মাটি খুঁড়ে মিলল ৩ হাজার বছরের পুরনো শহর (ভিডিও)
jugantor
মাটি খুঁড়ে মিলল ৩ হাজার বছরের পুরনো শহর (ভিডিও)

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ এপ্রিল ২০২১, ২১:০১:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

মিসর

মিসরে বালি ও মাটির নিচে চাপা পড়েছিল তিন হাজার বছরের পুরনো স্বর্ণ শহরের। খোঁড়াখুঁড়ির পর সন্ধান মেলে এই শহরটির। খুঁজে পাওয়া এই শহরকে তুতেনখামেনের সমাধির পর সবচেয়ে বড় প্রত্নতাত্ত্বিক খোঁজ বলে জানিয়েছে মিসর।

বৃহস্পতিবার দেশটির বিশেষজ্ঞ জাহি হাওয়াস লুক্সর শহরের কাছে এই হারিয়ে যাওয়া স্বর্ণের শহরের খবর জানান।

এটি এখন পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া মিসরের সবচেয়ে বড় প্রাচীন শহর, যা আতেন নামে পরিচিত ছিল। গত বছরের সেপ্টেম্বরে এই শহর খুঁজতে খোঁড়াখুড়ি শুরু হয়। সপ্তাহখানেকের মধ্যে বালি-মাটির নিচ থেকে আতেন শহরের পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন বেরিয়ে আসতে শুরু করে।

বলা হচ্ছে, ১৮তম ডাইনেস্টির (প্রায় ১৩৮৮-১৩৫১খৃস্টপূর্ব) আমিনহোটেপ তৃতীয়র শাসনকালে এই শহর তৈরি করা হয়েছিল।

রাজা তুতেনখামেনের (১৩৩২-১৩২৩ খৃস্টপূর্ব) মমী আবিষ্কারের পর কয়েক দশক চেষ্টায় এই শহর আবিস্কৃত হলো।

হাওয়াস জানান,‘এই নগরীকে বলা হতো এ্যাসেনসিওন অব এ্যাটন এবং নীল নদের পশ্চিম তীরে লুক্সরে মিশর সম্রাটের প্রধান প্রশাসনিক ও শিল্প অবকাঠামো ছিল। নগরীটি বিভিন্ন সড়ক দিকে বিভক্ত করা ছিল এবং ভবনগুলোর উচ্চতা ছিল তিন মিটার।’

সেখানে খুঁজে পাওয়া গয়না, রঙিন তৈজসপত্র, গুবরে পোকার তাবিজ এবং কাদামাটির ইট নিয়ে আরও বিশদ গবেষণা চালাচ্ছেন গবেষকরা। চেষ্টা করছেন শাসকাল নির্ধারণের।

সূত্র: বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান।

মাটি খুঁড়ে মিলল ৩ হাজার বছরের পুরনো শহর (ভিডিও)

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ এপ্রিল ২০২১, ০৯:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মিসর
ছবি: সংগৃহীত

মিসরে বালি ও মাটির নিচে চাপা পড়েছিল তিন হাজার বছরের পুরনো স্বর্ণ শহরের। খোঁড়াখুঁড়ির পর সন্ধান মেলে এই শহরটির। খুঁজে পাওয়া এই শহরকে তুতেনখামেনের সমাধির পর সবচেয়ে বড় প্রত্নতাত্ত্বিক খোঁজ বলে জানিয়েছে মিসর।

বৃহস্পতিবার দেশটির বিশেষজ্ঞ জাহি হাওয়াস লুক্সর শহরের কাছে এই হারিয়ে যাওয়া স্বর্ণের শহরের খবর জানান। 

এটি এখন পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া মিসরের সবচেয়ে বড় প্রাচীন শহর, যা আতেন নামে পরিচিত ছিল। গত বছরের সেপ্টেম্বরে এই শহর খুঁজতে খোঁড়াখুড়ি শুরু হয়। সপ্তাহখানেকের মধ্যে বালি-মাটির নিচ থেকে আতেন শহরের পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন বেরিয়ে আসতে শুরু করে।

বলা হচ্ছে, ১৮তম ডাইনেস্টির (প্রায় ১৩৮৮-১৩৫১খৃস্টপূর্ব) আমিনহোটেপ তৃতীয়র শাসনকালে এই শহর তৈরি করা হয়েছিল।

রাজা তুতেনখামেনের (১৩৩২-১৩২৩ খৃস্টপূর্ব) মমী আবিষ্কারের পর কয়েক দশক চেষ্টায় এই শহর আবিস্কৃত হলো। 

হাওয়াস জানান,‘এই নগরীকে বলা হতো এ্যাসেনসিওন অব এ্যাটন এবং নীল নদের পশ্চিম তীরে লুক্সরে মিশর সম্রাটের প্রধান প্রশাসনিক ও শিল্প অবকাঠামো ছিল। নগরীটি বিভিন্ন সড়ক দিকে বিভক্ত করা ছিল এবং ভবনগুলোর উচ্চতা ছিল তিন মিটার।’

সেখানে খুঁজে পাওয়া গয়না, রঙিন তৈজসপত্র, গুবরে পোকার তাবিজ এবং কাদামাটির ইট নিয়ে আরও বিশদ গবেষণা চালাচ্ছেন গবেষকরা। চেষ্টা করছেন শাসকাল নির্ধারণের।

সূত্র: বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন