‘বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল’
jugantor
‘বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল’

  অনলাইন ডেস্ক  

০৫ জুন ২০২১, ১৫:৫২:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ডলি রানি মণ্ডল। ফাইল ছবি

বিজেপির প্রতি মোহভঙ্গের পরে মমতার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলা পরিষদের সদস্য ডলিরানি মণ্ডল। নির্বাচনে তৃণমূলের ভূমিধস জয়ের পর আবারও দলে ফিরতে উদগ্রীব সাবেক এ নেত্রী।

এ বিষয়ে তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৌসম বেনজির নূরের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন তিনি। শনিবার এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজ।

মালদহ জেলা পরিষদের সদস্য ডলিরানি মণ্ডল বলেন, ‘বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী’।

এবারের ভোটের পরে এখন মালদা জেলা পরিষদ বিজেপির দখলে। গত নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার পরেও ইতমধ্যে দল বদলেছেন অনেকে। আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ সরলা মুর্মু। কিন্তু বিজেপিতে গিয়ে তেমনভাবে সক্রিয় ছিলেন না তিনি। এখন আবার ফিরতে চান তৃনমূলে। তার সঙ্গে আরো ৫ জন জেলা পরিষদ সদস্য আগের দল তৃণমূলে ফিরতে চান। এ বিষয়ে দলটির রাজ্য ও জেলা নেতৃদের সঙ্গে কথা বলেন তারা।

ডলিরানি মণ্ডল ছিলেন মালদহের মানিকচকের ভূতনী দ্বীপের ২৩ নম্বর আসনে তৃণমূলের জেলা পরিষদ সদস্য। এবছরের ভোটে তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। এখন আবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ক্ষমা চেয়ে আবার তৃণমূলে ফিরতে চান তিনি।

এবারের বিধানসভার ভোটে বড় ব্যাবধানে জয়লাভ করার পরে আজ প্রথম সাংগঠনিক বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন মমতা। সেখানে উপস্থিত থাকবেন দলের সব সাংসদ, বিধায়কসহ জেলার সভাপতিরা।

জিনিউজ জানায়, আজকের বৈঠকে ‘দল বদলকারী’-দের নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন মমতা। তবে, এখই তাদেরকে দলে ফেরত নেবার সম্ভাবনা কম। এছাড়াও সোনালী গুহ থেকে দীপেন্দু বিশ্বাসসহ তার সঙ্গে অনেকেই আগের দল তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন করেন।

‘বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল’

 অনলাইন ডেস্ক 
০৫ জুন ২০২১, ০৩:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ডলি রানি মণ্ডল। ফাইল ছবি
ডলি রানি মণ্ডল। ফাইল ছবি

বিজেপির প্রতি মোহভঙ্গের পরে মমতার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মালদহ জেলা পরিষদের সদস্য ডলিরানি মণ্ডল। নির্বাচনে তৃণমূলের ভূমিধস জয়ের পর আবারও দলে ফিরতে উদগ্রীব সাবেক এ নেত্রী। 

এ বিষয়ে তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৌসম বেনজির নূরের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন তিনি।  শনিবার এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজ।

মালদহ জেলা পরিষদের সদস্য ডলিরানি মণ্ডল বলেন, ‘বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী’। 

এবারের ভোটের পরে এখন মালদা জেলা পরিষদ বিজেপির দখলে। গত নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার পরেও ইতমধ্যে দল বদলেছেন অনেকে।  আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ সরলা মুর্মু।  কিন্তু বিজেপিতে  গিয়ে তেমনভাবে সক্রিয় ছিলেন না তিনি।  এখন আবার ফিরতে চান তৃনমূলে।  তার সঙ্গে আরো ৫ জন জেলা পরিষদ সদস্য আগের দল তৃণমূলে ফিরতে চান।  এ বিষয়ে দলটির রাজ্য ও জেলা নেতৃদের সঙ্গে কথা বলেন তারা। 

ডলিরানি মণ্ডল ছিলেন মালদহের মানিকচকের ভূতনী দ্বীপের ২৩ নম্বর আসনে তৃণমূলের জেলা পরিষদ সদস্য।  এবছরের ভোটে তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন।  এখন আবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ক্ষমা চেয়ে আবার তৃণমূলে ফিরতে চান তিনি।  

এবারের বিধানসভার ভোটে বড় ব্যাবধানে জয়লাভ করার পরে আজ প্রথম সাংগঠনিক বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন মমতা।  সেখানে উপস্থিত থাকবেন দলের সব সাংসদ, বিধায়কসহ জেলার সভাপতিরা।  

জিনিউজ জানায়, আজকের বৈঠকে ‘দল বদলকারী’-দের নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন মমতা।  তবে, এখই তাদেরকে দলে ফেরত নেবার সম্ভাবনা কম।  এছাড়াও সোনালী গুহ থেকে দীপেন্দু বিশ্বাসসহ তার সঙ্গে অনেকেই আগের দল তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন করেন। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১