ভারতের ‘প্রধানমন্ত্রী পদে’ মমতাকে নিয়ে প্রচার শুরু
jugantor
ভারতের ‘প্রধানমন্ত্রী পদে’ মমতাকে নিয়ে প্রচার শুরু

  অনলাইন ডেস্ক  

০১ জুন ২০২১, ১৮:৫১:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

ভারতের প্রধানন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে প্রচারণা শুরু হয়ে গেছে। আগামী লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী-বিরোধী ‘মুখ’ হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চায় ভার্চুয়ালবাসীদের অনেকেই। সোমবার থেকেই টুইটারে ট্রেন্ড হয়েছে, ‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হ্যাশট্যাগ প্রচার।

আনন্দবাজারপত্রিকার খবরে বলা হয়, বিধানসভা ভোটের ফলপ্রকাশের পর থেকেই জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপির মোকাবিলায় তৃণমূলনেত্রীকে তুলে ধরার পক্ষে ভার্চুয়ালজগতে প্রচার শুরু হয়েছে। তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি বিজেপি-বিরোধী নেটিজেনরা ধীরে ধীরে সেই প্রচারে শামিল হচ্ছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব থেকে সদ্য অবসর নেয়া আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের আবহে নেটিজেনদের আরও জোরালো হয়েছে সেই প্রচার।

খবরে বলা হয়, রোববার থেকেই মমতার ছবি দিয়ে ‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হ্যাশট্যাগে প্রচার শুরু হয়। সাবেক ক্রিকেটার তথা তৃণমূল বিধায়ক মনোজ তিওয়ারি সোমবার ‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হ্যাশট্যাগ দিয়ে টুইটবার্তায় বলেন, ‘বাংলা আজ যা ভাবছে, ভারত কাল তা ভাববে’।

মোদী এবং অমিত শাহের মডেল ব্যর্থ হয়েছে দাবি করে মনোজ লেখেন, ‘দিদিই আমাদের নেতৃত্ব দেবেন। যে ভাবে উনি উন্নয়নের মডেল বাস্তবায়িত করে বাংলাকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন’।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য, দলের যুবনেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য-সহ অনেকেই যোগ দিয়েছেন এই প্রচারে। উঠে আসছে মমতার পক্ষে নানা মন্তব্যও। কেউ লিখেছেন, ‘২০২৪ সালে দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতাই যোগ্য’। কারও মন্তব্য, ‘ভারত বাংলার মেয়েকে চায়’। কেউ বা লিখেছেন, ‘দিদিকে এবার প্রধানমন্ত্রী চাই’।

ভারতের ‘প্রধানমন্ত্রী পদে’ মমতাকে নিয়ে প্রচার শুরু

 অনলাইন ডেস্ক 
০১ জুন ২০২১, ০৬:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

ভারতের প্রধানন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে প্রচারণা শুরু হয়ে গেছে। আগামী লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী-বিরোধী ‘মুখ’ হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চায় ভার্চুয়ালবাসীদের অনেকেই।  সোমবার থেকেই টুইটারে ট্রেন্ড হয়েছে, ‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হ্যাশট্যাগ প্রচার।  

আনন্দবাজারপত্রিকার খবরে বলা হয়, বিধানসভা ভোটের ফলপ্রকাশের পর থেকেই জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপির মোকাবিলায় তৃণমূলনেত্রীকে তুলে ধরার পক্ষে ভার্চুয়ালজগতে প্রচার শুরু হয়েছে। তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি বিজেপি-বিরোধী নেটিজেনরা ধীরে ধীরে সেই প্রচারে শামিল হচ্ছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব থেকে সদ্য অবসর নেয়া আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঘিরে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের আবহে নেটিজেনদের আরও জোরালো হয়েছে সেই প্রচার।

খবরে বলা হয়, রোববার থেকেই মমতার ছবি দিয়ে ‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হ্যাশট্যাগে প্রচার শুরু হয়। সাবেক ক্রিকেটার তথা তৃণমূল বিধায়ক মনোজ তিওয়ারি সোমবার ‘বাঙালি প্রধানমন্ত্রী’ হ্যাশট্যাগ দিয়ে টুইটবার্তায় বলেন, ‘বাংলা আজ যা ভাবছে, ভারত কাল তা ভাববে’। 

মোদী এবং অমিত শাহের মডেল ব্যর্থ হয়েছে দাবি করে মনোজ লেখেন, ‘দিদিই আমাদের নেতৃত্ব দেবেন। যে ভাবে উনি উন্নয়নের মডেল বাস্তবায়িত করে বাংলাকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন’।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য, দলের যুবনেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য-সহ অনেকেই যোগ দিয়েছেন এই প্রচারে। উঠে আসছে মমতার পক্ষে নানা মন্তব্যও। কেউ লিখেছেন, ‘২০২৪ সালে দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মমতাই যোগ্য’। কারও মন্তব্য, ‘ভারত বাংলার মেয়েকে চায়’। কেউ বা লিখেছেন, ‘দিদিকে এবার প্রধানমন্ত্রী চাই’।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন