবিন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন