যে কারণে ফিলিস্তিনি নির্বাচন নিয়ে উদ্বিগ্ন ইসরাইল-আমেরিকা
jugantor
যে কারণে ফিলিস্তিনি নির্বাচন নিয়ে উদ্বিগ্ন ইসরাইল-আমেরিকা

  অনলাইন ডেস্ক  

১১ এপ্রিল ২০২১, ১০:০৪:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনে আগামী মে মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতীয় নির্বাচন। এ নির্বাচনে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের সম্ভাব্য বিজয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের সঙ্গে টেলিফোন আলাপে এই উদ্বেগের কথা জানান ইসরাইলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী গাবি আশকেনাজি। খবর রাশিয়া টুডের।

এ সময় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীও একইভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। টেলিফোন আলাপে ইসরাইল এবং আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী ফাতাহ আন্দোলনের মধ্যে মারাত্মক রকমের বিভক্তির কারণে গাজাভিত্তিক হামাস মে মাসের নির্বাচনে বিজয়ী হতে যাচ্ছে।

ইসরাইলি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্বেগ আমলে নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ফিলিস্তিনে যেদলই ক্ষমতায় আসুক না কেন, তাদের অবশ্যই সহিংসতা বন্ধ করতে হবে।

ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিতে হবে এবং আগে যেসব চুক্তি হয়েছে তার প্রতি সম্মান জানাতে হবে। একই সঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এও বলেন, আমেরিকা বিশ্বাস করে ফিলিস্তিনিদের একই রকম স্বাধীনতা, নিরাপত্তা, সমৃদ্ধি এবং গণতান্ত্রিকচর্চার অধিকার থাকা উচিত।

ইসরাইলের সব আগ্রাসী নীতির প্রতি অন্ধ সমর্থন দেওয়ার পরও আমেরিকার পক্ষ থেকে এই বক্তব্য দেওয়া হলো।

যে কারণে ফিলিস্তিনি নির্বাচন নিয়ে উদ্বিগ্ন ইসরাইল-আমেরিকা

 অনলাইন ডেস্ক 
১১ এপ্রিল ২০২১, ১০:০৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফিলিস্তিনে আগামী মে মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতীয় নির্বাচন। এ নির্বাচনে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের সম্ভাব্য বিজয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল।  

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের সঙ্গে টেলিফোন আলাপে এই উদ্বেগের কথা জানান ইসরাইলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী গাবি আশকেনাজি। খবর রাশিয়া টুডের।

এ সময় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীও একইভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।  টেলিফোন আলাপে ইসরাইল এবং আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী ফাতাহ আন্দোলনের মধ্যে মারাত্মক রকমের বিভক্তির কারণে গাজাভিত্তিক হামাস মে মাসের নির্বাচনে বিজয়ী হতে যাচ্ছে।

ইসরাইলি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্বেগ আমলে নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ফিলিস্তিনে যেদলই ক্ষমতায় আসুক না কেন, তাদের অবশ্যই সহিংসতা বন্ধ করতে হবে।

ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিতে হবে এবং আগে যেসব চুক্তি হয়েছে তার প্রতি সম্মান জানাতে হবে। একই সঙ্গে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এও বলেন, আমেরিকা বিশ্বাস করে ফিলিস্তিনিদের একই রকম স্বাধীনতা, নিরাপত্তা, সমৃদ্ধি এবং গণতান্ত্রিকচর্চার অধিকার থাকা উচিত।

ইসরাইলের সব আগ্রাসী নীতির প্রতি অন্ধ সমর্থন দেওয়ার পরও আমেরিকার পক্ষ থেকে এই বক্তব্য দেওয়া হলো।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন