সোমালিয়ার সেনা ক্যাম্পে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৫
jugantor
সোমালিয়ার সেনা ক্যাম্পে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৫

  অনলাইন ডেস্ক  

১৫ জুন ২০২১, ১৮:৩৩:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

সোমালিয়ায় আত্মঘাতী হামলায় আহতদের মদিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়

সোমালিয়ার রাজধানীর এক সেনা ক্যাম্পে ভয়াবহ আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে সেনাবাহিনীতে নিয়োগপ্রাপ্ত অন্তত ১৫ সেনা নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার মোগাদিসুর ধেগোবাদন সেনা ক্যাম্পে এই ঘটনা ঘটে।

সেনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আদান বলেন, নুতন নিয়োগপ্রাপ্ত সেনাদের সারিতে আত্মঘাতী হামলাকারী লুকিয়ে ছিল। এরপর ভয়াবহ বিস্ফোরণে ক্যাম্পটি কেঁপে ওঠে। হামলায় অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে উল্লেখ করে এই সেনা কর্মকর্তা মৃত্যু বাড়ার আশঙ্কা করেন।

রয়টার্স নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, হামলায় আহতদেরকে মোগাদিসুর মদিনা হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুতে প্রায় ১৮ মাস পর এমন ভয়াবহ হামলা হলো। তবে এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী হামলায় দায় স্বীকার করেনি। সোমালিয়াতে হোটেল এবং নিরাপত্তা ফাঁড়িতে হামলা খুবই সাধারণ ঘটনা।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে শহরের সিটি সেন্টারের একটি নিরাপত্তা ফাঁড়িতে এক হামলায় ৮১ জন নিহত হয়েছিল। এরপর সর্বশেষ বড় হামলার ঘটনা ঘটে ২০২০ সালের আগস্টে। ওই হামলায় ১১ জন নিহত হয়।

কাতারভিত্তিক আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ব্গিত ৩০ বছর যাবৎ অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সমস্যা গৃহযুদ্ধ, সংঘাত, সশস্ত্র বিদ্রোহ, দুর্ভিক্ষে জর্জরিত সোমালিয়া।

সোমালিয়ার সেনা ক্যাম্পে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৫

 অনলাইন ডেস্ক 
১৫ জুন ২০২১, ০৬:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সোমালিয়ায় আত্মঘাতী হামলায় আহতদের মদিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়
সেনা ক্যাম্পে আত্মঘাতী হামলায় আহতদেরকে অ্যাম্বুলেন্সে করে মোগাদিসুর মদিনা হাসপাতালে নেওয়া হয়। ছবি: রয়টার্স

সোমালিয়ার রাজধানীর এক সেনা ক্যাম্পে ভয়াবহ আত্মঘাতী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে সেনাবাহিনীতে নিয়োগপ্রাপ্ত অন্তত ১৫ সেনা নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার মোগাদিসুর ধেগোবাদন সেনা ক্যাম্পে এই ঘটনা ঘটে।

সেনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আদান বলেন, নুতন নিয়োগপ্রাপ্ত সেনাদের সারিতে আত্মঘাতী হামলাকারী লুকিয়ে ছিল। এরপর ভয়াবহ বিস্ফোরণে ক্যাম্পটি কেঁপে ওঠে। হামলায় অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে উল্লেখ করে এই সেনা কর্মকর্তা মৃত্যু বাড়ার আশঙ্কা করেন।

রয়টার্স নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, হামলায় আহতদেরকে মোগাদিসুর মদিনা হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুতে প্রায় ১৮ মাস পর এমন ভয়াবহ হামলা হলো। তবে এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী হামলায় দায় স্বীকার করেনি। সোমালিয়াতে হোটেল এবং নিরাপত্তা ফাঁড়িতে হামলা খুবই সাধারণ ঘটনা।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে শহরের সিটি সেন্টারের একটি নিরাপত্তা ফাঁড়িতে এক হামলায় ৮১ জন নিহত হয়েছিল। এরপর সর্বশেষ বড় হামলার ঘটনা ঘটে ২০২০ সালের আগস্টে। ওই হামলায় ১১ জন নিহত হয়।

কাতারভিত্তিক আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ব্গিত ৩০ বছর যাবৎ অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সমস্যা গৃহযুদ্ধ, সংঘাত, সশস্ত্র বিদ্রোহ, দুর্ভিক্ষে জর্জরিত সোমালিয়া।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন