‘অক্সিজেন না পেলে ডাঙায় তোলা মাছের মতো মরে যাবে’
jugantor
‘অক্সিজেন না পেলে ডাঙায় তোলা মাছের মতো মরে যাবে’

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ এপ্রিল ২০২১, ১১:৩৬:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের রাজধানী দিল্লির অন্তত ছয়টি হাসপাতালে অক্সিজেনের মজুদ শেষ হয়ে গেছে। অক্সিজেনের অপেক্ষায় বেশ কয়েকজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

বাকি হাসপাতালেও মাত্র কয়েক ঘণ্টা চালানোর মতো অক্সিজেন আছে বলে চিকিৎসকদের ভাষ্য।

দিল্লির হাসপাতালগুলোর নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) ৯৯ শতাংশ শয্যায় রোগী ভর্তি রয়েছে।

কোভিড-১৯ মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভারতের স্বাস্থ্যসেবা খাত। বৃহস্পতিবার বিশ্বে দৈনিক করোনাভাইরাসে নতুন সংক্রমণের নতুন রেকর্ড হয়েছে সেদেশে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, অন্যান্য রাজ্যের জন্য নির্ধারিত অক্সিজেন বহনকারী ট্যাংকারগুলো দিল্লির রাজ্য কর্তৃপক্ষ আটকে দিচ্ছে। বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান অক্সিজেন মজুদ করে রেখেছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

কোভিডে আক্রান্ত হয়ে দিল্লির হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ভারতীয় রাজনীতিক সৌরভ ভরদ্বাজ টুইটারে হিন্দিতে লেখা এক বার্তায় অক্সিজেনের জন্য সহায়তা চেয়ে বলেছেন, তিনি যে হাসপাতালে আছেন সেখানে মাত্র তিন ঘণ্টার অক্সিজেন মজুদ আছে।

তিনি বলেন, অনেক মানুষ অক্সিজেনের ওপর নির্ভরশীল এবং অক্সিজেন ছাড়া এই মানুষগুলো ডাঙায় তোলা মাছের মতো মারা যাবে। এখন সবার ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার সময়।

বিবিসির ভারতীয় সংবাদদাতা যোগিতা লিমায়ে বলেন, ভারতে অন্যতম সেরা স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা সম্বলিত শহর হিসেবে দিল্লির সুনাম রয়েছে। কিন্তু করোনাভাইরাস সংক্রমণের সাম্প্রতিক এই ঊর্ধ্বগতি রাজধানীর স্বাস্থ্যসেবা খাতকে নাকাল করে ফেলেছে।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, শেষকৃত্য করার জন্য শ্মশানেও দীর্ঘ প্রতীক্ষায় মৃতের স্বজনেরা।

‘অক্সিজেন না পেলে ডাঙায় তোলা মাছের মতো মরে যাবে’

 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ এপ্রিল ২০২১, ১১:৩৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের রাজধানী দিল্লির অন্তত ছয়টি হাসপাতালে অক্সিজেনের মজুদ শেষ হয়ে গেছে। অক্সিজেনের অপেক্ষায় বেশ কয়েকজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। 

বাকি হাসপাতালেও মাত্র কয়েক ঘণ্টা চালানোর মতো অক্সিজেন আছে বলে চিকিৎসকদের ভাষ্য।

দিল্লির হাসপাতালগুলোর নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) ৯৯ শতাংশ শয্যায় রোগী ভর্তি রয়েছে।

কোভিড-১৯ মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভারতের স্বাস্থ্যসেবা খাত। বৃহস্পতিবার বিশ্বে দৈনিক করোনাভাইরাসে নতুন সংক্রমণের নতুন রেকর্ড হয়েছে সেদেশে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, অন্যান্য রাজ্যের জন্য নির্ধারিত অক্সিজেন বহনকারী ট্যাংকারগুলো দিল্লির রাজ্য কর্তৃপক্ষ আটকে দিচ্ছে। বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান অক্সিজেন মজুদ করে রেখেছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

কোভিডে আক্রান্ত হয়ে দিল্লির হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ভারতীয় রাজনীতিক সৌরভ ভরদ্বাজ টুইটারে হিন্দিতে লেখা এক বার্তায় অক্সিজেনের জন্য সহায়তা চেয়ে বলেছেন, তিনি যে হাসপাতালে আছেন সেখানে মাত্র তিন ঘণ্টার অক্সিজেন মজুদ আছে।  

তিনি বলেন, অনেক মানুষ অক্সিজেনের ওপর নির্ভরশীল এবং অক্সিজেন ছাড়া এই মানুষগুলো ডাঙায় তোলা মাছের মতো মারা যাবে। এখন সবার ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার সময়।

বিবিসির ভারতীয় সংবাদদাতা যোগিতা লিমায়ে বলেন, ভারতে অন্যতম সেরা স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা সম্বলিত শহর হিসেবে দিল্লির সুনাম রয়েছে। কিন্তু করোনাভাইরাস সংক্রমণের সাম্প্রতিক এই ঊর্ধ্বগতি রাজধানীর স্বাস্থ্যসেবা খাতকে নাকাল করে ফেলেছে।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, শেষকৃত্য করার জন্য শ্মশানেও দীর্ঘ প্রতীক্ষায় মৃতের স্বজনেরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস