মিয়ানমারে জাপানি সাংবাদিক আটক
jugantor
মিয়ানমারে জাপানি সাংবাদিক আটক

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৩০:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী ইয়ুকি কিতাজুমি নামে জাপানের এক সাংবাদিককে আটক করেছে।

টোকিওভিত্তিক নিক্কেই বিজনেস ডেইলির সাবেক প্রতিবেদক ৪৫ বছর বয়সি ওই সাংবাদিককে গত রোববার দেশটির সর্ববৃহৎ শহর ইয়াঙ্গুন থেকে আটক করা হয়।

এর আগে ২৬ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভের সংবাদ সংগ্রহ করার সময়ও জাপানি ওই ফ্রিল্যান্সার সাংবাদিককে আটক করা হয়েছিল। জিজ্ঞাসাবাদের পর তখন ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল।

সোমবার স্থানীয় গণামাধ্যমের বরাত দিয়ে নিক্কেই এশিয়া এ তথ্য জানিয়েছে। খবর কিয়োডো বার্তা সংস্থার।

কিতাজুমিকে রোববার রাতে ইয়াঙ্গুনে নিজ বাড়ির সামনে থেকে পুলিশের গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ইয়াঙ্গুনের জাপানি দূতাবাস বিষয়টি নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে নেয় দেশটির সেনাবাহিনী। আটক করা হয় দেশটির গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চি ও প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টসহ ক্ষমতাসীন দলের বেশ কিছু শীর্ষ নেতাকে।

এর পরই জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে গণঅভ্যুত্থানে উত্তাল হয়ে উঠে মিয়ানমার। বিক্ষোভ দমনে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এখন পর্যন্ত শিশুসহ সাত শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

মিয়ানমারে জাপানি সাংবাদিক আটক

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ এপ্রিল ২০২১, ০৯:৩০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী ইয়ুকি কিতাজুমি নামে জাপানের এক সাংবাদিককে আটক করেছে।  

টোকিওভিত্তিক নিক্কেই বিজনেস ডেইলির সাবেক প্রতিবেদক ৪৫ বছর বয়সি ওই সাংবাদিককে গত রোববার দেশটির সর্ববৃহৎ শহর ইয়াঙ্গুন থেকে আটক করা হয়।

এর আগে ২৬ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভের সংবাদ সংগ্রহ করার সময়ও জাপানি ওই ফ্রিল্যান্সার সাংবাদিককে আটক করা হয়েছিল। জিজ্ঞাসাবাদের পর তখন ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল।

সোমবার স্থানীয় গণামাধ্যমের বরাত দিয়ে নিক্কেই এশিয়া এ তথ্য জানিয়েছে। খবর কিয়োডো বার্তা সংস্থার।

কিতাজুমিকে রোববার রাতে ইয়াঙ্গুনে নিজ বাড়ির সামনে থেকে পুলিশের গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ইয়াঙ্গুনের জাপানি দূতাবাস বিষয়টি নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে নেয় দেশটির সেনাবাহিনী। আটক করা হয় দেশটির গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চি ও প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টসহ ক্ষমতাসীন দলের বেশ কিছু শীর্ষ নেতাকে।  

এর পরই জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে গণঅভ্যুত্থানে উত্তাল হয়ে উঠে মিয়ানমার। বিক্ষোভ দমনে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এখন পর্যন্ত শিশুসহ সাত শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : অং সান সু চি আটক

আরও খবর