গাধা রপ্তানি করছে পাকিস্তান
jugantor
গাধা রপ্তানি করছে পাকিস্তান

  যুগান্তর ডেস্ক  

১১ জুন ২০২১, ১৯:১৬:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

গাধা রপ্তানি করছে পাকিস্তান

পাকিস্তানে গাধার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে পাকিস্তানে গাধার সংখ্যা প্রায় এক লাখ বেড়েছে। যার ফলে পাকিস্তানে মোট গাধার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৬ লাখে। গত বছরেও এই সংখ্যা ছিল ৫৫ লাখের আশেপাশে। দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন শুক্রবার এক প্রতিবেদনে তথ্য জানিয়েছে।

পাকিস্তান প্রচুর পরিমাণে গাধা চীনে রফতানি করে। এই গাধার চামড়া বিশেষ ধরনের চীনা ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয় বলে জানা গেছে।

সমীক্ষার বরাত দিয়ে দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ওই প্রতিবেদনে জানিয়েছে, শুধুমাত্র গাধা নয়, পাকিস্তানে মহিষ, ঘোড়া,ছাগল, ভেড়া, উট ও খচ্চরসহ অন্যান্য পশুর সংখ্যাও বেড়ে গেছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনে এই গাধা রফতানি করে পাকিস্তান প্রচুর অর্থ উপার্জন করে। গাধার চামড়ারও চীনে যথেষ্ট কদর রয়েছে। এ কারণেই পাকিস্তানের থেকে প্রচুর সংখ্যায় গাধা কেনে চীন। যদিও চীনেও প্রচুর পরিমাণে গাধা রয়েছে।

গাধার চামড়া থেকে তৈরি জেলটিনের ঔষধি গুণ রয়েছে। এটি রক্তের কাজ বৃদ্ধি করতে ও প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। গাধার সংখ্যার দিক থেকে বিচারে পাকিস্তান বিশ্বে তৃতীয় স্থানে রয়েছে। এক্ষেত্রে প্রথম স্থানে রয়েছে চীন।

চীনে গাধার চাহিদা এতই বেশি, যে বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা একসময় চীন থেকে গাধা বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে। এমনকি সারা বিশ্বের গাধার সংখ্যাও কমে যেতে পারে বলেও দাবি করা হয়েছে।

গাধা রপ্তানি করছে পাকিস্তান

 যুগান্তর ডেস্ক 
১১ জুন ২০২১, ০৭:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গাধা রপ্তানি করছে পাকিস্তান
ছবি : সংগৃহীত

পাকিস্তানে গাধার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। চলতি  ২০২০-২১ অর্থবছরে পাকিস্তানে গাধার সংখ্যা প্রায় এক লাখ বেড়েছে। যার ফলে পাকিস্তানে মোট গাধার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৬ লাখে। গত বছরেও এই সংখ্যা ছিল ৫৫ লাখের আশেপাশে। দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন শুক্রবার এক প্রতিবেদনে তথ্য জানিয়েছে।

পাকিস্তান প্রচুর পরিমাণে গাধা চীনে রফতানি করে। এই গাধার চামড়া বিশেষ ধরনের চীনা ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয় বলে জানা গেছে। 

সমীক্ষার বরাত দিয়ে দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন  ওই প্রতিবেদনে জানিয়েছে, শুধুমাত্র গাধা নয়, পাকিস্তানে মহিষ, ঘোড়া,ছাগল, ভেড়া, উট ও খচ্চরসহ অন্যান্য পশুর সংখ্যাও বেড়ে গেছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনে এই গাধা রফতানি করে পাকিস্তান প্রচুর অর্থ উপার্জন করে। গাধার চামড়ারও চীনে যথেষ্ট কদর রয়েছে। এ কারণেই পাকিস্তানের থেকে প্রচুর সংখ্যায় গাধা কেনে চীন। যদিও চীনেও প্রচুর পরিমাণে গাধা রয়েছে।

গাধার চামড়া থেকে তৈরি জেলটিনের ঔষধি গুণ রয়েছে। এটি রক্তের কাজ বৃদ্ধি করতে ও প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। গাধার সংখ্যার দিক থেকে বিচারে পাকিস্তান বিশ্বে তৃতীয় স্থানে রয়েছে। এক্ষেত্রে প্রথম স্থানে রয়েছে চীন।

চীনে গাধার চাহিদা এতই বেশি, যে বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা একসময় চীন থেকে গাধা বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে। এমনকি সারা বিশ্বের গাধার সংখ্যাও কমে যেতে পারে বলেও দাবি করা হয়েছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন