নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আবেগঘন বক্তৃতা
jugantor
নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আবেগঘন বক্তৃতা

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ মে ২০২১, ১৮:২০:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আবেগঘন বক্তৃতা

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় চলমান ইসরাইলি গণহত্যা বন্ধে তেল আবিবের ওপর চাপ সৃষ্টি করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি স্বশাসিত সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল-মালিকি।

রোববার রাতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের এক ভার্চুয়াল বৈঠকে দেয়া বক্তৃতায় এ আহ্বান জানান তিনি। এসময় ইসরাইলের প্রতি কয়েকটি দেশে পক্ষপাতেরও অভিযোগ করেন ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। খবর আল জাজিরার।

রিয়াদ আল-মালিকি বলেন, প্রতিবারই ইসরাইল একজন বিদেশি নেতাকে ডেকে তাদের পক্ষে কথা বলায়। এর মধ্যে দিয়ে ফিলিস্তিনি হত্যার বিষয়ে আরও উৎসাহ পায় ইসরাইল।

ইসরাইলকে একটি ‘বর্ণবিদ্বেষী’ সরকার হিসেবে অভিহিত করে এটির আগ্রাসন বন্ধ করতে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানান ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, এখনই স্বাধীনতা রক্ষা করার জন্য ব্যবস্থা নিন, বর্ণবৈষম্য রক্ষা করতে নয়।

রিয়াদ আল-মালিকি এ সময় বলেন, ইসরাইল এক ধরনের কাজ করে তার ভিন্ন ধরনের ফল আশা করছে। ইসরাইল কি মনে করে তার সেনারা মুসলমানদের পবিত্রতম মাস রমজানে এবং পবিত্রতম রাত শবে কদরে তাদের পবিত্রতম আল আকসা মসজিদে আগ্রাসন চালাবে আর ফিলিস্তিনিরা নীরবে তা সহ্য করবে? তেল আবিব কি মনে করে ফিলিস্তিনিরা অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বসবাস করবে আর ইসরাইলি বসতি স্থাপনকারীদের হাতে তাদের পাশের বাড়িটির দখল হয়ে যাওয়া চেয়ে চেয়ে দেখবে? তারা কি এটা প্রত্যাশা করে যে, তারা ফিলিস্তিনিদের ভূখণ্ড জবরদখল করে যা খুশি তাই করবে এবং এরপর ফিলিস্তিনিরা তাদের সঙ্গে সহাবস্থান করবে? পৃথিবীতে এমন কোনও মানুষ নেই যে এই বাস্তবতা সহ্য করবে।

ইসরাইল ও ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রকাশ্য বিবৃতি চাইছে বেশ কয়েকটি দেশ। কিন্তু এতে বারবার বাধা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ফলে বিবৃতি ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চাপ বাড়ছে।

এ প্রসঙ্গে চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এ সংকট সমাধানে একটি বিবৃতি দিতে অন্য দেশগুলোকে রাজি করাতে আবারও চেষ্টা চালাবে চীন।

নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আবেগঘন বক্তৃতা

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ মে ২০২১, ০৬:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আবেগঘন বক্তৃতা
ফিলিস্তিনি স্বশাসিত সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল-মালিকি। ছবি: আল জাজিরা

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় চলমান ইসরাইলি গণহত্যা বন্ধে তেল আবিবের ওপর চাপ সৃষ্টি করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি স্বশাসিত সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল-মালিকি।

রোববার রাতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের এক ভার্চুয়াল বৈঠকে দেয়া বক্তৃতায় এ আহ্বান জানান তিনি।  এসময় ইসরাইলের প্রতি কয়েকটি দেশে পক্ষপাতেরও অভিযোগ করেন ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।  খবর আল জাজিরার।

রিয়াদ আল-মালিকি বলেন, প্রতিবারই ইসরাইল একজন বিদেশি নেতাকে ডেকে তাদের পক্ষে কথা বলায়। এর মধ্যে দিয়ে ফিলিস্তিনি হত্যার বিষয়ে আরও উৎসাহ পায় ইসরাইল।
 

ইসরাইলকে একটি ‘বর্ণবিদ্বেষী’ সরকার হিসেবে অভিহিত করে এটির আগ্রাসন বন্ধ করতে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানান ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।  তিনি বলেন, এখনই স্বাধীনতা রক্ষা করার জন্য ব্যবস্থা নিন, বর্ণবৈষম্য রক্ষা করতে নয়।

রিয়াদ আল-মালিকি এ সময় বলেন, ইসরাইল এক ধরনের কাজ করে তার ভিন্ন ধরনের ফল আশা করছে। ইসরাইল কি মনে করে তার সেনারা মুসলমানদের পবিত্রতম মাস রমজানে এবং পবিত্রতম রাত শবে কদরে তাদের পবিত্রতম আল আকসা মসজিদে আগ্রাসন চালাবে আর ফিলিস্তিনিরা নীরবে তা সহ্য করবে?  তেল আবিব কি মনে করে ফিলিস্তিনিরা অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বসবাস করবে আর ইসরাইলি বসতি স্থাপনকারীদের হাতে তাদের পাশের বাড়িটির দখল হয়ে যাওয়া চেয়ে চেয়ে দেখবে? তারা কি এটা প্রত্যাশা করে যে, তারা ফিলিস্তিনিদের ভূখণ্ড জবরদখল করে যা খুশি তাই করবে এবং এরপর ফিলিস্তিনিরা তাদের সঙ্গে সহাবস্থান করবে? পৃথিবীতে এমন কোনও মানুষ নেই যে এই বাস্তবতা সহ্য করবে।

ইসরাইল ও ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রকাশ্য বিবৃতি চাইছে বেশ কয়েকটি দেশ। কিন্তু এতে বারবার বাধা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ফলে বিবৃতি ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চাপ বাড়ছে। 

এ প্রসঙ্গে চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এ সংকট সমাধানে একটি বিবৃতি দিতে অন্য দেশগুলোকে রাজি করাতে আবারও চেষ্টা চালাবে চীন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ