মহাকাশে ৬ বছর সংরক্ষণের পর ইঁদুরের শুক্রাণু থেকে ছানার জন্ম!
jugantor
মহাকাশে ৬ বছর সংরক্ষণের পর ইঁদুরের শুক্রাণু থেকে ছানার জন্ম!

  অনলাইন ডেস্ক  

১৩ জুন ২০২১, ০০:৫২:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ইঁ‌দুর

শুক্রাণুতে মহাকাশের বিকিরণের কোনো প্রভাব পরে কিনা জানতে ৬ বছরমহাকাশে সংরক্ষণ করা হয়েছিল ইঁদুরের শুক্রাণু। সুস্থ স্ত্রী ইঁদুরের ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করতে ব্যবহার করা হয় মহাকাশ ফেরত ওই শুক্রাণু। দেখা যায়,মহাকাশ ফেরত শুক্রাণু থেকে ১৬৮টি সম্পূর্ণ সুস্থ ইঁদুর ছানার জন্ম হয়েছে। সায়েন্স অ্যাডভান্সেস জার্নালে শুক্রবার এই গবেষণার প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

হিন্দুস্থান টাইমস শনিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০১৩ সালে ইঁদুরের শুক্রাণু সংরক্ষণ করে পাঠানো হয় আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে। সেখানে ৬ বছর রাখার পর তা স্পেস-এক্স এর যানে পৃথিবীতে ফিরে আসে।

এ ব্যাপারে এই গবেষণার প্রধান গবেষক তেরুহইকো ওয়াকাইয়ামা জানান, জাপানের ইয়ামানাশি ইউনিভার্সিটির তরফ থেকে মোট ৩ বাক্স ইঁদুরের শুক্রাণু মহাকাশে প্রেরণ করেন তারা। তাতে মোট ৪৮টি অ্যাম্পুল ছিল।

গবেষক জানান, ভবিষ্যতে আরও দূরে, বহু সময় ধরে মহাকাশযাত্রা করবে মানুষ। এছাড়াও মহাকাশে শুধু মানুষই নয়, বিভিন্ন পশু-প্রাণীরও জেনেটিক রিসোর্স সংরক্ষণ করা যেতে পারে। এভাবে প্রায় ২০০ বছর পর্যন্ত শুক্রাণু ফ্রিজ-ড্রাই করে তা রেখে দেওয়া সম্ভব বলে জানা গেছে গবেষণায়।

মহাকাশে ৬ বছর সংরক্ষণের পর ইঁদুরের শুক্রাণু থেকে ছানার জন্ম!

 অনলাইন ডেস্ক 
১৩ জুন ২০২১, ১২:৫২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইঁ‌দুর
ছবি: সংগৃহীত

শুক্রাণুতে মহাকাশের বিকিরণের কোনো প্রভাব পরে কিনা জানতে ৬ বছরমহাকাশে সংরক্ষণ করা হয়েছিল ইঁদুরের শুক্রাণু। সুস্থ স্ত্রী ইঁদুরের ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করতে ব্যবহার করা হয় মহাকাশ ফেরত ওই শুক্রাণু। দেখা যায়,মহাকাশ ফেরত শুক্রাণু থেকে ১৬৮টি সম্পূর্ণ সুস্থ ইঁদুর ছানার জন্ম হয়েছে। সায়েন্স অ্যাডভান্সেস জার্নালে শুক্রবার এই গবেষণার প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

হিন্দুস্থান টাইমস শনিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০১৩ সালে ইঁদুরের শুক্রাণু সংরক্ষণ করে পাঠানো হয় আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে। সেখানে ৬ বছর রাখার পর তা স্পেস-এক্স এর যানে পৃথিবীতে ফিরে আসে।

এ ব্যাপারে এই গবেষণার প্রধান গবেষক তেরুহইকো ওয়াকাইয়ামা জানান, জাপানের ইয়ামানাশি ইউনিভার্সিটির তরফ থেকে মোট ৩ বাক্স ইঁদুরের শুক্রাণু মহাকাশে প্রেরণ করেন তারা। তাতে মোট ৪৮টি অ্যাম্পুল ছিল।

গবেষক জানান, ভবিষ্যতে আরও দূরে, বহু সময় ধরে মহাকাশযাত্রা করবে মানুষ। এছাড়াও মহাকাশে শুধু মানুষই নয়, বিভিন্ন পশু-প্রাণীরও জেনেটিক রিসোর্স সংরক্ষণ করা যেতে পারে। এভাবে প্রায় ২০০ বছর পর্যন্ত শুক্রাণু ফ্রিজ-ড্রাই করে তা রেখে দেওয়া সম্ভব বলে জানা গেছে গবেষণায়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন