লিবিয়া উপকূলে ১৩০ অভিবাসী নিয়ে নৌকাডুবি
jugantor
লিবিয়া উপকূলে ১৩০ অভিবাসী নিয়ে নৌকাডুবি

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ এপ্রিল ২০২১, ২০:০৪:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

লিবিয়া উপকূলে ১৩০ অভিবাসী নিয়ে বৃহস্পতিবার একটি রাবারের নৌকা ডুবে গেছে। এ ঘটনায় ১০ অভিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার সংস্থা এসওএস মেডিটেরানি এ তথ্য জানিয়েছে।

ইউরোপীয় মানবিক সংগঠন এসওএস মেডিটারানিয়ান জানায়, লিবিয়া উপকূলে আন্তর্জাতিক জলসীমায় চরম দুর্দশার মুখে পড়া তিনটি নৌকার উপস্থিতির ব্যাপারে তাদেরকে মঙ্গলবার অবহিত করা হয়েছে। স্বেচ্ছাভিত্তিক পরিচালিত মেডিটারানিয়ান উদ্ধার হটলাইন অ্যালার্ম ফোনের মাধ্যমে তাদেরকে বিষয়টি অবহিত করা হয়।

ভাড়া করা জাহাজের পাশাপাশি এনজিও’র ওশান ভিকিং জাহাজ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যে ওই এলাকা অভিমুখে রওনা দিয়েছে। ওই উপকূলে ছয় মিটার উচ্চ সামুদ্রিক ঢেউ রয়েছে।

এসওএস মেডিটেরানি জানায়, প্রথমে বাণিজ্যিক জাহাজ ‘মাই রোজ’ সমুদ্রের পানিতে তিনটি মৃতদেহ খুঁজে পায়। তারপরই ইউরোপীয় ইউনিয়নের সীমান্ত সংস্থা ‘ফ্রন্টেক্স’ উল্টে যাওয়া রাবারের নৌকাটি খুঁজে পায়। ওশান ভাইকিং ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর সমুদ্র থেকে ১০টি মৃতদেহ উদ্ধার করে। কিন্তু সেখানে কাউকে জীবিত খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এসওএস মেডিটারানিয়ানের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বছর বিস্তীর্ণ এ সাগরে ইতোমধ্যে ৩৫০ জনের বেশি মানুষ তাদের প্রাণ হারিয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রাণ হারানোদের নাম এ পরিসংখ্যানে যুক্ত করা হয়নি।

এদিকে এসওএস জানিয়েছে প্রায় ৪০ জন শরণার্থী নিয়ে আরও একটি কাঠের নৌকা ভূমধ্যসাগরে এখনো নিখোঁজ রয়েছে। বুধবার তারা ওই নৌকাটিকে খুঁজেছে।

লিবিয়া উপকূলে ১৩০ অভিবাসী নিয়ে নৌকাডুবি

 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লিবিয়া উপকূলে ১৩০ অভিবাসী নিয়ে বৃহস্পতিবার একটি রাবারের নৌকা ডুবে গেছে। এ ঘটনায় ১০ অভিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার সংস্থা এসওএস মেডিটেরানি এ তথ্য জানিয়েছে।

ইউরোপীয় মানবিক সংগঠন এসওএস মেডিটারানিয়ান জানায়, লিবিয়া উপকূলে আন্তর্জাতিক জলসীমায় চরম দুর্দশার মুখে পড়া তিনটি নৌকার উপস্থিতির ব্যাপারে তাদেরকে মঙ্গলবার অবহিত করা হয়েছে। স্বেচ্ছাভিত্তিক পরিচালিত মেডিটারানিয়ান উদ্ধার হটলাইন অ্যালার্ম ফোনের মাধ্যমে তাদেরকে বিষয়টি অবহিত করা হয়।

ভাড়া করা জাহাজের পাশাপাশি এনজিও’র ওশান ভিকিং জাহাজ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যে ওই এলাকা অভিমুখে রওনা দিয়েছে। ওই উপকূলে ছয় মিটার উচ্চ সামুদ্রিক ঢেউ রয়েছে।

এসওএস মেডিটেরানি জানায়, প্রথমে বাণিজ্যিক জাহাজ ‘মাই রোজ’ সমুদ্রের পানিতে তিনটি মৃতদেহ খুঁজে পায়। তারপরই ইউরোপীয় ইউনিয়নের সীমান্ত সংস্থা ‘ফ্রন্টেক্স’ উল্টে যাওয়া রাবারের নৌকাটি খুঁজে পায়। ওশান ভাইকিং ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর সমুদ্র থেকে ১০টি মৃতদেহ উদ্ধার করে। কিন্তু সেখানে কাউকে জীবিত খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এসওএস মেডিটারানিয়ানের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বছর বিস্তীর্ণ এ সাগরে ইতোমধ্যে ৩৫০ জনের বেশি মানুষ তাদের প্রাণ হারিয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রাণ হারানোদের নাম এ পরিসংখ্যানে যুক্ত করা হয়নি।

এদিকে এসওএস জানিয়েছে প্রায় ৪০ জন শরণার্থী নিয়ে আরও একটি কাঠের নৌকা ভূমধ্যসাগরে এখনো নিখোঁজ রয়েছে। বুধবার তারা ওই নৌকাটিকে খুঁজেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন