হামাসের হুমকির পর ইসরাইলি দখলদারদের মিছিল ভণ্ডুল
jugantor
হামাসের হুমকির পর ইসরাইলি দখলদারদের মিছিল ভণ্ডুল

  অনলাইন ডেস্ক  

০৭ জুন ২০২১, ২১:৫৮:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গনে নজরদারি করছে ইসরাইলের পুলিশ

ইসরাইলের ডানপন্থী দখলদাররা আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গন দিয়ে একটি পতাকা মিছিল বের করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলনের হুমকির মুখে মিছিলটির অনুমতি বাতিল করেছে ইসরাইলি পুলিশ।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, আগামী বৃহস্পতিবার ইসরাইলের কট্টরপন্থি দখলদাররা পূর্ব জেরুজালেম দিয়ে এই বিতর্কিত পতাকা মিছিল বের করার পদক্ষেপ নিয়েছিল। কিন্তু ইসরাইলের পুলিশ দেশটিতে উত্তেজনার দোহায় দিয়ে মিছিলের অনুমতি দেয়নি।

পুলিশের ভাষ্য, এই ধরনের মিছিল করার এটা উপযুক্ত সময় নয়।

মিছিল আয়োজনকারীদের একজন মুখপাত্র বলেন, পুলিশ মিছিলের অনুমতি না দেওয়ায় তারা কর্মসূচি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে ইসরাইলের পুলিশ শুধু শুধুই এই মিছিলের অনুমতি বাতিল করেনি। ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের সিনিয়র কমান্ডার খলিল হায়া মিছিল বের না করার হুমকি দিয়েছিলেন।

এরপরই ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনী পতাকা মিছিলের অনুমতি বাতিল করে। তবে হামাসের হুমকির সঙ্গে মিছিল বাতিলের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরাইলি পুলিশ।

মিছিল না করতে দখলদার বাহিনীকে সতর্ক করে হামাসের এই নেতা বলেন, দখলদারদের মিছিল নতুন করে সহিংসতা সৃষ্টি করবে। আমরা বৃহস্পতিবার ইসরাইলি দখলদারদের পূর্ব জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গন দিয়ে মিছিল নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সতর্ক করছি।

তিনি স্পষ্টভাবে বলেন, আশা করি বৃহস্পতিবার আরেকটি ‘১০ মে’ হবে না।

গত মাসের ১০ মে জেরুজালেম থেকে জোরপূর্বক ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদের মুখে ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ইসরাইল লক্ষ্য করে রকেট ছোড়ে। এরপর ইসরাইলের সঙ্গে তাদের যুদ্ধ বেঁধে যায়। টানা ১১ দিন যুদ্ধে অর্ধশতাধিক নারী ও শিশুসহ ২৮০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হন। অন্যদিকে, হামাসের রকেট হামলায় ইসরাইলের দুইজন শিশুসহ ১২ জন নিহত হয়েছিল। পরে মিসরের মধ্যস্থতায় উভয় দেশ পরে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়।

মিছিল বাতিলের বিষয়ে ইসরাইলের পুলিশ এক বিবৃতিতে বলেছে, এই সময়ে ওই রুটে মিছিলের অনুমোদন দেওয়া হয়নি। অনুমতির বিষয়টি তারা পুনর্বিবেচনা করবেন উল্লেখ করে পুলিশ আরও বলেছে, এটা অন্য সময়ে অথবা ভিন্নভাবে আয়োজন করার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

তবে কট্টরডানপন্থি ইসরাইলের নাগরিকরা হামাসের হুমকির কারণে মিছিলের অনুমতি বাতিল না করার আহ্বান জানালেও ইসরাইলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গ্যান্টজ পুলিশের প্রতি মিছিলের অনুমতি না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

হামাসের হুমকির পর ইসরাইলি দখলদারদের মিছিল ভণ্ডুল

 অনলাইন ডেস্ক 
০৭ জুন ২০২১, ০৯:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গনে নজরদারি করছে ইসরাইলের পুলিশ
আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গনে নজরদারি করছে ইসরাইলের পুলিশ। ছবি: আনাদোলু এজেন্সি

ইসরাইলের ডানপন্থী দখলদাররা আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গন দিয়ে একটি পতাকা মিছিল বের করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলনের হুমকির মুখে মিছিলটির অনুমতি বাতিল করেছে ইসরাইলি পুলিশ। 

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, আগামী বৃহস্পতিবার ইসরাইলের কট্টরপন্থি দখলদাররা পূর্ব জেরুজালেম দিয়ে এই বিতর্কিত পতাকা মিছিল বের করার পদক্ষেপ নিয়েছিল। কিন্তু ইসরাইলের পুলিশ দেশটিতে উত্তেজনার দোহায় দিয়ে মিছিলের অনুমতি দেয়নি।  

পুলিশের ভাষ্য, এই ধরনের মিছিল করার এটা উপযুক্ত সময় নয়। 

মিছিল আয়োজনকারীদের একজন মুখপাত্র বলেন, পুলিশ মিছিলের অনুমতি না দেওয়ায় তারা কর্মসূচি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে ইসরাইলের পুলিশ শুধু শুধুই এই মিছিলের অনুমতি বাতিল করেনি। ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের সিনিয়র কমান্ডার খলিল হায়া মিছিল বের না করার হুমকি দিয়েছিলেন। 

এরপরই ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনী পতাকা মিছিলের অনুমতি বাতিল করে। তবে হামাসের হুমকির সঙ্গে মিছিল বাতিলের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরাইলি পুলিশ।

মিছিল না করতে দখলদার বাহিনীকে সতর্ক করে হামাসের এই নেতা বলেন, দখলদারদের মিছিল নতুন করে সহিংসতা সৃষ্টি করবে। আমরা বৃহস্পতিবার ইসরাইলি দখলদারদের পূর্ব জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদ প্রাঙ্গন দিয়ে মিছিল নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সতর্ক করছি। 

তিনি স্পষ্টভাবে বলেন, আশা করি বৃহস্পতিবার আরেকটি ‘১০ মে’ হবে না। 

গত মাসের ১০ মে জেরুজালেম থেকে জোরপূর্বক ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদের মুখে ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ইসরাইল লক্ষ্য করে রকেট ছোড়ে। এরপর ইসরাইলের সঙ্গে তাদের যুদ্ধ বেঁধে যায়। টানা ১১ দিন যুদ্ধে অর্ধশতাধিক নারী ও শিশুসহ ২৮০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হন। অন্যদিকে, হামাসের রকেট হামলায় ইসরাইলের দুইজন শিশুসহ ১২ জন নিহত হয়েছিল। পরে মিসরের মধ্যস্থতায় উভয় দেশ পরে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়।  

মিছিল বাতিলের বিষয়ে ইসরাইলের পুলিশ এক বিবৃতিতে বলেছে, এই সময়ে ওই রুটে মিছিলের অনুমোদন দেওয়া হয়নি। অনুমতির বিষয়টি তারা পুনর্বিবেচনা করবেন উল্লেখ করে পুলিশ আরও বলেছে, এটা অন্য সময়ে অথবা ভিন্নভাবে আয়োজন করার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। 

তবে কট্টরডানপন্থি ইসরাইলের নাগরিকরা হামাসের হুমকির কারণে মিছিলের অনুমতি বাতিল না করার আহ্বান জানালেও ইসরাইলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গ্যান্টজ পুলিশের প্রতি মিছিলের অনুমতি না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ