আর্মেনীয় সেনাকে গ্রেফতার আজারবাইজানের, পালিয়ে বাঁচল অন্যরা
jugantor
আর্মেনীয় সেনাকে গ্রেফতার আজারবাইজানের, পালিয়ে বাঁচল অন্যরা

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ জুন ২০২১, ১৭:১৪:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আর্মেনিয়ার সেনাসদস্য

নিজেদের ভূখণ্ডে মাইন স্থাপন করার সময় আর্মেনীয় এক সেনাকে গ্রেফতার করেছে আজারবাইজান। এ সময় ওই সেনার সঙ্গে থাকা অন্যরা পালিয়ে যান। লাচিন শহরের কাছে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর নাশকতা চালানো একটি গ্রুপ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যে আজারবাইজানের ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করে। আরতুর কার্তানইয়ান নামে ওই সেনাকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা অন্যরা পালিয়ে যায়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আর্মেনিয়া সেনাবাহিনীর নাশকতা চালানো গ্রুপটির উদ্দেশ্য ছিল আজারবাইজানের ভূখণ্ডে মাইন পোতা।

১৯৯১ সালে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী নাগোরনো-কারাবাখ দখল করে। ওই অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইনের হিসেবে স্বীকৃত।

২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী বেসামরিক ও আজারবাইজানের সেনাদের ওপর হামলা চালায় এবং মানবিক যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে।

এর ফলে দুই দেশের মধ্যে ৪৪ দিন ধরে টানা সংঘর্ষ চলে। আজারবাইজানের হামলায় বিপর্যস্ত হয়ে পরে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী। পরবর্তীতে রাশিয়ার মধ্যাস্থতায় ১০ নভেম্বর আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এতে যুদ্ধ ছাড়াই আজারবাইজান বেশ করেয়টি অঞ্চল এবং ৩০০ বসতি ও গ্রাম দখলমুক্ত করে।

সূত্র: ইয়েনি শাফাক।

আর্মেনীয় সেনাকে গ্রেফতার আজারবাইজানের, পালিয়ে বাঁচল অন্যরা

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ জুন ২০২১, ০৫:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আর্মেনিয়ার সেনাসদস্য
ফাইল ছবি

নিজেদের ভূখণ্ডে মাইন স্থাপন করার সময় আর্মেনীয় এক সেনাকে গ্রেফতার করেছে আজারবাইজান। এ সময় ওই সেনার সঙ্গে থাকা অন্যরা পালিয়ে যান। লাচিন শহরের কাছে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।  

মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর নাশকতা চালানো একটি গ্রুপ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যে আজারবাইজানের ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করে।  আরতুর কার্তানইয়ান নামে ওই সেনাকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা অন্যরা পালিয়ে যায়। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আর্মেনিয়া সেনাবাহিনীর নাশকতা চালানো গ্রুপটির উদ্দেশ্য ছিল আজারবাইজানের ভূখণ্ডে মাইন পোতা। 

১৯৯১ সালে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী নাগোরনো-কারাবাখ দখল করে।  ওই অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইনের হিসেবে স্বীকৃত। 

২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী বেসামরিক ও আজারবাইজানের সেনাদের ওপর হামলা চালায় এবং মানবিক যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে। 

এর ফলে দুই দেশের মধ্যে ৪৪ দিন ধরে টানা সংঘর্ষ চলে।  আজারবাইজানের হামলায় বিপর্যস্ত হয়ে পরে আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনী।  পরবর্তীতে রাশিয়ার মধ্যাস্থতায় ১০ নভেম্বর আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।  এতে যুদ্ধ ছাড়াই আজারবাইজান বেশ করেয়টি অঞ্চল এবং ৩০০ বসতি ও গ্রাম দখলমুক্ত করে। 

সূত্র: ইয়েনি শাফাক।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত