বখাটে ধরতে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’
jugantor
বখাটে ধরতে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫৯:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

বখাটেদের হাত থেকে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া তরুণীদের রক্ষা করতে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ক্ষমতায় গেলে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’ গড়ে তোলা হবে। ইভটিজিং ঠেকাতে স্কুল-কলেজের সামনে টহল দেবে এই বিশেষ বাহিনী।

বৃহস্পতিবার হুগলির চাঁপদানিতে এক নির্বাচনী সভায় এ ঘোষণা দিয়েছেন বিজেপি নেতা ও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

চাঁপদানির বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে প্রচারে অংশ নিয়ে এদিন দলীয় ইশতেহারে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতির কথা মনে করিয়ে দেন তিনি।

আদিত্যনাথ বলেন, স্কুলের বাইরে যেসব বখাটে ঘুরে বেড়ায়, তাদের ধরতে টহল দেবে অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড।

২০১৭ সালে উত্তর প্রদেশে বিজেপি ক্ষমতায় এলে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’ গঠন করে তার সরকার। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে মেয়েদের উত্যক্তকারীদের ধরতে এই বাহিনী গঠন করা হয়।
তবে সমালোচকদের দাবি, মূলত মুসলিম যুবকদের হেনস্থা করতেই এই বিশেষ বাহিনী গঠন করেছিলেন আদিত্যনাথ।

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে কাশ্মীর নিয়ে বিজেপি সরকারের প্রতিশ্রুতির কথা তুলে ধরে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিজেপি যা বলে, তাই করে।

হুগলির সভা থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে নিশানা করেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি এদিন উত্তর প্রদেশের সঙ্গে বাংলার তুলনা করেন।

এদিন তিনি স্মরণ করিয়ে দেয় রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে সরকারি পরিবহণে নারীদের কোনো খরচ লাগবে না। পাশাপাশি মেয়েরা কেজি থেকে পিজি পর্যন্ত বিনা মূল্যে পড়াশোনা করতে পারবে। বেকার যুবকদের জন্য চাকরির বন্দোবস্ত করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্রের টাকা তৃণমূলের গুণ্ডাদের হাতে তুলে দিয়েছেন দিদি (মমতা ব্যানার্জি)। দোসরা মে-র পরে বাংলার (পশ্চিমবঙ্গ) অবস্থার পরিবর্তন হবে বলেও দাবি করলেন যোগী আদিত্যনাথ।

এদিন যোগী আদিত্যনাথ কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার প্রসঙ্গ টেনেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর উদ্যোগেই তা সম্ভব হয়েছে। এ বিষয়ে বিজেপিকে কৃতিত্ব দিতে তিনি আরও বলেন, কাশ্মীরে আজ যে কেউ জমি কিনে বসবাস করতে পারেন। এদিনের বক্তব্যে তিনি মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে তুষ্টীকরণ রাজনীতির অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, সিএএ পাশ করাতে যখন পদক্ষেপ করছিল কেন্দ্রীয় সরকার, সেই সময় হিংসাত্মক আন্দোলনকে সমর্থন করেছিল এই রাজ্যের মমতা ব্যানার্জির সরকার। তার অভিযোগ মমতা ব্যানার্জি তুষ্টীকরণের রাজনীতির ফলেই এ অবস্থা। মমতা ব্যানার্জি নিজেকে বামলার মেয়ে বললেও এখানে দুর্গাপুজো এবং সরস্বতী পুজো করতেও বাধা দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বখাটে ধরতে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বখাটেদের হাত থেকে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া তরুণীদের রক্ষা করতে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ক্ষমতায় গেলে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’ গড়ে তোলা হবে।  ইভটিজিং ঠেকাতে স্কুল-কলেজের সামনে টহল দেবে এই বিশেষ বাহিনী। 

বৃহস্পতিবার হুগলির চাঁপদানিতে এক নির্বাচনী সভায় এ ঘোষণা দিয়েছেন বিজেপি নেতা ও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

চাঁপদানির বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে প্রচারে অংশ নিয়ে এদিন দলীয় ইশতেহারে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতির কথা মনে করিয়ে দেন তিনি।

আদিত্যনাথ বলেন, স্কুলের বাইরে যেসব বখাটে ঘুরে বেড়ায়, তাদের ধরতে টহল দেবে অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড।

২০১৭ সালে উত্তর প্রদেশে বিজেপি ক্ষমতায় এলে ‘অ্যান্টি-রোমিও স্কোয়াড’ গঠন করে তার সরকার। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে মেয়েদের উত্যক্তকারীদের ধরতে এই বাহিনী গঠন করা হয়।
তবে সমালোচকদের দাবি, মূলত মুসলিম যুবকদের হেনস্থা করতেই এই বিশেষ বাহিনী গঠন করেছিলেন আদিত্যনাথ।

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে কাশ্মীর নিয়ে বিজেপি সরকারের প্রতিশ্রুতির কথা তুলে ধরে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিজেপি যা বলে, তাই করে।

হুগলির সভা থেকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে নিশানা করেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তিনি এদিন উত্তর প্রদেশের সঙ্গে বাংলার তুলনা করেন।

এদিন তিনি স্মরণ করিয়ে দেয় রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে সরকারি পরিবহণে নারীদের কোনো খরচ লাগবে না। পাশাপাশি মেয়েরা কেজি থেকে পিজি পর্যন্ত বিনা মূল্যে পড়াশোনা করতে পারবে।  বেকার যুবকদের জন্য চাকরির বন্দোবস্ত করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্রের টাকা তৃণমূলের গুণ্ডাদের হাতে তুলে দিয়েছেন দিদি (মমতা ব্যানার্জি)। দোসরা মে-র পরে বাংলার (পশ্চিমবঙ্গ) অবস্থার পরিবর্তন হবে বলেও দাবি করলেন যোগী আদিত্যনাথ।

এদিন যোগী আদিত্যনাথ কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার প্রসঙ্গ টেনেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর উদ্যোগেই তা সম্ভব হয়েছে। এ বিষয়ে বিজেপিকে কৃতিত্ব দিতে তিনি আরও বলেন, কাশ্মীরে আজ যে কেউ জমি কিনে বসবাস করতে পারেন।  এদিনের বক্তব্যে তিনি মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে তুষ্টীকরণ রাজনীতির অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, সিএএ পাশ করাতে যখন পদক্ষেপ করছিল কেন্দ্রীয় সরকার, সেই সময় হিংসাত্মক আন্দোলনকে সমর্থন করেছিল এই রাজ্যের মমতা ব্যানার্জির সরকার। তার অভিযোগ মমতা ব্যানার্জি তুষ্টীকরণের রাজনীতির ফলেই এ অবস্থা। মমতা ব্যানার্জি নিজেকে বামলার মেয়ে বললেও এখানে দুর্গাপুজো এবং সরস্বতী পুজো করতেও বাধা দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন