সু চির বিরুদ্ধে নতুন মামলা, ১৫ বছরের জেল হতে পারে
jugantor
সু চির বিরুদ্ধে নতুন মামলা, ১৫ বছরের জেল হতে পারে

  অনলাইন ডেস্ক  

১০ জুন ২০২১, ১৮:২৩:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

অং সান সু চি

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধ নতুন মামলা হয়েছে। দেশটির সামরিক সরকার দুর্নীতির অভিযোগ এনে এ মামলা দায়ের করে। পাশাপাশি সু চির দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) কয়েকজন শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধেও দুর্নীতির মামলা করা হয়।

বুধবার রাজধানী নেপিদোর একটি পুলিশ স্টেশনে এ মামলা দায়ের করা হয়।

একটি দাতব্য সংস্থার নামে জমি অপব্যবহারের অভিযোগ আনা হয় সু চির বিরুদ্ধে। এর আগে তার বিরুদ্ধে অর্থ ও স্বর্ণ ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ ছাড়া অবৈধভাবে ওয়াকিটকি রেডিও ব্যবহারের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্টে মামলা দায়ের হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, সু চি তার ক্ষমতা ব্যবহার করে দুর্নীতির অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। তাই তাকে দুর্নীতি দমন আইনের ৫৫ ধারায় অভিযুক্ত করা হয়। এই আইনে দোষী সাব্যস্ত হলে তার জন্য ১৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি দেশটির নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। এরপর থেকে সু চিকে গৃহবন্দি রাখা হয়। সু চি ও তার দলের নেতাদের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করে সামরিক জান্তা সরকার।

সু চির বিরুদ্ধে নতুন মামলা, ১৫ বছরের জেল হতে পারে

 অনলাইন ডেস্ক 
১০ জুন ২০২১, ০৬:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অং সান সু চি
অং সান সু চি। ছবি: রয়টার্স

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধ নতুন মামলা হয়েছে।  দেশটির সামরিক সরকার দুর্নীতির অভিযোগ এনে এ মামলা দায়ের করে। পাশাপাশি সু চির দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) কয়েকজন শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধেও দুর্নীতির মামলা করা হয়।   

বুধবার রাজধানী নেপিদোর একটি পুলিশ স্টেশনে এ মামলা দায়ের করা হয়। 

একটি দাতব্য সংস্থার নামে জমি অপব্যবহারের অভিযোগ আনা হয় সু চির বিরুদ্ধে।  এর আগে তার বিরুদ্ধে অর্থ ও স্বর্ণ ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে।  এ ছাড়া অবৈধভাবে ওয়াকিটকি রেডিও ব্যবহারের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে অফিসিয়াল সিক্রেট অ্যাক্টে মামলা দায়ের হয়েছে। 

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, সু চি তার ক্ষমতা ব্যবহার করে দুর্নীতির অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। তাই তাকে দুর্নীতি দমন আইনের ৫৫ ধারায় অভিযুক্ত করা হয়। এই আইনে দোষী সাব্যস্ত হলে তার জন্য ১৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। 

চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি দেশটির নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। এরপর থেকে সু চিকে গৃহবন্দি রাখা হয়।  সু চি ও তার দলের নেতাদের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করে সামরিক জান্তা সরকার। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : অং সান সু চি আটক