মমতাকে জেতাতে মদন মিত্রের যে গান মানুষকে প্রভাবিত করেছে (ভিডিও)
jugantor
মমতাকে জেতাতে মদন মিত্রের যে গান মানুষকে প্রভাবিত করেছে (ভিডিও)

  অনলাইন ডেস্ক  

০৭ মে ২০২১, ১৩:৩৫:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

গানের একটি দৃশ্যে মদন মিত্র। ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের একসময়ের প্রবল প্রতাপশালী নেতা শুভেন্দুদের বাগিয়ে অনেকটা কোনঠাসা করে ফেলার ছক এঁকেছিল বিজেপি। তৃণমূলও পাল্টা কৌশল হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় তারকাদের দলে ভেড়ায়।

এর মধ্যে রান্নার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দেয়ায় বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণের সুযোগ পেয়ে যায় তৃণমূল কংগ্রেস।

এই যখন অবস্থা তখন নির্বাচনী ময়দানে ভোটের গান বানান মদন মিত্র। ওই গানটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। তৃণমূল থেকে চলে যাওয়া নেতারা যে অপাঙক্তেয়, তাদের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের কোনো ক্ষতি হবে না তা দৃঢ়ভাবে তুলে ধরেছেন মদন মিত্র। ওই গানের কথা ও সুর করেন মদন মিত্র নিজেই।

মুলো, কুমড়ো নিয়ে মদনের গান 'ও মদন দা... ধিনা ধিন ধা..' এই লাইনের তালে ধরে শুরু হয়েছে গান। হৃদয় ছুঁয়া কণ্ঠে শুভেন্দু, রাজীবদের টার্গেট করে মদন মিত্র তোপ দাগেন।

গানে তিনি কুমড়োকে প্রাসঙ্গিক করে তুলেন। যা বর্তমানে বাংলার রাজনীতিতে বেশ প্রাসঙ্গিক। 'কোটি টাকার কুমড়ো কিনে জিতবি বলে ভাবলি' মদন মিত্রের এই গানের লিরিক 'কোটি টাকার কুমড়ো কিনে জিতবি বলে ভাবলি, আরে লাভলি'।

এরপর রয়েছে, ' মোদী, অমিত শাহ, কুমড়োর ঘ্যাঁট খা'। গানের একটি অংশের লাইন 'কুমড়ো গুলো ফুলো ফুলো , সঙ্গ কিছু ঢ্যাঁড়স মুলো, বেচবি বলে ভাবলি!'

গানের পঙ্‌ক্তিতে 'দিদি তুমি এই বাংলার সবার মনের লাইফ লাইন' এই কথাগুলো পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করেছে, তার প্রমাণ মিলেছে ভোটের বাক্সে।

গানের কথায় কুমড়ো কেন?

বাংলার রাজনীতিতে এককালে 'তরমুজ' নিয়ে বহু রাজনৈতিত মশকরা শোনা গিয়েছিল। যার ভেতর লাল অথচ বাইরে সবুজ এমন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের বাম জমানার অবসানের সময় তরমুজ বলে অনেকেই কটাক্ষ করেছেন।

এবার কুমড়ো প্রসঙ্গ তুলে কমলা ও সবুজ রঙের প্রসঙ্গ তুলেছেন মদন মিত্র। মূলত, দল বদল নিয়ে শুভেন্দুদের ইঙ্গিত করে তার গান 'কোটি টাকার কুমড়ো কিনে জিতবি বলে ভাবলি।’

বিপুল ভোটে জয়ী মদন মিত্র

কামারহাটি থেকে ৪৪ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিজেপি প্রার্থী রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারিয়েছেন তৃণমূলের কৌতুক অভিনেতা মদন মিত্র।
২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন বাম প্রার্থী মানস মুখোপাধ্যায়।

নির্বাচনের সপ্তাহ আগে অসুস্থ হয়ে পড়েন মদন মিত্র। বাড়িতে শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় তাকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে মাত্র একবেলা উড বার্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। এরপর করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসায় বিকেলেই তড়িঘড়ি বাইপাস সংলগ্ন অ্যাপোলো গ্লেনেগলস হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। শারীরিক অবস্থার বেশ অবনতিও হয়েছিল তার। কিন্তু এক্সিট পোলের দিন সন্ধ্যায় করোনাকে জয় করে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরেন মদন মিত্র।

এরপর ভোটের দিনও অসুস্থ হয়ে পড়েন তৃণমূলের এ প্রার্থী। চোখে-মুখে ধকলের ছাপ স্পষ্ট ছিল স্পষ্ট। কিন্তু বেলা বাড়তেই জয়ের ব্যবধান যখন বাড়তে শুরু করে চেনা মেজাজে ফেরেন কামারহাটির তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র। জয়ের পরে ইতিমধ্যেই নতুন গান বেঁধে ফেলেছেন তিনি।

►নির্বাচনের আগের মদন মিত্রের সেই আলোচিত গান

মমতাকে জেতাতে মদন মিত্রের যে গান মানুষকে প্রভাবিত করেছে (ভিডিও)

 অনলাইন ডেস্ক 
০৭ মে ২০২১, ০১:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গানের একটি দৃশ্যে মদন মিত্র। ছবি: সংগৃহীত
গানের বিশেষ দৃশ্যে মদন মিত্র। ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের একসময়ের প্রবল প্রতাপশালী নেতা শুভেন্দুদের বাগিয়ে অনেকটা কোনঠাসা করে ফেলার ছক এঁকেছিল বিজেপি। তৃণমূলও পাল্টা কৌশল হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় তারকাদের দলে ভেড়ায়।

এর মধ্যে রান্নার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দেয়ায় বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণের সুযোগ পেয়ে যায় তৃণমূল কংগ্রেস।

এই যখন অবস্থা তখন নির্বাচনী ময়দানে ভোটের গান বানান মদন মিত্র। ওই গানটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। তৃণমূল থেকে চলে যাওয়া নেতারা যে অপাঙক্তেয়, তাদের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের কোনো ক্ষতি হবে না তা দৃঢ়ভাবে তুলে ধরেছেন মদন মিত্র। ওই গানের কথা ও সুর করেন মদন মিত্র নিজেই।

মুলো, কুমড়ো নিয়ে মদনের গান 'ও মদন দা... ধিনা ধিন ধা..' এই লাইনের তালে ধরে শুরু হয়েছে গান। হৃদয় ছুঁয়া কণ্ঠে শুভেন্দু, রাজীবদের টার্গেট করে মদন মিত্র তোপ দাগেন।

গানে তিনি কুমড়োকে প্রাসঙ্গিক করে তুলেন। যা বর্তমানে বাংলার রাজনীতিতে বেশ প্রাসঙ্গিক। 'কোটি টাকার কুমড়ো কিনে জিতবি বলে ভাবলি' মদন মিত্রের এই গানের লিরিক 'কোটি টাকার কুমড়ো কিনে জিতবি বলে ভাবলি, আরে লাভলি'।

এরপর রয়েছে, ' মোদী, অমিত শাহ, কুমড়োর ঘ্যাঁট খা'। গানের একটি অংশের লাইন 'কুমড়ো গুলো ফুলো ফুলো , সঙ্গ কিছু ঢ্যাঁড়স মুলো, বেচবি বলে ভাবলি!'

গানের পঙ্‌ক্তিতে 'দিদি তুমি এই বাংলার সবার মনের লাইফ লাইন' এই কথাগুলো পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করেছে, তার প্রমাণ মিলেছে ভোটের বাক্সে।

গানের কথায় কুমড়ো কেন?

বাংলার রাজনীতিতে এককালে 'তরমুজ' নিয়ে বহু রাজনৈতিত মশকরা শোনা গিয়েছিল। যার ভেতর লাল অথচ বাইরে সবুজ এমন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের বাম জমানার অবসানের সময় তরমুজ বলে অনেকেই কটাক্ষ করেছেন।

এবার কুমড়ো প্রসঙ্গ তুলে কমলা ও সবুজ রঙের প্রসঙ্গ তুলেছেন মদন মিত্র। মূলত, দল বদল নিয়ে শুভেন্দুদের ইঙ্গিত করে তার গান 'কোটি টাকার কুমড়ো কিনে জিতবি বলে ভাবলি।’

বিপুল ভোটে জয়ী মদন মিত্র

কামারহাটি থেকে ৪৪ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিজেপি প্রার্থী রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারিয়েছেন তৃণমূলের কৌতুক অভিনেতা মদন মিত্র।
২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন বাম প্রার্থী মানস মুখোপাধ্যায়।

নির্বাচনের সপ্তাহ আগে অসুস্থ হয়ে পড়েন মদন মিত্র।  বাড়িতে শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় তাকে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে মাত্র একবেলা উড বার্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। এরপর করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসায় বিকেলেই তড়িঘড়ি বাইপাস সংলগ্ন অ্যাপোলো গ্লেনেগলস হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। শারীরিক অবস্থার বেশ অবনতিও হয়েছিল তার। কিন্তু এক্সিট পোলের দিন সন্ধ্যায় করোনাকে জয় করে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরেন মদন মিত্র।  

এরপর ভোটের দিনও অসুস্থ হয়ে পড়েন তৃণমূলের এ প্রার্থী।  চোখে-মুখে ধকলের ছাপ স্পষ্ট ছিল স্পষ্ট।  কিন্তু বেলা বাড়তেই জয়ের ব্যবধান যখন বাড়তে শুরু করে চেনা মেজাজে ফেরেন কামারহাটির তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র।  জয়ের পরে ইতিমধ্যেই নতুন গান বেঁধে ফেলেছেন তিনি। 

►নির্বাচনের আগের মদন মিত্রের সেই আলোচিত গান

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১