বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ সহসভাপতি তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন?
jugantor
বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ সহসভাপতি তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন?

  অনলাইন ডেস্ক  

০৭ মে ২০২১, ১৮:১৮:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি মুকুল রায় এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রভাবশালী নেতা ছিলেন। ফাইল ছবি

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছেন বলে গুঞ্জন উঠেছে।

শুক্রবার বিধায়ক হিসাবে শপথগ্রহণের পর তার গতিবিধিতে ফের একবার উঠছে সেই প্রশ্ন। এদিন শপথগ্রহণের পর বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠকে যোগ দেননি তিনি। পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেও কোনও কথা বলেননি তিনি। যার ফলে নতুন জোর পেয়েছে তাঁর তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

খবরে বলা হয়, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হারের পর থেকেই মুখে কুলুপ এঁটেছেন মুকুল। কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্র থেকে নিজে ভোটে জিতলেও ছেলে শুভ্রাংশু হেরেছেন বীজপুর থেকে। তবে ভোট যত গড়িয়েছে ততই সুর নরম হয়েছে মুকুলের। এর মধ্যে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে মুকুলের প্রশংসাও শোনা যায়। ভোটের ফল প্রকাশের পর তার নীরবতায় নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, বিধানসভায় মাত্র ২০ মিনিট ছিলেন মুকুল রায়। শপথ নিয়ে বেরিয়ে যান তিনি। বেরোনোর পথে দেখা হয় তৃণমূল নেতা সুব্রত বক্সির সঙ্গে। সৌজন্য বিনিময় করেন একদা তৃণমূলের দুই মূল কাণ্ডারি।

এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মুকুল রায় বলেন, ‘আজ আমি কিছু বলবো না। যা বলার সবাইকে ডেকে বলবো।’

এদিকে বিজেপির অভ্যন্তরে মুকুল রায়কে বিরোধী দলনেতা করার দাবি উঠেছে। কিন্তু এ ব্যাপারে কোনও প্রশ্নের জবাব দেননি তিনি।

বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে মুকুলকে সর্বভারতীয় সহ সভাপতির পদ দিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পদ্মফুল ফোটেনি বাংলায়।

মুকুলের ঘনিষ্ঠমহল সূত্রের বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিভিন্ন আচরণে তিনি ক্ষুব্ধ। তাছাড়া তাকে ভোটে লড়তে একপ্রকার বাধ্য করা হয়েছে। এর ফলে গোটা রাজ্যে দলের সংগঠন দেখতে পারেননি তিনি। সেই জায়গায় দাপিয়ে বেড়িয়েছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা। সব মিলিয়ে মুকুল রায়ের মুখ খোলার অপেক্ষায় বিজেপির পাশাপাশি তৃণমূলও।

বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ সহসভাপতি তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন?

 অনলাইন ডেস্ক 
০৭ মে ২০২১, ০৬:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি মুকুল রায় এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রভাবশালী নেতা ছিলেন। ফাইল ছবি
রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি মুকুল রায় এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রভাবশালী নেতা ছিলেন। ফাইল ছবি

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছেন বলে গুঞ্জন উঠেছে।  

শুক্রবার বিধায়ক হিসাবে শপথগ্রহণের পর তার গতিবিধিতে ফের একবার উঠছে সেই প্রশ্ন।  এদিন শপথগ্রহণের পর বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠকে যোগ দেননি তিনি। পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেও কোনও কথা বলেননি তিনি।  যার ফলে নতুন জোর পেয়েছে তাঁর তৃণমূলে যোগদানের জল্পনা।  খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

খবরে বলা হয়, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হারের পর থেকেই মুখে কুলুপ এঁটেছেন মুকুল।  কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্র থেকে নিজে ভোটে জিতলেও ছেলে শুভ্রাংশু হেরেছেন বীজপুর থেকে।  তবে ভোট যত গড়িয়েছে ততই সুর নরম হয়েছে মুকুলের।  এর মধ্যে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে মুকুলের প্রশংসাও শোনা যায়।  ভোটের ফল প্রকাশের পর তার নীরবতায় নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, বিধানসভায় মাত্র ২০ মিনিট ছিলেন মুকুল রায়।  শপথ নিয়ে বেরিয়ে যান তিনি।  বেরোনোর পথে দেখা হয় তৃণমূল নেতা সুব্রত বক্সির সঙ্গে। সৌজন্য বিনিময় করেন একদা তৃণমূলের দুই মূল কাণ্ডারি।  

এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মুকুল রায় বলেন, ‘আজ আমি কিছু বলবো না। যা বলার সবাইকে ডেকে বলবো।’

এদিকে বিজেপির অভ্যন্তরে মুকুল রায়কে বিরোধী দলনেতা করার দাবি উঠেছে। কিন্তু এ ব্যাপারে কোনও প্রশ্নের জবাব দেননি তিনি।

বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে মুকুলকে সর্বভারতীয় সহ সভাপতির পদ দিয়েছিল বিজেপি।  কিন্তু শেষ পর্যন্ত পদ্মফুল ফোটেনি বাংলায়।

মুকুলের ঘনিষ্ঠমহল সূত্রের বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিভিন্ন আচরণে তিনি ক্ষুব্ধ। তাছাড়া তাকে ভোটে লড়তে একপ্রকার বাধ্য করা হয়েছে। এর ফলে গোটা রাজ্যে দলের সংগঠন দেখতে পারেননি তিনি। সেই জায়গায় দাপিয়ে বেড়িয়েছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা। সব মিলিয়ে মুকুল রায়ের মুখ খোলার অপেক্ষায় বিজেপির পাশাপাশি তৃণমূলও।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১