সহিংসতায় মদত, অভিনেতা মিঠুনের প্রতি হাইকোর্টের নতুন নির্দেশ
jugantor
সহিংসতায় মদত, অভিনেতা মিঠুনের প্রতি হাইকোর্টের নতুন নির্দেশ

  অনলাইন ডেস্ক  

১১ জুন ২০২১, ১৮:৫৪:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পক্ষে প্রচারণায় নেমে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বিভিন্ন সময় আলোচনায় ছিলেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। ফাইল ছবি

সহিংসতায় মদত দেওয়ার অভিযোগের মামলায় পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুনকে সহযোগিতা করতে হবে। বিজেপিতে যোগ দেয়া এ অভিনেতার অস্বস্তি বাড়িয়ে শুক্রবার স্পষ্ট জানিয়ে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। একই সঙ্গে অভিনেতা মিঠুনের প্রতি নতুন নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, তৃণমূলের দায়ের করা ওই মামলা খারিজের আবেদন জানিয়ে আগেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মিঠুন। কিন্তু ওই আবেদন গ্রহণ করেনি আদালত।

আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়, শুনানির দিন আদালতে সশরীরে হাজির না থাকলেও চলবে। তবে তদন্তে কলকাতা পুলিশকে সবরকমভাবে সাহায্য করতে হবে অভিনেতাকে। প্রয়োজনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাকে যাতে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন তদন্তকারী অফিসাররা, তার জন্য মিঠুনকে তার ই-মেইল আইডিও দিতে বলা হয়েছে। আগামী শুক্রবার ফের ওই মামলার শুনানি হবে।

মিঠুনের ‘মারব এখানে, লাশ পড়বে শ্মশানে’, ‘জাত গোখরো’ ইত্যাদি নানা সংলাপ নিয়ে আপত্তি তুলে মানিকতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করে তৃণমূল। তার বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র (১২০বি), উস্কানিমূলক বক্তৃতা করে শান্তিভঙ্গের চেষ্টা (৫০৪, ৫০৫), বিভিন্ন গোষ্ঠী এবং বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানো (১৫৩এ)-সহ একাধিক ধারায় মামলা চলছে।

সহিংসতায় মদত, অভিনেতা মিঠুনের প্রতি হাইকোর্টের নতুন নির্দেশ

 অনলাইন ডেস্ক 
১১ জুন ২০২১, ০৬:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পক্ষে প্রচারণায় নেমে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বিভিন্ন সময় আলোচনায় ছিলেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। ফাইল ছবি
বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পক্ষে প্রচারণায় নেমে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বিভিন্ন সময় আলোচনায় ছিলেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। ফাইল ছবি

সহিংসতায় মদত দেওয়ার অভিযোগের মামলায় পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুনকে সহযোগিতা করতে হবে। বিজেপিতে যোগ দেয়া এ অভিনেতার অস্বস্তি বাড়িয়ে শুক্রবার স্পষ্ট জানিয়ে দিল কলকাতা হাইকোর্ট।  একই সঙ্গে অভিনেতা মিঠুনের প্রতি নতুন নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। 

আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, তৃণমূলের দায়ের করা ওই মামলা খারিজের আবেদন জানিয়ে আগেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মিঠুন। কিন্তু ওই আবেদন গ্রহণ করেনি আদালত।

আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়, শুনানির দিন আদালতে সশরীরে হাজির না থাকলেও চলবে। তবে তদন্তে কলকাতা পুলিশকে সবরকমভাবে সাহায্য করতে হবে অভিনেতাকে। প্রয়োজনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাকে যাতে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন তদন্তকারী অফিসাররা, তার জন্য মিঠুনকে তার ই-মেইল আইডিও দিতে বলা হয়েছে। আগামী শুক্রবার ফের ওই মামলার শুনানি হবে।

মিঠুনের ‘মারব এখানে, লাশ পড়বে শ্মশানে’, ‘জাত গোখরো’ ইত্যাদি নানা সংলাপ নিয়ে আপত্তি তুলে মানিকতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করে তৃণমূল। তার বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র (১২০বি), উস্কানিমূলক বক্তৃতা করে শান্তিভঙ্গের চেষ্টা (৫০৪, ৫০৫), বিভিন্ন গোষ্ঠী এবং বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানো (১৫৩এ)-সহ একাধিক ধারায় মামলা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন