যে কারণে একই নারীকে তিনবার ডিভোর্স দিয়ে ৪ বার বিয়ে করলেন ব্যাংকার!
jugantor
যে কারণে একই নারীকে তিনবার ডিভোর্স দিয়ে ৪ বার বিয়ে করলেন ব্যাংকার!

  অনলাইন ডেস্ক  

১৬ এপ্রিল ২০২১, ১৫:৫৮:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

৩৭ দিনের ব্যবধানে একই নারীকে তিনবার ডিভোর্স দিয়ে ৪ বার বিয়ে করেছেন থাইল্যান্ডের এক ব্যক্তি!

অফিসের ছুটির সুবিধা ভোগ করতে তিনি এমন অদ্ভুত কাণ্ড ঘটিয়েছেন।

টাইমস নাউ নিউজ জানিয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ব্যক্তি তাইপের একটি ব্যাংকে চাকরি করেন। ওই ব্যাংকের নিয়ম হলো- কোনো কর্মী বিয়ে করলে টানা ৮ দিন বেতনসহ ছুটি পাবেন।

তাই অফিসের এই সুবিধা উপভোগ করতে একই নারীকে পর পর ৪ বার বিয়ে এবং ৩ বার ডিভোর্স দেন ওই ব্যক্তি!

গত বছর ৬ এপ্রিল ওই ব্যক্তি প্রথম বিয়ে করেন। ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী এর জন্য তিনি ৮ দিন টানা ছুটি পান। ৮ দিন পরই স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে দেন।

পর দিন ফের সেই নারীকেই বিয়ে করেন তিনি। এই ভাবে একই নারীকে তিনি ৪ বার বিয়ে করেন এবং ৩ বার ডিভোর্স দেন।

কিন্তু কর্মীর ‘চালাকি’ বুঝে যাওয়ার কারণে ব্যাংক তাকে বাড়তি ছুটি দেয়নি। মূলত ওই ব্যক্তির দ্বিতীয় বিয়ে থেকেই তার পরিকল্পনা ধরে ফেলেছিলেন ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। তা সত্ত্বেও তিনি প্রতি বার বিয়ে করেছেন এবং ব্যাংকের কাছে ছুটির আবেদন করেছেন।

চতুর্থ বার বিয়ের পরও ব্যাংক তার আবেদন নামঞ্জুর করলে তিনি আইনের দ্বারস্থ হন। আইন ভাঙার জন্য ওই ব্যাংকের ৫২ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা হয়।

জরিমানার বিরুদ্ধে ব্যাংকও মামলা করে। কিন্তু ওই ব্যক্তি ইচ্ছাকৃত এই কাজ করলেও তিনি আইন ভাঙেননি বলে জানিয়েছে আদালত। সে কারণে বদলানো হয়নি জরিমানার অঙ্কও।

যে কারণে একই নারীকে তিনবার ডিভোর্স দিয়ে ৪ বার বিয়ে করলেন ব্যাংকার!

 অনলাইন ডেস্ক 
১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

৩৭ দিনের ব্যবধানে একই নারীকে তিনবার ডিভোর্স দিয়ে ৪ বার বিয়ে করেছেন থাইল্যান্ডের এক ব্যক্তি! 

অফিসের ছুটির সুবিধা ভোগ করতে তিনি এমন অদ্ভুত কাণ্ড ঘটিয়েছেন। 

টাইমস নাউ নিউজ জানিয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ব্যক্তি তাইপের একটি ব্যাংকে চাকরি করেন। ওই ব্যাংকের নিয়ম হলো- কোনো কর্মী বিয়ে করলে টানা ৮ দিন বেতনসহ ছুটি পাবেন। 

তাই অফিসের এই সুবিধা উপভোগ করতে একই নারীকে পর পর ৪ বার বিয়ে এবং ৩ বার ডিভোর্স দেন ওই ব্যক্তি!

গত বছর ৬ এপ্রিল ওই ব্যক্তি প্রথম বিয়ে করেন। ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী এর জন্য তিনি ৮ দিন টানা ছুটি পান। ৮ দিন পরই স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে দেন। 

পর দিন ফের সেই নারীকেই বিয়ে করেন তিনি। এই ভাবে একই নারীকে তিনি ৪ বার বিয়ে করেন এবং ৩ বার ডিভোর্স দেন। 

কিন্তু কর্মীর ‘চালাকি’ বুঝে যাওয়ার কারণে ব্যাংক তাকে বাড়তি ছুটি দেয়নি। মূলত ওই ব্যক্তির দ্বিতীয় বিয়ে থেকেই তার পরিকল্পনা ধরে ফেলেছিলেন ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। তা সত্ত্বেও তিনি প্রতি বার বিয়ে করেছেন এবং ব্যাংকের কাছে ছুটির আবেদন করেছেন। 

চতুর্থ বার বিয়ের পরও ব্যাংক তার আবেদন নামঞ্জুর করলে তিনি আইনের দ্বারস্থ হন। আইন ভাঙার জন্য ওই ব্যাংকের ৫২ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা হয়। 

জরিমানার বিরুদ্ধে ব্যাংকও মামলা করে। কিন্তু ওই ব্যক্তি ইচ্ছাকৃত এই কাজ করলেও তিনি আইন ভাঙেননি বলে জানিয়েছে আদালত। সে কারণে বদলানো হয়নি জরিমানার অঙ্কও।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন